ছত্তিসগঢ়ে ১ লক্ষ ৭০ হাজার হেক্টর বনভূমি সাফ করে খনি তৈরির ছাড়পত্র আদানি গোষ্ঠীকে

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 798
    Shares

ফের আদিবাসী বিরোধী পদক্ষেপের অভিযোগ উঠল মোদী সরকারের বিরুদ্ধে। কাঠগড়ায় মোদী ঘনিষ্ঠ শিল্পগোষ্ঠী আদানিরা।
ছত্তিসগঢ়ের হাসদেও আরান্ড বনাঞ্চলে কয়লা খনি গড়তে পরিবেশ মন্ত্রকের ছাড়পত্র পেয়ে গেল আদানি গোষ্ঠী। যদিও অরণ্য সম্পদের প্রাচুর্যের কারণে ২০০৯ সালে এই অঞ্চলে খনি কিংবা অন্য কোনও প্রকল্প তৈরিতে বিধিনিষেধ আরোপ করেছিল পরিবেশ মন্ত্রক।
১ লক্ষ ৭০ হাজার হেক্টর জুড়ে বিস্তৃত ছত্তিসগঢ়ের হাসদেও আরান্ড মধ্য ভারতের সবচেয়ে গভীর জঙ্গল। প্রাকৃতিক ও খনিজ সম্পদে ঠাঁসা এই বনভূমির ৩০ টি কয়লা ব্লকের একটি পারসা। এই পারসা খনি এতদিন ছিল রাজস্থান রাজ্য বিদ্যুৎ উৎপাদন নিগম লিমিটেডের তত্ত্বাবধানে। কিন্তু এখন থেকে বছরে ৫ মেট্রিক টন কয়লা উত্তোলনের ক্ষমতা সম্পন্ন এই খনি চালাবে আদানি গোষ্ঠীর রাজস্থান কোলিয়ারিস লিমিটেড। ফেব্রুয়ারিতেই এই সংক্রান্ত প্রথম দফার ছাড়পত্র পেয়েছে আদানি গোষ্ঠী।
পারসার খোলামুখ খনি থেকে কয়লা উত্তোলন করতে গেলে প্রথমেই এলাকার সবুজ নিধন করতে হবে। তারপর মাটির আস্তরণ সম্পূর্ণ সরিয়ে কয়লা তোলার কাজ করতে হবে। এই বিপুল পরিমাণ অরণ্য নিধন নিয়েই প্রশ্ন তুলছেন পরিবেশবিদরা। এ বছর ২১ শে ফেব্রুয়ারি ছাড়পত্র দেওয়ার আগে, কেন্দ্রীয় পরিবেশ মন্ত্রকের এক্সপার্ট অ্যাপ্রাইজাল কমিটির (ইএসি) কাছে এই প্রকল্প খতিয়ে দেখার আবেদন জমা পড়েছিল মোট তিনবার। কখনও রাজ্য আদিবাসী ওয়েলফেয়ার বিভাগের পাঠানো রিপোর্টে গ্রামসভার মতামতকে অগ্রাহ্য করার অভিযোগ ওঠে, আবার কখনও ওই এলাকা এলিফেন্ট করিডোরের মধ্যে হওয়ায় আপত্তি তুলেছিল রাজ্য বন্যপ্রাণী বিভাগ। সব প্রতিবন্ধকতা কাটিয়ে শেষ পর্যন্ত ছাড়পত্র কী করে পেল আদানি গোষ্ঠী, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছেন পরিবেশবিদরা।

Facebook Comments


শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 798
    Shares

খবর ২৪ ঘন্টা

খবর এক নজরে…

No comments found