দিল্লি দূষণ নিয়ন্ত্রণে পদক্ষেপ প্রশাসনের….

শেয়ার করুন সকলের সাথে...

শ্বাস নিতে পারছে না দিল্লি৷ তাই বেশ কয়েকটি পদক্ষেপ দিল্লি প্রশাসনের৷ এক থেকে ১০ নভেম্বর পর্যন্ত রাজধানীর বাসিন্দাদের প্রাতর্ভ্রমণ এড়িয়ে চলার পরামর্শ দিয়েছে দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদ। একই সঙ্গে দূষণ নিয়ন্ত্রণের জন্য বেসরকারি পরিবহণ এড়িয়ে চলতে বলছেন তাঁরা। কারণ অত্যধিক মাত্রা গাড়ি রাস্তায় বেরোনোর কারণে বাতাসে কার্বন ডাই অক্সাইডের পরিমাণ বেড়ে যায়। সরকারি পরিবহণ ব্যবহার করলে রাস্তায় গাড়ির সংখ্যা অনেকটাই কমবে। যাঁরা এই নিয়ম মানবেন না তাঁদের বিরুদ্ধে পদক্ষেপ করা উচিত বলে সরকারকে পরামর্শ দিয়েছে দূষণ নিয়ন্ত্রণ পর্ষদ।
শুধু নাগরিকদের পরামর্শ দেওয়াই নয় আগামী দশদিন দিল্লি এনসিআর এলাকায় সব নির্মাণ স্থগিত রাখতে বলা হয়েছে। কারণ নির্মাণের সময় যে পরিমাণ ধুলো বালি ওড়ে সেটা বাতাসে দূষণের মাত্রা আরও বাড়িয়ে দেয়। দিল্লি এবং সংলগ্ন এলাকার পাথর ভাঙার কাজ বন্ধ রাখার কড়া নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে।
দিল্লির সংসদভবনের কাছে রাখব গঞ্জ গুরুদ্বারে ওপেন এয়ার পিউরিফায়ার লাগানো হয়েছে। দূষণ নিয়ন্ত্রণের জন্য বাড়তি ২১টি মেট্রোরেল চালানো হচ্ছে। যাতে রাস্তায় গাড়ির সংখ্যা কমে।
পর্ষদের বক্তব্য দূষণের পারদ ক্রমশ চড়ছে। শীত যত এগিয়ে আসছে দিল্লির বাতাসে দূষণার মাত্রা তত বাড়ছে। দীপাবলীর আগেই যদি পরিস্থিতি সংকটজনক হয়, তাহলে দীপাবলীর পরে কী হবে, এই নিয়ে রীতিমত শঙ্কায় রয়েছেন রাজধানী দিল্লির বাসিন্দারা। বাতাসে দূষণের মাত্রা এতটাই উদ্বেগজনক যে আগামী ১০ দিন অর্থাৎ যাঁরা ভোরে উঠে বিশুদ্ধ বাতাসে শ্বাস নেবেন বলে হাঁটতে বেরোন তাঁরা এখন সেই কাজ করলে হিতে বিপরীত হবে। শরীর ভাল হওয়ার থেকে বিষ বাতাসের কোপে শরীর আরও খারাপ হবে বলে মনে করছেন পরিবেশবিদ্‌রা।

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~