পর্যটনে জোর, ঢেলে সাজছে টয় ট্রেন

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 77
    Shares

নিজস্ব প্রতিনিধি~ পর্যটনৈর অসীম গুরুত্ব এবং এরমধ্যে দিয়ে রাজকোষের  আয় বৃদ্ধির গুরুত্ব আজ বুঝতে পেরেছে সব সরকারই।  মমতা ব্যানার্জির সরকার ও ব্যতিক্রম নয়।
হেরিটেজ তকমা পাওয়া দার্জিলিঙের টয় ট্রেন পর্যটকদের কাছে  আকর্ষণের  অন্যতম কেন্দ্রবিন্দু। তাই রাজ্য সরকারের অনুরোধে এবং তাদের সহযোগিতায় এই পরিষেবাকে আরও ঢেলে সাজানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে রেল বোর্ড। নতুন পর্যটন প্যাকেজ তৈরির নির্দেশ ও দিয়েছে রেলবোর্ড। স্থানীয় শিল্পকলা, সংস্কৃতি, স্থানীয় খাবার সবই সেই প্যাকেজের মধ্যে আনার কথা ভাবা হচ্ছে।

Image result for darjeeling

নির্দেশিকায় হেরিটেজ রেলওয়ের বাড়তি দায়িত্ব নিতে বলা হয়েছে ডিভিশনের ডিআরএমকে। টয় ট্রেনের দায়িত্ব একজন ডাইরেক্টরের উপরে ছিল।

১৮৮১ সালে দার্জিলিংয়ে চালু হয় টয় ট্রেন। ১৯৯৯-তে ইউনেস্কোর ওয়ার্ল্ড হেরিটেজের মর্যাদা দেওয়া তাকে। নানা সময়ে সমস্যায় পড়েছে এই রেল লাইন, অনেকসময়ই ধস নেমে লাইন বন্ধ হয়ে গেছে। ২০১৬ থেকে ধীরে ধীরে শুরু হয়। পাহাড়ে আন্দোলনের জেরেও প্রভাব পড়ে টয় ট্রেন পরিষেবায়। ২০১৭-র জুন থেকে টানা ১০৪ দিন বন্‌ধ চলে পাহাড়ে, ধাক্কা খায় পর্যটন, যার প্রভাব পড়ে টয় ট্রেনের উপরেও। গয়াবাড়ি, ঘুম, সোনাদা এবং দার্জিলিং স্টেশনে ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগের ঘটনাও ঘটে।

Image result for darjeeling

নতুন নির্দেশিকায় ডিআরএমকে  জয়রাইড, হলিডে স্পেশ্যালের মত ট্রেন নামিয়ে যাত্রী সংখ্যা বাড়াতে বলা হয়েছে। টয়ট্রেনে দার্জিলিং-ঘুম জয়রাইড, এনজেপি-তিনধরিয়া জঙ্গল সাফারি চালু হয়েছে। সম্প্রতি কার্শিয়াং-মহানদী স্টেশনের মধ্যে ঘোষণা হয়েছে ‘হিমালয়া অন হুইল’ জয় রাইড। টয়ট্রেনকে ঢেলে সাজিয়ে সরকারের রাজকোষে আয় বৃদ্ধির পাশাপাশি জোড় দেওয়া হচ্ছে পর্যটনেও।

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 77
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.