প্রশান্ত মহাসাগরের বুকে আছড়ে পড়ল চিনা স্পেস ক্রাফটের ধ্বংসাবশেষ~

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 2.6K
    Shares

ওয়েব ডেস্ক~ আশঙ্কা করা হচ্ছিল বড়সড় ক্ষয়ক্ষতির৷ তবে সে আশঙ্কা সত্যি হয়নি৷ ইউরোপীয় ও চিনা মহাকাশ বিজ্ঞানীরা আগেই জানিয়েছিলেন সোমবার নাগাদ চিনা মহাকাশ কেন্দ্রের একটা অংশ ভেঙে পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলে প্রবেশ করবে।

চিন জানিয়েছিল, স্থানীয় সময় সোমবার সকালে তিয়ানগং-১ স্পেস ল্যাবটির একটি অংশ নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলে ঢুকে পড়বে। ২০১১ সালে মহাকাশ কেন্দ্রটি কক্ষপথে প্রবেশ করে৷ প্রায় সাত বছর পর এটি ধ্বংস হয়ে পৃথিবীর দিকে ধেয়ে আসছে। এমনকি ভারতের পড়ার সম্ভাবনাও ছিল এটির।

Image result for tiangong 1

সেই অংশই দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগরে এসে পড়েছে সোমবার৷ মানুষের বাসস্থান থেকে অনেক দূরে আছড়ে পড়ায় সেইভাবে কোনও ক্ষয়ক্ষতি হয়নি৷ চিনের মহাকাশবিজ্ঞানীরা জানিয়েছেন ২০২২ সাল নাগাদ তারা মানুষের বসবাসের উপযোগী একটি মহাকাশ কেন্দ্র মহাশূন্যে পাঠাতে চান৷ তিয়ানগং-১ ছিলো তারই পূর্ব প্রস্তুতি।

Image result for tiangong 1

চিনের মহাকাশ বিজ্ঞানীরা জানিয়েছিলেন বড় ধরণের কোনও ক্ষয়ক্ষতি হবে না৷ খুব বেশি হলে আকাশে উল্কাবৃষ্টির মত দৃশ্য চোখে পড়তে পারে। বেশ কয়েকবার এটি মানুষ সহ এবং মানুষ ছাড়াও মহাকাশ পরিভ্রমণ করেছে। ২০১২ সালে চিনের নভশ্চর লিউ ইয়াংকে নিয়ে মহাকাশ পাড়ি দেয় এই স্পেস ক্রাফট। কয়েক মাসের পর্যবেক্ষণের পর ২০১৬ সালে চিনা আধিকারিকরা জানান, মহাকাশ স্টেশনটির নিয়ন্ত্রণ হারিয়েছেন তারা। সেসময় তারা জানায় ২০১৭ বা ২০১৮ সাল নাগাদ এটি পৃথিবীতে আছড়ে পড়তে পারে।

২০১৬ সালে মার্চে তিয়ানগং ১ এর সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হওয়ার পর থেকেই তিয়ানগং -২ নামের আরেকটি স্পেস স্টেশন নির্মাণ শুরু করে চিন। সম্প্রতি এটি মহাকাশে পাঠানো হয়েছে।

Image result for tiangong 2

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 2.6K
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.