আধার আইন প্রণয়নের আগে তথ্য সংগ্রহ অবৈধ ~ জানাল সুপ্রিম কোর্ট…

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 158
    Shares

ওয়েব ডেস্ক, নিউ দিল্লিঃ এ যেন এক খেলা চলছে। আধার নিয়ে খেলা, সাধারণ মানুষের সময় নিয়ে খেলা। বিশ্বাস নিয়ে খেলা। এক নিয়ম মানতে না মানতেই আরেক নিয়মের বোঝা এসে পড়ছে সাধারণ মানুষের ওপর। একটা পার করতে না করতেই চাপছে আরেক নিয়মের গেরো। স্বস্তি কবে, কেউই জানেন না। কারণ তাঁরা জানেন শুধু নিজের যাবতীয় কাজ বাতিল করে লাইনে দাঁড়াতে।

সম্প্রতি সুপ্রিম কোর্ট জানিয়েছে, 2010 সাল থেকে 2016 সাল পর্যন্ত আধার সংক্রান্ত যে সব তথ্য সংগ্রহ করা হয়েছে, তা বেআইনী। কিন্তু কেন বেআইনী এই তথ্য সংগ্রহ, তার উত্তরে সুপ্রিম কোর্ট জানাচ্ছে লোকসভায় 2016 সালের 11ই মার্চ পাশ হয় আধার বিল। সেই আধার বিল যতক্ষণ না আইনে পরিণত হচ্ছে, ততক্ষণ পর্যন্ত আধারের জন্য তথ্য সংগ্রহ বেআইনী। মানে আপনার আধার কার্ড যদি 2010 থেকে 2016-এর মধ্যে তৈরি হযে থাকে, তবে আপনার থেকে যে সব তথ্য সংগ্রহ করেছে সরকার, তা সম্পূর্ণ বেআইন।শুধু তাই নয়, সেই সব সংগৃহীত তথ্য নষ্ট করে ফেলতে হবে বলেও নির্দেশ দিয়েছে শীর্ষ আদালত। ফলে তার আওতায় যদি আপনার আধার কার্ড পড়ে, তবে তা নষ্ট করে দিতে বাধ্য কেন্দ্র সরকার. সব মিলিয়ে গোটা বিষয়টি এখন কেঁচে গন্ডুষ হয়ে রয়েছে। যার তালগোলে এবার পড়তে চলেছেন আপনিও।

সুতরাং কি দাঁড়াচ্ছে গোটা ব্যাপারটা? খুব স্পষ্ট ছবিটা। লম্বা লাইন, হরেক কাগজ হাতে দাঁড়িয়ে সাধারণ মানুষ, সুপ্রিম কোর্ট আর আধার কর্তৃপক্ষের টানাপোড়েনে নাজেহাল হয়ে জীবনের মূল্যবান সময় ব্যয় করছেন আধার কার্ড তৈরিতে।

সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি দীপক মিশ্রের নেতৃত্বাধীন ডিভিশন বেঞ্চ এই রায় দিয়েছে। অবশ্য সেটিকে চ্যালেঞ্জ করে এখনও কোনও মামলা দায়ের হয়নি। তবে তা হতে কতক্ষণ! তখন হয়তো নতুন কোনও নিয়মের পিছনের ছুটবে কেন্দ্র, আর তার শিকার হতে হবে সেই সাধারণ মানুষকে।

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 158
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.