লোকসভায় পাস সংশোধনী বিল ২০১৯, রাজ্যসভায় পাশের আর্জি প্রধানমন্ত্রীর

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 27
    Shares

দীর্ঘক্ষণ বিতর্কের পর মঙ্গলবার লোকসভায় পাশ হয়েছে উচ্চবর্ণের দরিদ্র মানুষদের জন্য শিক্ষা এবং চাকরির ক্ষেত্রে ১০ শতাংশ সংরক্ষণ বিল। মেয়াদ একদিন বাড়িয়ে বিলটি পেশ করা হয় রাজ্যসভায়, তারই তীব্র প্রতিবাদে সামিল হয় বিরোধীরা। উচ্চবর্ণের আর্থিকভাবে পিছিয়ে পড়া শ্রেণীর জন্য তাঁর সরকারের আনা সংরক্ষণ বিলকে সামাজিক ন্যায়বিচারের ক্ষেত্রে বড় পদক্ষেপ বলে ঘোষণা করলেন নরেন্দ্র মোদী। বিলটি নিয়ে বিরোধীরা তুমুল হট্টোগোল করলেও, তাঁর আশা, বিলটি পাশ হয়ে যাবে। এই কারণেই একদিনের জন্য রাজ্যসভার অধিবেশনের মেয়াদ বাড়ানো হয়েছে। সোলাপুরের জনসভায় প্রধানমন্ত্রী বলেন, “আমি আশা করি বিলটি পাশ হয়ে যাবে। সামাজিক ন্যায়বিচারের জন্য সাধারণ মানুষের ইচ্ছাকে মর্যাদা দেবেন বলেই আমি আশা রাখি”।
মঙ্গলবার এই বিল সংসদের আলোচ্যসূচিতে ছিল না। পরে তা নিয়ে আলোচনা শুরু হয়৷ লোকসভায় এদিন রাত অবধি আলোচনায় অংশ নেন বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধিরা। পরে হয় ভোটাভুটি। বিলটির পক্ষে ভোট পড়ে ৩২৩টি, বিপক্ষে মাত্র ৩টি। বিলটিকে মোদি সরকারের চমক বা জুমলা হিসেবে বর্ণনা করেও প্রায় সমস্ত দলই বিলটির পক্ষে ভোট দেন। সরকার বিলটিকে ঐতিহাসিক আখ্যা দিয়েছে। বিল সমর্থন করলেও, সরকারের রাজনৈতিক উদ্দেশ্য নিয়ে প্রশ্ন তুলেছে কংগ্রেস। তারা বিলটিকে আরও পর্যালোচনার জন্য সংসদীয় কমিটিতে পাঠানোর পক্ষে সওয়াল করেছে। দলের নেতা দীপেন্দ্র হুডা ও কেভি টমাস বলেছেন, ‘‌আমরা সাধারণের সংরক্ষণের বিরুদ্ধে নই। কিন্তু যেভাবে এই বিল আনা হয়েছে, তাতে সরকারের সদিচ্ছা নিয়ে প্রশ্ন থেকেই যায়।’‌‌‌

Facebook Comments


শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 27
    Shares

খবর ২৪ ঘন্টা

খবর এক নজরে…

No comments found