ফের গোষ্ঠীদ্বন্দে উত্তপ্ত দত্তাবাদ, প্রহৃত তৃণমূলকর্মী, গ্রেফতার দুই ~

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 19
    Shares

রাজারহাটের বিধায়ক তথা বিধাননগরের মেয়র সব্যসাচী দত্তের সমর্থক হওয়ার অপরাধে,  সল্টলেকে পার্টি মিটিং সেরে ফেরার পথে সুরজ সিং নামের স্থানীয় দত্তাবাদের এক যুবক দুষ্কৃতীদের হাতে প্রকাশ্য রাস্তায় প্রহৃত হন।  গত ২৫তারিখ বিকেলে তার উপর চড়াও হয় ৫-৬ জনের একটি দল। চলতে থাকে কিল-চড়-লাথি-ঘুসি বর্ষণ। স্থানীয় মানুষ অসুস্থ অবস্থায় সুরজকে উদ্ধার করে নিয়ে যান বিধাননগর মহকুমা হাসপাতালে। ঘটনার অভিযোগ পেয়ে বিধাননগর দক্ষিন থানার পুলিশ গত ২৮তারিখ গ্রেফতার করে প্রদীপ সাউ এবং ইন্দ্রজিৎ সর্দার নামের দুই অভিযুক্তকে, বাকিদেরও খোঁজ চালাচ্ছে পুলিশ । কিন্তু তার আগেই অবশ্য পুলিশের দ্বারস্থ হওয়ার অপরাধে সুরজ সিংহের বাড়িতে চড়াও হয় স্থানীয় কাউন্সিলরের মদতপুষ্ট দুষ্কৃতিরা। চলে শাসানি ও অশ্রাব্য গালিগালাজ।

প্রত্যক্ষদর্শীদের মতে ওই দুষ্কৃতীরা স্থানীয় কাউন্সিলর নির্মল দত্তের অনুগামী। যে নির্মল দত্তের নাম জড়িয়ে ছিল গত বিধাননগর পুর-নির্বাচনের গুন্ডামিতেও। বিধায়ক সুজিত বসুর স্নেহধণ্য নির্মলের  এই সব সহচরদের নিয়ে এলাকার বাসিন্দারা সন্ত্রস্ত থাকেন সবসময়। নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক এক বাসিন্দার কথায়, মারপিট-তোলাবাজি-অত্যাচার এখন দত্তাবাদের নিত্যনৈমিত্তিক ব্যাপার হয়ে দাঁড়িয়েছে, প্রশাসন ও সব জেনে চুপ তৃণমূল নেতা-বিধায়কদের নির্দেশে। প্রসঙ্গত, সল্টলেকের মতো হাই-প্রোফাইল ভি-আই-পি অধ্যুষিত এলাকায় তোলাবাজির দায়ে কিছুদিন আগেই সিন্ধু কুন্ডুকে গ্রেফতার করে বিধাননগর উত্তর থানার পুলিশ। সেখানেও নাম জড়ায় অপর এক কাউন্সিলর রাজেশ চিরিমার এবং বিধায়ক সুজিত বসুর। আপাততঃ সিন্ধু দমদম সেন্ট্রাল জেলেই বন্দি। কিন্তু তাতে একটুও পাল্টায়নি দত্তাবাদ এর পরিস্থিতি।

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 19
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.