খবর ২৪ ঘন্টা

বিশ্বব্যাঙ্কের সমীক্ষায়, ভারতের G.S.T সর্বাপেক্ষা জটিল ও দ্বিতীয় বৃহত্তম হারে কর সংগ্রহ প্রক্রিয়া…

শেয়ার করুন সকলের সাথে...

জটিল জিএসটির ফাঁদে ভারতের অর্থনীতিঃ বিশ্বব্যাঙ্ক

সম্প্রতি বিশ্বব্যাঙ্কের সমীক্ষায় প্রকাশিত, বিশ্বে পঞ্চম অর্থনীতি হিসেবে আত্মপ্রকাশ করবে ভারত. তারই মূল্য দিচ্ছেন হয়তো সাধারণ মানুষ. কারণ বিশ্বব্যাঙ্ক বলছে যে জিএসটির যাঁতাকলে ভারতবাসী পড়েছেন, তা সবচেযে জটিল ও দ্বিতীয় বৃহত কর কাঠামো.

মোট 115টি দেশে চালু রয়েছে এই রকমই কর কাঠামো, যার মধ্যে জিএসটি সবচেয়ে জটিল কর প্রক্রিয়া. ভারতে চালু জিএসটির মধ্যে রয়েছে 0, 5, 12, 18 ও 28 শতাংশ কর বিন্যাস. ভারতে ৮০-৯০ শতাংশ পণ্য জিএসটির অধীনে রয়েছে যেগুলি করের আওতায়.

অত্যাবশ্যকীয় ও ভোগ্যপণ্যের বেশিরভাগই করহীন অথবা ৫ শতাংশ করের আওতায় রয়েছে। জিএসটি ১৬ ধরনের করের পরিবর্ত হিসেবে ধার্য করা হয়েছে. তার মধ্যে ৭টি কেন্দ্রীয় কর, একটি পরিষেবা কর ও ৯টি রাজ্য কর রয়েছে.

জিএসটি চালুর সময় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি বলেছিলেন, এক দেশ, এক কর- দেশকে ভবিষ্যতের পথ প্রদর্শন করবে। গুডস এ্যান্ড সার্ভিস ট্যাক্স নয়, আসলে গুড এ্যান্ড সিম্পল ট্যাক্স জিএসটি। মোদি এও বলেন, দীর্ঘ সময়ের ফসল এই জিএসটি। কিন্তু আদৌ কি তাই? প্রশ্ন উঠছে.

সেই প্রশ্ন তুলছেন সাধারণ মানুষ. নোট বাতিল, জিএসটি, খুচরো সমস্যার তিন ঢিলে এখনও জর্জরিত সাধারণ মানুষ. পাইকারি থেকে খুচরো ব্যবসায়ী প্রত্যেকেই বলছেন নোট বাতিল এক বছর পেরিয়েছে, জিএসটি লাগু হবার পর থেকে কেটেছে বেশ কয়েক মাস. কিন্তু সমস্যা এখনও থেকেই গিয়েছে যে কে সেই। সব মিলিয়ে হয়রানি কাটেনি মানুষের. আজও জিএসটি নিয়ে প্রশ্ন শেষ হয়নি.

কিন্তু এত জটিলতার কোনও দরকার ছিল না. অর্থনৈতিক গবেষকরা বলছে বিশ্বের 49 টি দেশে জিএসটির আওতায় একটিই করবিন্যাস রয়েছে. বাকি 28টি দেশে রয়েছে 2টি করবিন্যাস, ভারত সহ মাত্র পাঁচটি দেশে চারটিরও বেশি করবিন্যাস রয়েছে. দেশগুলি হল ইতালি, লুক্সেমবার্গ,পাকিস্তান ও ঘানা.

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...