খালেদা জিয়ার মুক্তির চেষ্টা করবে না সরকার- শেখ হাসিনা

শেয়ার করুন সকলের সাথে...

বৃহস্পতিবার রাতে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার বাসভবন গণভবনে সাড়ে তিন ঘণ্টার বৈঠক হয়। সেই বৈঠকে হাসিনা সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, নির্বাচনের আগে খালেদা জিয়ার মুক্তির কোনও চেষ্টা করবে না সরকার। কারণ বিষয়টি আদালতের বিচারাধীন। বাংলাদেশে আদালত স্বাধীন। তবে কিছু বিষয়ে ছাড় দেওয়া হবে, সেটাও জানিয়ে দিয়েছেন তিনি। সেখানে ঐক্যফ্রন্টের পক্ষে বিএনপি মহাসচিব–সহ ৫ জন সিনিয়র নেতা উপস্থিত ছিলেন। ঐক্যফ্রন্টের কয়েকটি দাবি সরাসরি নাকচ করে দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। এর মধ্যে প্রথমটা হল খালেদা জিয়ার মুক্তির বিষয়টি। শেখ হাসিনা পরিষ্কার বলেছেন, খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মামলা করেছে সাবেক তত্ত্বাবধায়ক সরকার। দীর্ঘ আইনি প্রক্রিয়ার শেষে নিম্ন ও উচ্চ আদালত থেকে তাঁকে সাজা দেওয়া হয়েছে। এখানে সরকারের কোনও হাত নেই। নির্বাচনের আগে ঐক্যফ্রন্টকে নির্বিঘ্নে সভা–সমাবেশ করার সুযোগ দেবে সরকার। বাধাহীনভাবে তারা প্রচার চালাতে পারবে। প্রয়োজনে প্রধানমন্ত্রী আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে এ বিষয়ে নির্দেশও দেবেন বলে আশ্বাস দিয়েছেন শেখ হাসিনা। সাম্প্রতিক বিষয়ে সবচেয়ে আলোচিত গায়েবি মামলা নিয়েও কথা হয়েছে। এ বিষয়েও প্রধানমন্ত্রী আইনশৃঙ্খলা বাহিনীকে এসব মামলা বন্ধ রাখতে নির্দেশ দেবেন বলেও আশ্বস্ত করেছে বিরোধী পক্ষ। বিরোধীদের আরেকটি দাবিও মেনে নিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। সেটা হল নির্বাচনের সময় বিদেশি পর্যবেক্ষক আনার ব্যবস্থা করা। আলোচনায় ঐক্যফ্রন্টের নেতা ড. কামাল হোসেন সংসদ ভেঙে দিয়ে নির্বাচন করার দাবি তোলেন। এ বিষয়ে হাসিনা বলেন, বাংলাদেশ স্বাধীন হওয়ার পর থেকে নির্বাচন এলেই নির্বাচনকালীন সরকার নিয়ে কথা হয়। একেকজন একেক রকম মত দেন। হাসিনার পরামর্শ, পারস্পরিক আস্থা রেখে সংবিধানকে অনুসরণ করলেই আর কোনও সমস্যা থাকবে না। নির্বাচন পেছানোর যে দাবি ঐক্যফ্রন্ট থেকে এসেছে সে ব্যাপারেও প্রধানমন্ত্রী জানিয়ে দেন, এতে সরকারের কোনও হাত নেই। নির্বাচন করার দায়িত্ব নির্বাচন কমিশনের। তবে আলোচনা এখানেই শেষ নয়, আরও আলোচনা হতে পারে। আওয়ামি লিগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের জানান, ‘প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, যে–কোনও জায়গায় যে–কোনও সময় আলোচনা হতে পারে। আমার দ্বার উন্মুক্ত।’‌
ঐক্যফ্রন্টের অন্যতম শরিক বিএনপি হতাশ। দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগির সাংবাদিকদের বলেছেন, ‘আমরা সন্তুষ্ট নই।’ আগামী ৬ নভেম্বর রাজধানীর সোহরাওয়ার্দি উদ্যানে ঐক্যফ্রন্টের সমাবেশ ডাকা হয়েছে। ‌

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~