নারী ধর্ষনের ও খুনের বিচার চেয়ে মোদীকে খোলা চিঠি প্রাক্তন আমলাদের …

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 1.3K
    Shares

ওয়েব ডেস্কঃ  প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীকে খোলা চিঠি দিলেন ৫০ জন অবসরপ্রাপ্ত সরকারি অফিসার। দেশে একের পর এক ধর্ষণের ঘটনা ঘটে চলেছে৷ মানুষকে নাগরিক নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ কেন্দ্র সরকার৷ এই চিঠিতে কড়া ভাষায় কেন্দ্রের ভূমিকার সমালোচনা করেছেন ওই ৫০ জন অবসরপ্রাপ্ত সরকারি অফিসার৷ কাঠুয়া ও উন্নাও-য়ের কথা তুলে ধরে তাদের দাবি দ্রুত দোষীদের শাস্তির ব্যবস্থা করুক সরকার৷

Image result for former ips & ias officer place open letter to prime minister about rape case

সাধারণ মানুষের প্রতি দায়িত্ব পালনে সরকার যে ব্যর্থ হয়েছে, সেকথাই তুলে ধরেছেন তাঁরা। কেন্দ্রীয় সরকারের কড়া ভাষায় সমালোচনা করা হয়েছে ওই চিঠিতে। নিরপেক্ষ ও গণতান্ত্রিক অধিকারের মূল্যবোধ নিয়ে প্রশ্ন তুলে দিয়েছেন তাঁরা।

গত বছর জুন মাসে ১৬ বছরের এক নাবালিকাকে গণধর্ষণ করা হয়৷ এই ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে উঠে আসে বিজেপি বিধায়ক কুলদীপ সিং সেনগর ও তার ভাই অতুলের নাম৷ তাদের বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়৷ কিন্তু প্রথম থেকে পুলিশের বিরুদ্ধে তদন্তে গড়িমসি করার অভিযোগ ওঠে৷ উন্নাও গণধর্ষণ মামলার ভার সিবিআইয়ের কাছে যাওয়ার কয়েক ঘণ্টার মধ্যে গ্রেফতার হয় মূল অভিযুক্ত৷

অন্যদিকে, কাঠুয়া গণধর্ষণের ভয়াবহ ছবিটা ধরা পড়েছে পুলিশের চার্জশিটে। সামনে এসেছে উন্নাওয়ের ধর্ষণের ঘটনাও। দেশ জুড়ে সরব হয়েছে মানুষ। জায়গায় জায়গায় চলছে প্রতিবাদ। কিন্তু নিরুত্তর সরকার। তাই এবার কলম ধরতে বাধ্য হয়েছেন তাঁরা বলে জানানো হয়েছে চিঠিতে৷

চিঠিতে বলা হয়েছে, ‘আট বছরের মেয়েকে ধর্ষণের মত নারকীয়তা আমাদের মনে করিয়ে দিচ্ছে কতটা বিকৃত মানসিকতার হয়ে উঠেছিল আমরা৷ ক্ষমতার লোভে অন্ধ সরকার ঠিক ভুল বিচার করার জ্ঞানও হারিয়ে ফেলেছে৷ স্বাধীনতার পর এটাই সবথেকে অন্ধকার সময়। এই কঠিন সময়ে আমরা সরকারের উত্তর চাইছি।’

Image result for former ips & ias officer place open letter to prime minister about rape case

সরকারি কর্মীদের কর্তব্যের গাফিলতির কথাও উল্লেখ করা হয়েছে। বলা হয়েছে, ‘এরা সবাই দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ।’ এদিকে, কাঠুয়া গণধর্ষণের ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই কেঁপে ওঠে গোটা দেশ। একটা ১১ বছরের মেয়েকে দিনের পর দিন গণধর্ষণ করে খোদ পুলিশ অফিসার সহ বেশ কয়েকজন। তারপর মাথায় পাথর মেরে খুন করা হয় তাকে। এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই কেঁপে ওঠে দেশ৷ নিন্দায়, ক্ষোভে ফেটে পড়ে সমাজের সব স্তর৷

চিঠিতে বলা হয়েছে এই ঘটনার থেকে নজর ঘোরাতে ও নিজেদের ব্যর্থতা ঢাকতে ধর্মের তাস খেলছে সরকার৷ মানুষের চেয়ে বড় করে দেখানো হচ্ছে হিন্দু-মুসলমান বিভেদকে৷ এ সবই চক্রান্ত৷ এই ধরণের বর্বরতার কোনও ক্ষমা নেই বলে উল্লেখ করা হয়েছে চিঠিতে৷ অবসরপ্রাপ্ত আধিকারিকরা দাবি করেছেন এই ধরণের মামলার বিচার হোক ফাস্ট ট্র্যাক কোর্টে৷ যাতে প্রমাণের অভিবে অপরাধীরা ছাড়া না পেয়ে যায়৷ কেন্দ্র তাদের চিঠির গুরুত্ব বুঝে সেই অনুযায়ী ব্যবস্থা নেবে বলে আশাবাদী তাঁরা৷

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 1.3K
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.