নতুন করে সাজছে গাজলডোবা

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 17
    Shares

বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে বৈঠক করলেন পর্যটন মন্ত্রী গৌতম দেব৷ সেই বৈঠক থেকে বেরিয়ে এল গুরুত্বপূর্ণ তথ্য৷ জানা গিয়েছে, গাজলডোবা হবে দেশের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ পর্যটন হাব। এই হাবে পর্যটন দপ্তর সবচেয়ে বেশি টাকা বিনিয়োগ করবে। ইতিমধ্যে পরিকাঠামো সাজাতে খরচ করেছে ৩০৭ কোটি টাকা। আরও ৭০০ কোটি টাকা বিনিয়োগ করবে রাজ্য। ইতিমধ্যে ৬টি কটেজ তৈরি হয়েছে। সাইক্লিংয়ের ব্যবস্থাও হয়ে গেছে। হাতি সাফারি, জঙ্গল সাফারি হবে। তৈরি হবে আরও ১৪টি কটেজ। এবার তিস্তায় হবে বোটিংয়ের ব্যবস্থা। গাজলডোবা তিস্তার বাঁধ থেকে সেবকের কাছে মংপং পর্যন্ত হবে বোটিং। একইভাবে উল্টোদিকে গাজলডোবা থেকে দোমোহনি পর্যন্ত বোটিংয়ের ব্যবস্থা করা হবে। এর সঙ্গে যুক্ত করা হবে ফুলবাড়ি মহানন্দা ব্যারেজ ও ফুলবাড়ি সীমান্তের যৌথ কুচকাওয়াজ।


মৈনাক ট্যুরিস্ট লজে বৈঠক করেন পর্যটনমন্ত্রী। এদিন পর্যটন ব্যবসায়ী ও বিভিন্ন অংশের বিনিয়োগকারীদের সঙ্গে বৈঠক হয়। পর্যটন দপ্তরের উদ্যোগে মাটিগাড়ার একটি অভিজাত হোটেলে আয়োজিত এই বৈঠকে বিনিয়োগকারীরাই ছিলেন প্রধান মুখ। শিল্পপতি কমল মিত্তল, কমলকিশোর তেওয়ারি, টেকনো ইন্ডিয়া গ্রুপের প্রতিনিধিরা ছিলেন সেখানে। গাজলডোবা নিয়ে আইএফএলএসের আঞ্চলিক অধিকর্তা চন্দনা রায়চৌধুরি ভোরের আলো প্রকল্পে রাজ্য সরকার কতটা আন্তরিকভাবে বিনিয়োগ করেছে, তা তুলে ধরেন। টেকনো ইন্ডিয়া গ্রুপ এখানে ৫ একর জায়গা চেয়েছে। পর্যটনমন্ত্রী বলেন, তিনতারা হোটেল করার পরিকল্পনা রয়েছে তাদের। কোনওরকম শর্ত ছাড়াই এখানে বিনিয়োগ করবে টেকনো ইন্ডিয়া গ্রুপ। বৈঠকে প্রতিনিধি হিসেবে ছিলেন টেকনো ইন্ডিয়া গ্রুপের পরামর্শদাতা ভাস্কর রায়।

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 17
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~