মার্লিন গ্রুপ এবং ফুটবল নেক্সট ফাউন্ডেশনের অভিনব উদ্যোগ….

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 28
    Shares

আগামী ২৮ সেপ্টেম্বর মোহন বাগান লেজেন্ড বনাম বার্সেলোনা লেজেন্ডের মধ্যে ম্যাচটি সংগঠনের কাজ চলছে জোরকদমে। ‘ফুটবল নেক্সট ফাউন্ডেশন’  (এফএনএম) কৌশিক মৌলিকের নেতৃত্বে ২৭ এবং ২৮ সেপ্টেম্বর সল্টলেক স্টেডিয়ামের প্রয়োজনীয় অনুমতি নিয়ে  নিয়েছে। সল্টলেক পুলিস কমিশনারেট ম্যাচ সংগঠনের অনুমতি দিয়েছে। ম্যাচের মূল  স্পনসর মার্লিন গ্রুপের তরফে এমডি শাকেত মোহতা  সাংবাদিক সম্মেলনে ঘোষণা করেন “লেজেন্ডদের ম্যাচটি নিয়ে জনমানষে প্রচারের উদ্দেশ্যে জন্য বাংলার ১০০ জন ফুটবলপ্রেমীকে ২৩শে সেপ্টেম্বর ন্যু – ক্যাম্পে বার্সেলোনা-জিরোনা (ক‍্যাতালুনিয়ান ডার্বি) লা লিগার ম্যাচ দেখাতে নিয়ে যাওয়া হবে।

১০০ জন ফুটবলপ্রেমীদের গ্রুপে  থাকবেন ১৫ জন প্রতিশ্রুতিমান ফুটবলার এবং গ্রুপটিকে নেতৃত্ব দেবেন মোহনবাগান মিডফিল্ডার মেহেতাব হোসেন। মূলত দার্জিলিং, জঙ্গলমহল, সুন্দরবনের সম্ভাবনাময় ফুটবলারদের নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছি আমরা। যাতে বিদেশে বসে খেলা দেখার স্বপ্নকে ওরা বাস্তবে ছুঁয়ে দেখতে পারেন। ফিরে এসে তারাও যেন আশেপাশের মানুষজনকে ফুটবল খেলতে উদ্বুদ্ধ করতে পারেন যাতে ভারতীয় ফুটবলে ভবিষ্যতে এক নতুন দিশার দিকে এগিয়ে যায়। এছাড়াও অন লাইন ক্যুইজ, ফেসবুক প্রোমোশন, ক্লাবের ফুটবল প্রতিযোগিতার মাধ্যমে  বাকিদের বেছে নেব।”

মেহতাব জানালেন “দেড় দশক হল ফুটবল খেলছি। অনেক দেশেই ফুটবলের সূত্রে গেছি। স্পেনে কোনও দিন যাওয়া হয়নি। লা লিগায় ন্যু ক্যাম্পে বার্সেলোনার খেলা দেখার সুযোগ পাওয়া বড় ব্যাপার।” মোহনবাগান ফুটবল সচিব বাবুন ব‍্যানার্জি জানান “মেহতাবের রিলিজের ব্যাপারটি কর্মসমিতির সদস্যরা মিলে ঠিক করবেন। মোহন বাগান লেজেন্ড দলে কারা খেলবেন তা ঠিক হবে কমিটির সভাতেই।লিগ শেষ হলে শিলটন পাল, মেহতাব হোসেনের সঙ্গে বিদেশিদের খেলানো যায় কিনা তা ভেবে দেখা হবে। অলোক দাস,অমিত দাস, বাসুদেব মণ্ডল, প্রশান্ত চক্রবর্তীরা সন্দীপ নন্দী, দেবজিৎ ঘোষের মতো ফিট প্রাক্তনীদের দলে থাকার সম্ভাবনা সবথেকে বেশি। মোহন বাগান লেজেন্ড  দুই কোচ শঙ্করলাল চক্রবর্তী ও অর্পণ দে।,শতবর্ষের অধিনায়ক শিশির ঘোষও কোন না কোনভাবে যুক্ত থাকবেনই।

কর্মসমিতি দলের  কোচ হিসাবে সুব্রত ভট্টাচার্য- প্রশান্ত ব্যানার্জির নাম প্রস্তাব করেছে।” এদিনের শারীরিক অসুস্থতার কারণে অনুপস্থিত সভায় মোহন বাগান সচিব অঞ্জন মিত্রের ভিডিও বার্তা দেখানো হয়। ইভেন্ট ম্যানেজমেন্ট কোম্পানি যারা এই লেজেন্ড ম‍্যাচের আয়োজন করেছেন তাদের তরফে কৌশিক মৌলিক জানান ” সিএসআর অ‍্যাক্টিভিটিকে আমরা নতুনভাবে উপস্থাপন করতে চাই যার অর্থ কর্পোরেট স্পোর্টস রেসপনসিবিলিটি। আমাদের এই উদ্যোগকে সর্বোতভাবে সাহায্য করতে এগিয়ে এসে মার্লিন গ্রুপ এবং তাদের কর্নধার শাকেত মোহতা। ফুটবলকে গ্রামে গন্জ্ঞে আরও জনপ্রিয় করে, আরও বেশি ছেলে মেয়েকে ভারতের হয়ে ফুটবল খেলতে অনুপ্রাণিত করে বিশ্বের দরবারে ভারতকে ‘ফুটবলিং পাওয়ার হাউস’ করে তোলাই মার্লিন এবং এফএনএমের কর্পোরেট স্পোর্টস রেসপনসিবিলিটির (সিএসআর) প্রথম এবং প্রধান লক্ষ্য।”

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 28
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~