কেরলের ত্রাণ কাজে সক্রিয় ভূমিকা রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনের

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 43
    Shares

১১ আগস্ট থেকে কেরলে ত্রাণের কাজ শুরু করা হয়েছে। এই কাজে সক্রিয় ভূমিকা নিয়েছেন রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনের সন্ন্যাসীরা। রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনের ১১টি কেন্দ্রের মাধ্যমে কেরলে বন্যাকবলিত এলাকার মানুষদের জন্য ত্রাণকাজ শুরু হয়েছে। বেলুড় মঠে আয়োজিত এক সাংবাদিক বৈঠকে এ কথা জানান রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনের সাধারণ সম্পাদক স্বামী সুবীরানন্দ মহারাজ। তিনি জানান, রামকৃষ্ণ মিশনের চেন্নাই, কোয়েম্বাটর–‌সহ একাধিক কেন্দ্র থেকে স্বেচ্ছাসেবক ও চিকিৎসকদের কেরলে বন্যাবিধ্বস্ত এলাকায় পাঠানো হয়েছে। এছাড়া মিশনের কালাডি ও ত্রিশূর শাখা কেন্দ্রের বিদ্যালয় ভবনে ত্রাণশিবির খোলা হয়েছে। সেখানে ২০০০ হাজার গৃহহীন মানুষকে প্রতিদিন রান্নাকরা খাবার ও চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত বেলুড় মঠের মহারাজ, সন্ন্যাসী, স্বেচ্ছাসেবক ও চিকিৎসকরা ত্রাণকাজ চালিয়ে যাবেন বলে এদিন রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনের সাধারণ সম্পাদক স্বামী সুবীরানন্দ মহারাজ জানান। ১১টি সেন্টারের মাধ্যমে কেরলে বন্যায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের মধ্যে খাদ্যদ্রব্য, জামাকাপড়, ওষুধপত্র, বাসনপত্র ও পানীয় জল সরবরাহ করা হচ্ছে। ইতিমধ্যেই রামকৃষ্ণ মঠ ও মিশনের পক্ষ থেকে কেরলের প্রায় ১০ হাজার পরিবারের কাছে ত্রাণ পৌঁছে দেওয়া হয়েছে। এর জন্য খরচ করা হয়েছে প্রায় ৩৫ লাখ টাকা। কেরলের বন্যাকবলিত এলাকার মানুষদের জন্য আরও ৫০ লাখ টাকার ত্রাণসামগ্রী পাঠানো হচ্ছে মিশনের তরফে।

Image result for ramkrishna math kerala flood

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 43
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~