“টাকার আকাল” নাকি ধর্ষণকান্ড থেকে নজর ঘোরাতেই কেন্দ্রীয় কৌশল ? উঠছে প্রশ্ন…

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 2.1K
    Shares

ওয়েব ডেস্ক~ সমস্যাটা কি ইচ্ছাকৃত? একসময় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় রাজ্যে ম্যানমেড বন্যার তত্ত্ব তুলেছিলেন৷ এই আকালও কি ‘ম্যানমেড’? বা বলা ভালো বিজেপি মেড? দেশজুড়ে টাকার আাকালে সেই প্রশ্ন ইতিমধ্যেই তুলতে শুরু করেছে বিরোধীরা৷

যেন নীরবে আরও একটি বিমুদ্রাকরণের কবলে পড়ে গিয়েছে দেশ। এই মুহূর্তে দেশের বহু এটিএম টাকাহীন হয়ে পড়েছে। সংবাদসংস্থা এএনআই সূত্রে খবর টাকাহীন এটিএমের সমস্যা সব থেকে বেশি দেখা যাচ্ছে কর্নাটক, মহারাষ্ট্র, অন্ধ্রপ্রদেশ, রাজস্থান, উত্তরপ্রদেশ, মধ্যপ্রদেশ এবং তেলেঙ্গানায়। তবে কিছুটা কম সমস্যায় পড়তে হচ্ছে দিল্লিকে৷

সমস্যাটা বেশকিছুদিন ধরেই তৈরি হয়েছিল৷ গত বৃহস্পতিবারই এই ব্যাপারে আরবিআইয়ের সঙ্গে বৈঠক করেন অর্থমন্ত্রকের প্রতিনিধিরা। এখানে চক্রান্ত হয়েছে বলে মনে করছেন মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিংহ চৌহান। অন্য দিকে এটিএমকে টাকাহীন ইচ্ছে করেই করা হচ্ছে কি না সে ব্যাপারে কেন্দ্রকে প্রশ্ন করেছে কংগ্রেস।

ইতিমধ্যেই কাঠুয়া ও উন্নাও গণধর্ষণের ঘটনায় দেশ জোড়া প্রতিবাদ বিক্ষোভে চরম অস্বস্তিতে সরকার৷ বিজেপির সম্ভবত এই ঘটনা থেকে দৃষ্টি ফেরাতেই টাকার আকাল ঘটাচ্ছে বলে মনে করছেন রাজনীতিকদের একাংশ৷ এমনিতেই ধর্মের মোড়কে সন্ত্রাসের ঘটনা বা ধর্মীয় মেরুকরণের রাজনীতিতে চোখ সয়ে গিয়েছে সাধারণের৷ তবে প্রতিনিয়ত বিজেপির অস্তিত্ব জানান দেওয়ার উগ্র চেষ্টায় এখন হাঁসফাঁস করছেন মানুষ৷ তারই একটা এই টাকার আকাল৷

Image result for atm cash crunch

সকাল থেকই এটিএম গুলির বাইরে লম্বা লাইন৷ ঠিক যেন নোটবাতিলের সেই দিনগুলো৷ ফলে আতঙ্ক ক্রমশ ছড়াচ্ছে৷ ব্যাংকের এক আধিকারিক জানাচ্ছেন, রিজার্ভ ব্যাংকের তরফে নগদের যোগান কমে যাওয়ার কারণেই এই সমস্যা দেখা দিয়েছে৷ এই সমস্যার সমাধান করার চেষ্টা করা হচ্ছে৷

বিজেপির বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন খোদ বিজেপি রাজ্যেরই মন্ত্রী৷ মধ্যপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান বলছেন বাজার থেকে দুহাজারের নোট গায়েব হয়ে যাচ্ছে৷ এই বিষয়ে তিনি কেন্দ্রীয় সরকারের সঙ্গে কথা বলেছেন বলেও জানিয়েছেন৷

Image result for atm cash crunch

মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, রাজ্য সরকার এই সমস্যার কড়া মোকাবিলা করবে৷ মধ্য প্রদেশের রাজাপুরে চাষিদের উদ্দেশ্যে মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান বলেন নোটবন্দীর আগে ১৫ লক্ষ কোটি টাকা নগদ ঘুরত বাজারে৷ নোটবন্দী প্রক্রিয়ার পরে তা বেড়ে ১৬ লক্ষ ৫০ হাজার কোটি হয়ে গিয়েছে৷ কিন্তু বাজার থেকে ২০০০ টাকার নোট উধাও হয়ে যাচ্ছে৷ মুখ্যমন্ত্রী রাজ্যের বেশ কয়েকটি এটিএমে টাকার কমতির খবরের কথাও উল্লেখ করেন৷

তবে পর্যাপ্ত টাকা আছে দেশে। চিন্তার কোনও কারণনি। এই সংকট সাময়িক। জানিয়ে দিয়েছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি। মঙ্গলবার ট্যুইট করে দেশবাসীকে আশ্বস্ত করেছেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী। কিন্তু কতদিনে এই সংকট মিটবে তা সুনিশ্চিত করে কিছু বলেননি তিনি।

Image result for atm cash crunch jaitley tweet

বিরোধীরা অবশ্য বলছে, নোটবাতিলের পর এই অর্থ সঙ্কট সবথেকে বড় কেলেঙ্কারি। লালুপ্রসাদ যাদবের ছেলে তেজস্বী দাবি করেছেন, গোটা ঘটনার তদন্ত করতে হবে। তদন্ত হলে বহু নামী দামী মুখ ফেঁসে যাবেন বলে তাঁর দাবি।

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 2.1K
    Shares

Sponsored~

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.