দু দিন ধরে ব্যাঙ্ক ধর্মঘট, আটকে যেতে পারে বেতন …

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 23
    Shares

একদিকে জ্বলানির মূল্যবৃদ্ধি নিয়ে জেরবার মানুষ, অন্যদিকে বেতন বৃদ্ধিসহ অন্যান্য দাবিতে সরকারি ও বেসরকারি ব্যাংকের ধর্মঘট শুরু৷ বুধবার

সকাল ছটা থেকে ৪৮ ঘণ্টার ধর্মঘট শুরু হয়েছে৷ ফলে, খোলেনি বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি ব্যাংক এবং সেসব ব্যাংকের এটিএম বুথ। এতে বেড়েছে গ্রাহকদের ভোগান্তি। শুক্রবার ব্যাঙ্ক খুলবে সাধারণ মানুষের জন্য ৷

ইন্ডিয়ান ব্যাংক অ্যাসোসিয়েশন বা আইবিএ গত ৩১ মার্চ তাদের ২০১২ সালের পর ২ শতাংশ হারে বেতন বৃদ্ধির ঘোষণা করে৷ এতে সন্তুষ্ট হতে পারেনি

‘ইন্ডিয়া ব্যাংক এমপ্লয়িজ অ্যাসোসিয়েশন’। এই ঘোষণায় তারা ক্ষুব্ধ হয়ে ব্যাংক ধর্মঘটের ডাক দেয় তারা৷

তাদের বক্তব্য, শেষবার বেতন বাড়ানো হয়েছিল ১৫ শতাংশ। এবার মাত্র ২ শতাংশ মানা যায় না। বিষয়টি আরও জটিল হয়, আইবিএ স্কেল ৪ থেকে স্কেল ৭ স্তরের অফিসারদের বেতন বৃদ্ধির বিষয়টি আলাদা করে ঠিক করার প্রস্তাব দেওয়ায়। কর্মী সংগঠনগুলি তা মানতে নারাজ।
সোমবার অতিরিক্ত মুখ্য শ্রম কমিশনার ইউএফবিইউ, আইবিএ এবং কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রকের অফিসারদের নিয়ে বৈঠকে বসেছিল একটি রফায় পৌঁছনোর জন্য, যাতে ধর্মঘট এড়ানো যায়। কাজ হয়নি। আইবিএ–‌র বক্তব্য, ব্যাঙ্কগুলির আর্থিক অবস্থা ভাল নয়। অনাদায়ী ঋণের চাপে ধুঁকছে। এখন এর বেশি বেতন বাড়ানো যাবে না। স্কেল ৪ থেকে স্কেল ৭ স্তরের অফিসারদের বেতনবৃদ্ধির বিষয়টিকে আলাদা না করার জন্য শ্রম কমিশনের তরফেও অনুরোধ জানানো হয়। কিন্তু কোনও ঐকমত্যে পৌঁছনো যায়নি। অনিবার্য হয়ে পড়ে ধর্মঘট।
এই ধর্মঘটের ফলে রাজ্যের সরকারি ও বেসরকারি ব্যাংকের ৯ হাজার ৮০০টি শাখার কাজ স্তব্ধ৷ বন্ধ হয়ে গেছে ২১ হাজার এটিএম বুথের কাজও৷

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 23
    Shares

খবর ২৪ ঘন্টা

খবর এক নজরে…

No comments found