পাকিস্তানে টাকা পাচারকারী জাল লটারি চক্রের পর্দা ফাঁস, সিআইডি গ্রেফতার করল “প্রাণ ইন্ডিয়ার” দুই শীর্ষ কর্তা কে

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 19
    Shares

লটারির নাম করে প্রতারণা করে, সেই টাকা হাওলার নাম করে পাঠানো হতো পাকিস্তানে, বাংলাদেশ ভিত্তিক ,একটি আন্তর্জাতিক ফলজাত খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ সংস্থার নাম জড়িয়েছে, গ্রেপ্তার করা হয়েছে ওই সংস্থার এক ডিরেক্টার ও পদস্থ কর্মীকে ।পাকিস্তানের সঙ্গে তাদের কিভাবে যোগাযোগ তা এখনো স্পষ্ট হয়নি, ,তবে এর পেছনে অনেক বড় চক্র রয়েছে তা নিশ্চিত। পাক গুপ্তচর সংস্থা আই এস আই ও দাউদ ইব্রাহিমের যোগাযোগ আছে কিনা তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। অসংখ্য মানুষ এই জালিয়াতির ফাঁদে পা দিয়েছেন, এবং তার মাধ্যম ছিল মোবাইল ফোনের হোয়াটসঅ্যাপ কল। পাকিস্তান এজেন্টের সঙ্গে হাত মিলিয়ে দেশজুড়ে জাল লটারি চক্র চালানো হচ্ছে, এই অভিযোগ করা হয়েছে পূর্ব মেদিনীপুরের এগ্রা থানায়, একটি মামলার ভিত্তিতে রাজেশ ঘোষ  ও বিধান কীর্তনীয়া এই দুই ব্যক্তি কে বাংলাদেশের খাদ্য প্রক্রিয়াকরণ সংস্থার, ভারতীয় শাখার দুই কর্তা কে গ্রেফতার করল সিআইডি।

নিউ টাউন চিনার পার্ক অফিস থেকে, হাওয়ালার মাধ্যমে মধ্য প্রাচ্য ও পাকিস্তানে পাঠানো হচ্ছে, এই বিষয়ে সিআইডি প্রমাণ পেয়েছে, মাস দুয়েকের মধ্যে এই পদ্ধতিতে প্রায় 55 লাখ টাকা পাকিস্তানে পাচার হয়েছে। সম্প্রতি সিআইডির পক্ষ থেকে একটি বিজ্ঞপ্তি জারি করা হয়েছে, তাতে বলা হয়েছে যে বড় পরিমাণ টাকা লটারি, লাকি ড্র, কেবিসি পুরস্কার অথবা অন্য পুরস্কার হিসেবে পেয়েছে বলে ফোন আসছে, যার জন্য প্রসেসিং ফি বাবদ একটি নির্দিষ্ট পরিমাণ টাকা নির্দিষ্ট ব্যাংক একাউন্টে জমা করতে হবে। 0092 বা,+ 9 2 অথবা কোন 12 সংখ্যা যা 92 দিয়ে শুরু এই নম্বর থেকে ফোন পেলে সিআইডির হেল্পলাইন নাম্বার 14407,7980124487,03324490253 এ যেন ফোন করা হয়।

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 19
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~