তিন তালাক অপরাধ বলে জানিয়ে দিল মন্ত্রিসভা, জেনে নিন কিছু তথ্য

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 32
    Shares

তিন তালাক আইন, সরকারিভাবে যার আরেক নাম- মুসলমান মহিলা বিল ২০১৭৷ সেই বিলের সংশোধনী পাশ করল কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা৷ গতমাসেই রাজ্যসভার সদস্যরা তিন তালাক বিল নিয়ে সিদ্ধান্তে আসতে ব্যর্থ হয়েছিল। তিনটি বিতর্কিত নিয়মের বদল হল এই বিলে৷ বলা হয়েছে,
১. একমাত্র কোনও মহিলা বা তাঁর ঘনিষ্ঠ আত্মীয় বা আত্মীয়াই তিন তালাক নিয়ে স্বামীর বিরুদ্ধে পুলিশের কাছে অভিযোগ দায়ের করতে পারবে। প্রসঙ্গত, এতদিন এই ইসলামিক আইন ‘তিন তালাক’-এর ফলে কোনও স্বামী তার স্ত্রী’কে তিনবার ‘তালাক’ বলে দিলে বা লিখে দিলেই সে তার স্ত্রীকে বিবাহবিচ্ছেদ দিতে পারত৷
২. স্বামী যদি কোনও আপোষে আসতে রাজি হয় তাহলে সংশ্লিষ্ট মহিলা তাঁর স্বামীর বিরুদ্ধে করা মামলাটি তুলে নিতে পারবেন।
৩. ধৃত স্বামীকে আদালত একমাত্র জামিন দিতে পারবে তার বিবাহবিচ্ছিন্না স্ত্রীর বয়ান নেওয়ার পরেই। তার আগে কোনওভাবেই নয়।
মুসলমান মহিলা (বিবাহ অধিকার আইন) বিল ২০১৭ লোকসভাতে পাশ হয়ে গেলেও রাজ্যসভায় এসে আটকে গিয়েছিল। কংগ্রেস এবং অন্যান্য বিরোধী দলের সমর্থন দরকার ছিল এই বিতর্কিত তিন তালাক বিল নিয়ে। এবার থেকে এই নতুন আইনের ফলে তিন তালাক একটি অপরাধ হিসেবে গণ্য হবে। এর সঙ্গে কেউ যুক্ত থাকলে তার তিন বছরের সশ্রম কারাদণ্ড ও জরিমানা ভোগ করতে হবে। এই নতুন সংশোধনী বিলে তিন তালাকের মামলা করতে পারবে একমাত্র সংশ্লিষ্ট মহিলা অথবা তাঁর কোনও ঘনিষ্ঠ আত্মীয় বা আত্মীয়া। স্বামী আপোষে রাজি থাকলে মামলা তুলে নেওয়া যাবে। মামলায় স্বামীকে জামিন দেওয়া হবে কি না, তার বিচার আদালত করবে স্ত্রীর বয়ান শোনার পরেই।

বলা হয়েছে পুলিশ জামিন দিতে পারবে না। জামিন দেওয়ার অধিকার একমাত্র আদালতের বিচারপতির। এই নতুন সংশোধিত আইনে ‘নিকাহ হালালা’র উল্লেখও রয়েছে, যেখানে সংশ্লিষ্ট মহিলা ডিভোর্সের পরে অন্য কাউকে বিয়ে করতে পারেন অথবা ইচ্ছে হলে নিজের স্বামীর কাছে ফিরে গিয়ে তাকে পুনরায় বিয়ে করতে পারেন।

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 32
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~