টাকার লোভে বিকোচ্ছে তাবড় সংবাদমাধ্যমগুলি, খেলছে সাম্প্রদায়িক ভয়ানক খেলা… স্টিং অপারেশনে মিডিয়ার প্রকৃত ছবি জেনে চাঞ্চল্য

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 46
    Shares

ওয়েব ডেস্ক ~ গণতন্ত্রের চতুর্থ স্তম্ভ? আদৌ কি তাই? কোথায় এই লজ্জা রাখবে ভারতীয় সংবাদমাধ্যম? মুখ লুকোনোর আদৌ কোনও জায়গা আছে? না, নেই৷ এই দায় সবার৷ ঘটনাটা শুনুন তাহলে৷

জাতীয় নিউজ পোর্টাল কোবরাপোস্ট জানাচ্ছে, গত কয়েক মাস ধরে একটি স্টিং অপারেশন তারা চালিয়েছে। উত্তর ভারতের অসংখ্য প্রথম সারির সংবাদ প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে কথা বলার জন্য তাদের এক সাংবাদিক পুষ্প শর্মাকে একটি হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের নেতা সাজিয়ে পাঠিয়েছিল তারা। নিজেকে ‘শ্রীমদ্ভাগবত গীতা প্রচার সংস্থা’ নামক একটি সংগঠনের নেতা ‘আচার্য অটল’ হিসেবে পরিচয় দিয়েছিলেন পুষ্প। অনেক সংবাদ প্রতিষ্ঠানই তাঁকে আরএসএসের ঘনিষ্ঠ বলে মনে করে।

নির্বাচনী ফায়দা তোলার উদ্দেশ্যে হিন্দুত্ব নিয়ে প্রচার চাই। এই দাবি নিয়ে ‘টাকার বিনিময়ে খবর’ করে সেই প্রচার চালানোর টোপ দেওয়া হয়েছিল নামকরা সংবাদ মাধ্যমগুলির একটা বড়ো অংশকে। তারপর কি হল জানেন? সেই টাকা নিয়ে তারা হিন্দুত্ববাদী প্রচার করতে আগ্রহী বলে জানালেন৷

পাঠকদের মনে থাকবে, ২০১৪ সালে লোকসভা নির্বাচনের আগেও জাতীয় সংবাদমাধ্যমগুলির একাংশ আচমকা ভোল বদল করে৷ কার্যত গেরুয়া বসন পরে নরেন্দ্র মোদীর হয়ে প্রচার করতে দেখা যায় এদের৷ কোবরাপোস্ট বলছে এই সব সংবাদমাধ্যমের সামনে ৬ থেকে ৫০ কোটি টাকার টোপ দেওয়া হয়৷ গুরুত্ব অনুযায়ী নির্ধারণ করা হয় টাকার অঙ্ক৷

ঠিক একই খেলা, ২০১৯-এর লোকসভা নির্বাচনে৷ কীভাবে টাকার বিনিময়ে সামাজিক বিদ্বেষ ছড়িয়ে ফায়দা তুলতে পারবে রাজনৈতিক দলগুলি, তার পথ প্রশস্ত করে সংবাদমাধ্যমগুলির একাংশই৷ মূলত গোটাটাই চলে টাকার অঙ্কের ওপর৷

‘আচার্য অটল’ নামে নিজের ছদ্মনামকে সামনে রেখে কী ভাবে হিন্দুত্ববাদ নিয়ে প্রচার করা হবে সে ব্যাপারে সংবাদ প্রতিষ্ঠানগুলিকে একটা রূপরেখা তৈরি করে দেন ওই সাংবাদিক। তিনি বলেন, প্রথম তিন মাস ‘নরম হিন্দুত্ববাদ’ প্রচার করতে হবে। তার পর ধীরে ধীরে সেখানে রাজনৈতিক মোড়ক নিয়ে আসতে হবে। সেখানে রাহুল গান্ধী, অখিলেশ যাদব এবং মায়াবতীকে ‘টার্গেট’ করা হবে। সব শেষে ভোটের এক্কেবারে মুখে হিন্দু এবং মুসলিমদের মধ্যে মেরুকরণ তৈরি করে দিতে হবে।

ভাবুন একবার৷ যে সংবাদমাধ্যম মানুষের হাতিয়ার, সেখানে টাকা দিয়ে বদলে দেওয়া হচ্ছে মানুষের চিন্তাভাবনার যাবতীয় সমীকরণ৷ বদলে দেওয়া হচ্ছে রং৷ খোলস পড়ে এক শ্রেণীর অসাধু সংবাদমাধ্যম কর্মী বেচছেন নিজের দেশকে৷ কোবরাপোস্ট এই স্টিং অপারেশনের নাম রাখে ‘অপারেশন ১৩৬’। তার কারণ, এই মুহূর্তে সংবাদ মাধ্যমের স্বাধীনতায় ভারতের বিশ্বব্যাপী র‍্যাঙ্ক ১৩৬।

স্টিং অপারেশনের প্রকাশ পেয়েছে, পুষ্প শর্মা ওরফে আচার্য অটল কথা বলেছেন ইন্ডিয়া টিভি, দৈনিক জাগরণ, হিন্দি খবর, ডিএনএ, অমর উজালা, ইউএনআই, ৯এক্স তশন, সমাচার প্লাস, এইচএনএন ২৪x৭, পঞ্জাব কেশরী, স্বতন্ত্র ভারত, স্কুপহুপ, রেডিফ এবং সাধনা চ্যানেলের কর্তাদের সঙ্গে। আশ্চর্যভাবে , সবাই টাকার বিনিময়ে খবর করার কথা মেনেও নিচ্ছেন৷

কোবরা পোস্ট বলছে এই ঘটনা থেকে প্রমাণিত, অনৈতিক কাজকর্ম করে ভারতের নির্বাচনে প্রভাব ফেলার ক্ষমতা এখন ভারতীয় সংবাদ মাধ্যমের আছে।”

ইনভেস্টিগেটিভ জার্নালিস্ট অনিরুদ্ধ বাহলের নিজস্ব পোর্টাল কোবরাপোস্ট। বাজপেয়ী জমানায় বঙ্গারু লক্ষ্মণের বিরুদ্ধে অনিরুদ্ধের নেতৃত্বেই স্টিং অপারেশন করেছিল তেহেলকা। যে সাংবাদিক পুষ্প শর্মা এই স্টিং অপারেশনটি করেছেন, তিনি ২০১৫ সালে আরও একটি অনুসন্ধানী খবর করেছিলেন। সেখানে জানা গিয়েছিল, মুসলিম যোগ প্রশিক্ষকদের কোনো পারিশ্রমিক দেয় না আয়ুস মন্ত্রক। এই খবর প্রকাশের পরেই পুষ্পকে গ্রেফতার করা হয়। এখন তিনি জামিনে মুক্ত রয়েছেন।

অনিরুদ্ধের দাবি, অনেক ক্ষেত্রেই যে খবর দেখানোর কথা বলা হয় এই সংবাদ মাধ্যম গুলিকে, তা ভারতীয় আইনবিরুদ্ধ। অর্থাৎ টাকা পেয়েই খবরে উঠে আসে দাঙ্গার কথা, সাম্প্রদায়িক বিষ মানুষের কানে ঢালে এরা৷ সেখানে উসকানিমূলক বার্তাও থাকতে পারে, তবুও টাকার জন্য সেগুলির খবর করতে রাজি সংবাদমাধ্যম।

অবশ্য স্বাভাবিকভাবেই এই তথ্য সামনে আসার পর হোঁচট খেয়েছে অভিযুক্ত সংবাদমাধ্যমগুলি৷ যতই এই সংবাদমাধ্যমগুলি স্টিং অপারেশনের কথা অস্বীকার করুক, এই হুল যে শাসক বিজেপিকে বিভিন্ন দিক থেকে বিঁধতে চলেছে সেটা বলাই বাহুল্য।

পাঠকদের মনে থাকবে পেজ থ্রি সিনেমার কথা৷ সেখানেও একই ছবি উঠে এসেছিল৷ সংবাদ মাধ্যমের একাংশের নগ্নতা তুলে ধরেছিলেন পরিচালক মধুর ভান্ডারকর৷ যে উত্তরপ্রদেশে বালি পাচারের খবর সংগ্রহ করতে গিয়ে সাংবাদিককে খুন হতে হয়, সেই উত্তরপ্রদেশেই এই ছবি নাড়িয়ে দেয় বিশ্বাসের ভিত৷ কাকে বিশ্বাস করবেন সাধারণ মানুষ? প্রশ্ন ওঠে৷

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 46
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.