জি আই এস ও ‘রিমোর্ট সেন্সিং’ – একটি অনন্য কোর্স

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 7
    Shares

ওয়েব ডেস্কঃ   উকিল, ব্যাংক কর্মী, ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার বা শিক্ষক এই বাছাইয়ের কাজটা বড় একঘেয়ে লাগে। যদিও বর্তমানে প্রতিযোগিতার পরিবেশে শিক্ষা ও কাজের পরিধির মধ্যে ব্যাপক সমন্বয় ঘটেছে। আর তাই ক্রমশ শিক্ষার্থীদের সামনে খুলছে নতুন নতুন পেশাদারি কোর্সের সিংহদুয়ার। এমন কোনও বিষয় বা ভবিষ্যত প্রজন্মকে নিজের পছন্দ, ক্ষমতা, দক্ষতা অনুযায়ী অর্থনৈতিক সাবলম্বি করে তুলবে। এরকমই একটি জীবন দিশা হল জি আই এস ও রিমোর্ট সেন্সিং। এই কাজে গড়পড়তা দশটা-পাঁচটার একঘেয়েমি নয়, এ কাজে রয়েছে রোমাঞ্চ ও নতুন নতুন অভিজ্ঞতা সঞ্চয়ের সুযোগ। পাশাপাশি রোজগারও একেবারে মন্দ নয়।

জি আই এস ও রিমোর্ট সেন্সিং বিষয়টি কী?

এককথায় জিওগ্রাফিক ইনফরমেশন সিস্টেম (জি.আই.এস.) হল মূলত তথ্য অনুসন্ধানের কাজ। মহাকাশে কৃত্রিম উপগ্রহ পাঠানোর ফলে জিআইএস-এর গুরুত্ব বেড়েছে। শুধু তাই নয় এই ধরনের উপগ্রহে পৃথিবী পর্যবেক্ষণ যন্ত্র বসানোর ফলে সমুদ্রবিজ্ঞান ও আবহাওয়াবিদ্যার বিষয় দুটির পরিধিও ক্রমবর্ধমান।

অন্যদিকে জিওগ্রাফিক ইনফরমেশন সিস্টেম (জি.আই.এস.) এর কাজে রিমোর্ট সেন্সিং প্রযুক্তি যেমন ব্যাপকভাবে ব্যবহার হচ্ছে, তেমনই প্রাকৃতিক সম্পদ, পরিবেশ পর্যবেক্ষণ, আবহাওয়ার বিস্তারিত বিবরণ আমরা জানতে পারছি রিমোর্ট সেন্সিং প্রযুক্তিকে কাজে লাগিয়ে।

শিক্ষাগত যোগ্যতা

বিজ্ঞান বিভাগের ছাত্র-ছাত্রীরা এই বিষয়ে বিভিন্ন ধরনের কোর্স করতে পারেন। জিওগ্রাফি, জিওলজি, এগ্রিকালচার, আইটি, কম্পিউটার সায়েন্স, ইঞ্জিনিয়ারিং – এর শিক্ষার্থীরা এই বিষয়টি নিয়ে উচ্চশিক্ষা লাভ করতে পারেন। এম এস সি, এম টেক প্রভৃতি কোর্স রয়েছে এই বিষয়ে। এছাড়াও পিএইচডি, সার্টিফিকেট, ডিপ্লোমা কোর্স করারও সুযোগ রয়েছে।

 কাজের ধরন

একজন জিআইএস সিস্টেম ম্যানেজারকে তথ্য অনুসন্ধান বিশেষজ্ঞ বা আইটি স্পেশ্যালিস্ট হিসাবে কাজ করতে হয়। তিনি তার টিমের সঙ্গে সমন্বয় রক্ষা করার মধ্যে দিয়ে ভৌগোলিক তথ্য সন্ধান ও রক্ষা করেন। ভবিষ্যতে যারা এই বিষয় দুটি নিয়ে পড়ার কথা ভাবছেন তারা তথ্যপ্রযুক্তি শিল্প ছাড়াও ফ্লাড ডিফেন্স প্ল্যানিং, রোড ট্রাফিক ম্যানেজমেন্ট, স্বাস্থ্য বিভাগ প্রভৃতি ক্ষেত্রেও কাজ করতে পারেন। এই সিস্টেমের মাধ্যমে – কম্পিউটারে ভূ-মানচিত্র তৈরি, ভৌগোলিক তথ্যের সন্ধান, সেই তথ্যের সংরক্ষণ করা হয়, এছাড়াও আর্থ-সামাজিক পরিকল্পনা তৈরি করা হয়।

 কাজের সুযোগ

জি আই এস ও রিমোর্ট সেন্সিং – এ শিক্ষার্থীদের সরকারি, বেসরকারি এবং বিদেশেও কাজের প্রচুর সুযোগ রয়েছে।

 রাজ্য সরকার –

প্রত্যেক রাজ্যেই স্পেস অ্যাপ্লিকেশন সেন্টার থাকে। যেখানে জিআইএস – রিমোর্ট সেন্সিং-এর পোস্ট গ্র্যাজুয়েট ও পিএইচডি- এর ছাত্রছাত্রীরা সায়েন্সটিস্টি বা জুনিয়র সায়েন্সটিস্টি, টেকনিক্যাল অ্যাসিসটেন্ট, জিআইএস প্রোগ্রামার প্রভৃতি পদে কাজ করতে পারেন। এছাড়া গবেষণারও সুযোগ রয়েছে।

কেন্দ্রীয় সরকার

কেন্দ্রীয় সরকারের বিভিন্ন সংস্থা যেমন – স্পেস অ্যাপ্লিকেশন সেন্টার (SAC) আমেদাবাদ, ন্যাশেনাল রিমোট সেন্সিং এজেন্সি (NRSA) হায়দ্রাবাদ, রিজিওনাল রিমোট সেন্সিং অ্যাপ্লিকেশন সেন্টার (RR SAC) খড়গপুর, দেরাদুন, যোধপুর, নাগপুর, ব্যাঙ্গালোর, ISRO ব্যাঙ্গালোর সমস্তগুলিই ভারত সরকারের স্পেস বিভাগের অর্ন্তগত এবং এইসব স্থানে সায়েন্সটিস্ট রিসার্চ অ্যাসোসিয়েট, সিনিয়র রিসার্চ ফোলো প্রভৃতি পদের জন্য বিজ্ঞাপন দেওয়া হয়।

বেসরকারি ক্ষেত্রে-

যতদিন যাচ্ছে বেসরকারি ক্ষেত্রেও জিআইএস ও রিমোর্ট সেন্সিং-এ পেশাদারদের চাহিদা বাড়ছে। এই ক্ষেত্রের পেশাদাররা প্রোজেক্ট ম্যানেজার, সিনিয়র সিস্টেম এক্সিকিউটিভ, সিস্টেম অ্যানালিসিস্ট, জিআইএস ইঞ্জিনিয়ার, ইমেজ অ্যানালিস্ট, জিআইএস প্রোগ্রামার প্রভৃতি পদে যোগ দিয়ে নিজের কেরিয়ার শুরু করতে পারেন।  

 শিক্ষা প্রতিষ্ঠান-

রিমোট সেন্সিং এবং জিআইএস-এ স্নাতকোত্তর ডিগ্রি পাশ করার পর ছাত্র-ছাত্রীরা লেকচারার হিসেবে কাজ করতে পারেন। কিছু কিছু শিক্ষা সংস্থায় রিমোট সেন্সিং ও পিআইএস- এর কাজের জন্য সেন্টার রয়েছে যেখানে রিসার্চ স্কলার, রিসার্চ সায়েন্সটিস্ট অথবা অফিসার হিসাবেও কাজ শুরু করা যেতে পারে।

বিদেশে

সর্বোপরি রিমোট সেন্সিং এবং জিআইএস-এর পেশাদার বিদেশে যেমন – কানাডা, অস্ট্রেলিয়া, নেদারল্যান্ড, চীন, মালয়েশিয়া, জার্মানি, ফ্রান্স প্রভৃতি দেশের নানা সংস্থায় এই পেশার সঙ্গে যুক্ত হতে পারেন।

কোথায় পড়বেনঃ

১। ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব রিমোর্ট সেন্সিং (IIRS), দেরাদুন

ওয়েবসাইট – www.iirs.gov.in

২। ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজি (IIT), খড়গপুর, রুরকি, কানপুর

ওয়েবসাইট – www.iitkgp.ac.in, www.iitr.ac.in, www.iitk.ac.in

৩। ISRO, ব্যাঙ্গালোর

ওয়েবসাইট – www.isro.org

৪। জহরলাল নেহেরু টেকনিক্যাল ইউনিভার্সিটি (JNTU)

ওয়েবসাইট – www.jntu.ac.in

এছাড়াও পশ্চিমবঙ্গে বিদ্যাসাগর বিশ্ববিদ্যালয়ে রিমোর্ট সেন্সিংয়ের উপর দু-বছরের একটি কোর্স রয়েছে। স্নাতক স্তরের রেজাল্ট প্রকাশিত হওয়ার পর এই কোর্সে ভর্তি নেওয়া হয়।

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 7
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.