খবর ২৪ ঘন্টা

কুম্বলের পদত্যাগ ও টিমের লজ্জাজনক হারের জন্য দায়ী বিরাটঃ গাভাসকার ~ ভিডিও নিউজ

শেয়ার করুন সকলের সাথে...

ওয়েব ডেস্কঃ পদত্যাগ করতে বাধ্য হলেন দেশের কিংবদন্তি স্পিনার অনিল কুম্বলে। সাফল্য আসার পরেও ছাড়তে হল পদ। পরোক্ষে অধিনায়ক বিরাট কোহলির তীব্র নিন্দা করলেন প্রাক্তন অধিনায়ক সুনীল গাভাসকার। জানালেন, “পরবর্তী কোচের কাছে এক স্পষ্ট বার্তা দিতে পেরেছে টিম। ক্রিকেটাররা প্রত্যেকে যা চাইছে, তা মেনে নাও। না হলে তোমাকেও সরে যেতে হবে। ভারতীয় ক্রিকেটে এটা অত্যন্ত দুঃখের ঘটনা। অনিল কুম্বলে পরিশ্রমী, নিষ্ঠাবান ও কঠোর হোমওয়ার্কে বিশ্বাসী। নিজের ক্রিকেটজীবনকে যেভাবে দেখেছেন, বর্তমান টিম ইন্ডিয়ার প্রত্যেক সদস্যকে সেভাবে গড়তে চেয়েছিলেন।
 গাভাসকার আজ এক সর্বভারতীয় টেলিভিশনে এর তীব্র নিন্দা করেন। তিনি বলেন, “ক্রিকেটার হিসেবে কুম্বলে যা অর্জন করেছে, তা অসামান্য। কোচ হিসেবেও ওর ক্যারিয়ার স্বপ্নের মতো। কঠোর পরিশ্রমী হয়ে যদি তাঁকে অপমানিত হতে হয় বা খারাপ কিছু শুনতে হয়, তা মেনে নেওয়া যায় না। সংবাদপত্র পড়ে যা মনে হচ্ছে, কুম্বলের হেডমাস্টারি ক্রিকেটারদের পছন্দ হয়নি। অর্থাৎ, হালকা মনোভাবের কোচ চান কোহলিরা। যাকে বলা যাবে, আজ প্র্যাকটিস করতে ভালো লাগছে না। কোচ তখন তা মেনে নেবে আর বলবে, চলো আজ শপিং করে আসি। আমি যতদূর জানি, কুম্বলে এমন মানসিকতার লোক নয়। আমার মনে হয়, টিমে এই মনোভাব যদি কারও থাকে ; তাঁর ভারতীয় দলে খেলার কোনও প্রয়োজন নেই।”
দেখুন মিডিয়া চ্যানেলকে দেওয়া সুনীল গাভাসকারের সেই সাক্ষাৎকার ~
       সৌজন্যঃ এনডিটিভি 
চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সময় লন্ডনে উপস্থিত ছিলেন ক্রিকেট অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ কমিটির কর্তারা। বিরাট ও কুম্বলের মধ্যে মতবিরোধ মেটানোর চেষ্টা করেন তাঁরা। কিন্তু বিরাটের যুক্তিতে কেউ তাঁকে ঘাঁটানোর সাহস পাননি। বিরাটের সঙ্গে গোপন আলোচনায় বসেন অ্যাডভাইসরি কমিটির সদস্য সৌরভ, সচিন ও লক্ষ্মণ। পাকিস্তানের বিরুদ্ধে প্রথম ম্যাচের আগে বিরাট সাংবাদিক বৈঠকে এসে বলেন, কোচের সঙ্গে তাঁর কোনও মতবিরোধ নেই। কিন্তু বোর্ডের অন্দরে বিরাট জানিয়ে দেন, তিনি কুম্বলের স্টাইল নিয়ে খুশি নন। চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি চলাকালীন, আর সামনে দেখা যায়নি কুম্বলেকে। তখনই বিভাজনের পথ পরিষ্কার হয়ে যায়। গতকাল কুম্বলের এই সিদ্ধান্তের পর গাভাসকার বলেন, “যখন ক্রিকেট অ্যাডমিনিস্ট্রেটিভ কমিটি কুম্বলেকে থেকে যাওয়ার অনুরোধ করে, ভেবেছিলাম সব ঠিক হয়ে যাবে। কিন্তু অনিলও রাজি হয়ে যাবে ভেবেছিলাম। ওদের মধ্যে মতবিরোধ নিয়ে আমার কোনও আইডিয়া ছিল না। কিন্তু ওর মতো ক্রিকেটারের সঙ্গে এটা হওয়া উচিত হয়নি। যে কারণই থাক, এটা ভারতীয় ক্রিকেটের লজ্জার দিন।”
Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...