আর্থিক নয়ছয়ের অভিযোগ, গ্রেপ্তার ৯

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 42
    Shares

‘‌প্রো হেল্দিওয়েজ্‌ ইন্টারন্যাশনাল’‌ নামে হায়দরাবাদের মালাকপেটের একটি বহুজাতিক ঋণ দানকারী কোম্পানি জিমের যন্ত্রপাতি, আযুর্বেদিক পণ্য বিক্রি করত। গত দু’‌বছর ধরে তেলঙ্গানা এবং অন্ধ্রপ্রদেশের কমপক্ষে ৪০০০০ মানুষকে কমিশনের টোপ দিয়ে তাঁদের কোম্পানির সদস্য করত অভিযুক্তরা। এজন্য নতুন সদস্যদের কোম্পানিকে নূন্যতম ৪০০০ টাকা দিতে হত।
এই কোম্পানিতেই ধরা পড়ল আর্থিক গোলযোগ৷ মোট ৩০ কোটি টাকার আর্থিক নয়ছয়ের অভিযোগে এই কোম্পানির ৯ জন গ্রেপ্তার হল। সাধারণত কর্মহীন যুবক–যুবতীদেরই জালে ফেলার চেষ্টা করত অভিযুক্তরা। এর আগে তারা চেন্নাইয়ে একটি কোম্পানিতে কাজ করত। পরে নিজেরাই ব্যবসা শুরু করার পরিকল্পনা করে। রাজস্থান, লুধিয়ানা থেকে কম দামে খারাপ আয়ুর্বেদিক পণ্য কিনে তা বিদেশি এবং দামি পণ্য বলে বিক্রি করা হত গ্রাহকদের।
সাইবারাবাদ পুলিস জানিয়েছে, আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগে ওই কোম্পানির সিইও, দুজন ডিরেক্টর এবং আরও ৬ জন কর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাদের মধ্যে চারজন আইআইটি খড়গপুরের ড্রপআউট। ধৃতদের মোট ৪০ লক্ষ টাকার ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টও বাজেয়াপ্ত করা হয়েছে। ৯ জনের বিরুদ্ধেই ভারতীয় দণ্ডবিধি এবং ১৯৭৮ সালের প্রাইজ চিটস্‌ অ্যান্ড মনি সার্কুলেশন স্কিমস্‌(‌ব্যানিং)‌–এর আওতায় একাধিক অভিযোগ আনা হয়েছে।
সাইবারাবাদ পুলিসের কমিশনার ভিসি সজ্জনার জানালেন, এক ব্যক্তির কাছ থেকে লিখিত অভিযোগ পেয়ে শামিরপেট থানার পুলিস ‘‌প্রো হেল্দিওয়েজ্‌ ইন্টারন্যাশনাল’‌–এর ২৩ বছরের সিইও মহম্মদ রিজওয়ান ইউনুসকে গ্রেপ্তার করে। কোম্পানির দুই ডিরেক্টর– ইউনুসের বাবা, ৬১ বছরের মহম্মদ ইশাক এবং ২৭ বছরের ভাট্টু সাইকোন্ডা হর্ষবর্ধন রাজু নামে আইআইটি খড়গপুরের ড্রপআউট ছাত্রকেও গ্রেপ্তার করা হয়। তাদের জেরা করে বাকি তিন আইআইটি খড়পুরের ছাত্র সহ ৬ জনকে পাকড়াও করে পুলিস।

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 42
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~