কাশ্মীর থেকে মসুল, মোদীর ভ্রান্ত বিদেশনীতির মাসুল গুনছে দেশ

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 1.2K
    Shares

ওয়েব ডেস্কঃ  মসুল থেকে কফিনবন্দি দেহ ফিরল ৩৮ ভারতীয়র৷ কফিনগুলিকে নিয়ে এলেন বিদেশমন্ত্রকের প্রতিমন্ত্রী ভি কে সিং৷ সোমবারই দেহাবশেষ নিয়ে ভারতীয় বায়ুসেনার বিশেষ বিমানে দেশের মাটিতে পা রাখেন তিনি৷ এদিন তিনি অমৃতসরে নামেন৷ আইএস জঙ্গিদের গুলিতে নিহত ভারতীয়দের মরদেহ দেশে ফিরিয়ে আনতে রবিবার ইরাকের উদ্দেশে পাড়ি দেন ভি কে সিং৷ যাওয়ার সময় তিনি বলেছিলেন, শহিদের মর্যাদায় দেহগুলি তাদের পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হবে৷

প্রসঙ্গত ২০১৪ সালের জুন মাসে মসুলে কাজ করতে গিয়ে নিখোঁজ হয়ে যান ৪০ জন ভারতীয়৷ তাদের মধ্যে ৩৯ জনকে গুলি করে খুন করে আইএস জঙ্গিরা৷ জঙ্গিদের ডেরা থেকে কেবলমাত্র একজন বেঁচে ফিরে আসে৷ প্রথম থেকেই সে দাবি জানায় বাকিদের খুন করেছে জঙ্গিরা৷ সেই সময় থেকে বারংবার তাদের পরিজনের আকুতি ও চোখের জল মন গলাতে পারেনি মোদী সরকারের। আজ ২০১৮ সালের ২০ মার্চ রাজ্যসভায় বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ আনুষ্ঠানিকভাবে সেই দাবিতেই সিলমোহর দেন

Image result for mosul indian bodies

কিন্তু শুধু মসুল নয়, ভারতীয় মরছেন দেশের মাটিতেও শ্রীনগর প্রতিদিন রক্তাক্ত হচ্ছে নাগরিক রক্তে৷ সীমান্তে প্রতিদিন মারা যাচ্ছে সেনা৷ শহিদ মর্যাদায় তাদের শেষকৃত্য সম্পন্ন করলেই কি দায় এড়াতে পারে মোদী সরকার? পারে না৷ কিন্তু তাই করা হচ্ছে৷ সীমান্তে নিজেদের ব্যার্থতা ঢাকতে দেশের মানুষের নজর ঘুরিযে দেওয়া হচ্ছে দেশের অভ্যন্তরে৷

মোদী সরকারের আমলেই এসব ঘটনা ঘটছে যা আগে কখনো ভারতে ঘটেনি বলে অভিযোগ করছে ওয়াকিবহাল মহল৷ মোদির কট্টর হিন্দুত্ববাদকেই এক্ষেত্রে প্রধান কারন হিসেবে দেখছেন অনেকেই। একটি সমীক্ষা বলছে ২০১৩ সালে ভারতে ধর্মীয় দাঙ্গায় ৮২ জন মারা গিয়েছিল। কেন্দ্রীয় সরকারের তথ্য অনুযায়ী, ভারতে মোদী সরকার ক্ষমতায় আসার পর সাম্প্রদায়িক হিংসার ঘটনা ঘটে ২৮৭ টি৷ যেখানে শুধুমাত্র গত বছরই এর সংখ্যা ছিল ২৩২ টি। তাহলে কি মোদি সরকারের ভারত কি আরও একটি সাম্প্রদায়িক হিংসার ইতিহাস তৈরি করবে? এই প্রশ্ন এখন সারা দেশের৷

Image result for communal riots in india

এবার দেখা যাক মোদীর বিদেশনীতি। বিদেশনীতির ক্ষেত্রে ভারত এক এক করে বন্ধু হারাচ্ছে। নির্জোট আন্দোলনকে কার্যত মোদী তুলে দিয়েছেন। পাকিস্তানের সঙ্গে দীর্ঘমেয়াদি বিরোধ জিইয়ে রাখার জন্যই তিনি নানা কৌশল অবলম্বন করে গত বছর সার্জিক্যাল স্ট্রাইক করেছিলেন।

গুরুত্বপূর্ণ জায়গায় আরএসএস আদর্শে বিশ্বাসী লোকদের বসিয়েছেন। উত্তরাখণ্ডের ব্রাহ্মণ পরিবারের বিপিন রাওয়াতকে ভারতের সামরিক প্রধান পদে বসিয়েছেন। সম্প্রতি রাওয়াতের একটি মন্তব্যকে কেন্দ্র করে দেশে রাজনৈতিক ঝড় উঠেছে। তিনি বলেছেন, পাকিস্তান যদি দুই ভারতীয় জওয়ানকে হত্যা করে, তাহলে ভারত ২০০ পাকিস্তানিকে মারবে। এই ভাবমূর্তি তো ভারতের নয়! বিস্ময় বাড়ছে৷

Image result for modi speech

২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনের আগে ফের নতুন জিগির উঠছে৷ দেশপ্রেম৷ ভোটের বাক্সে ফসল তোলার লক্ষ্যেই তিনি পাকিস্তানের সঙ্গে ছোটখাটো যুদ্ধের দিকে যেতে পারেন বলে মনে করছেন সমর ও প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞরা। তেমন পরিস্থিতি তৈরি হলে তিনি একদিকে হিন্দু ভোট যেমন নিশ্চিত করে ফেলতে পারবেন, তেমনই দেশের সংখ্যালঘু মুসলিমদের কাছেও একটা বার্তা পাঠাতে পারবেন।

ইতিমধ্যে জাতিপুঞ্জের একটি রিপোর্টের আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে ভারতের নাক কাটা গেছে। জাতিপুঞ্জের ইউনিভার্সাল পিরিয়ডিক রিভিউ রিপোর্টে ধর্মীয় অসহিষ্ণুতা থেকে শুরু করে, নারী নির্যাতন, লিঙ্গবৈষম্য এবং বিশেষ করে কাশ্মীরে মানবাধিকার লঙ্ঘনের একের পর এক ঘটনায় ভারতের অপদার্থতার কথা বলা হয়েছে

চার বছর পরপর প্রকাশ হওয়া এই রিপোর্টে যে সময়ের উল্লেখ করা হয়েছে, তার মধ্যে তিন বছরই ভারতে ছিল নরেন্দ্র মোদীর শাসন। জেনেভায় প্রকাশিত ওই রিপোর্টকে হাতিয়ার করে পাকিস্তান ইতিমধ্যেই আন্তর্জাতিক মঞ্চে ভারতকে নিশানা করতে শুরু করেছে।

২০১৭ সালে উত্তর প্রদেশের বিধানসভা নির্বাচনের আগে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গার পরই প্রশ্ন উঠেছিল, ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বিজেপির পরিকল্পনা কি বাস্তবায়ন শুরু হয়ে গেছে? ওই সময় এশিয়া টাইমস-এ ভারতীয় সাংবাদিক আদিত্য সিনহা লিখেছিলেন, বিজেপির নির্বাচন জয়ের মন্ত্র হতে যাচ্ছে– ‘গাই (গরু), গঙ্গা ও দাঙ্গা’।

Image result for modi with nirav modi

মোদির চার বছরের শাসনে গোটা দেশ এক ভয়ঙ্কর পরিস্থিতির সম্মুখীন। একটাও প্রতিশ্রুতি রাখতে পারেননি। শুধুমাত্র দেশের মানুষের উপর চাপিয়ে দেওয়া নিয়মের বিফল পরীক্ষা-নিরীক্ষা, সে নোটবন্দি, জিএসটি -ই  হোক বা আধার। নূন্যতম অধিকারও খর্ব করা হচ্ছে সাধারণ নাগরিকদের প্রতি মুহুর্তে, অন্যদিকে “সামনে দিয়ে ছুঁচ না গলে, “মেহুল ভাই”, মালিয়া, নীরবেরা নীরবে পালাতে পারেন অন্যদেশে । নিরাপত্তাহীনতার ভয় মানুষকে গ্রাস করতে শুরু করেছে। শেষ কোথায়, তার অপেক্ষায় আমরা৷

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 1.2K
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.