ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অফ মেটালস এবং টাটা স্টিলের যৌথ উদ্যোগে উদ্বোধন হল 56তম জাতীয় মেটালারজি দিবস ও 72তম বার্ষিক কারিগরি সভার

ছবি সৌজন্য :- অনিব্রত মুখার্জি
শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 21
    Shares

ইন্ডিয়ান ইনস্টিটিউট অব মেটালস (আইআইএম) এবং টাটা স্টিলের যৌথ উদ্যোগে কলকাতায় উদ্বোধন হল 56 তম জাতীয় মেটালারজি(ধাতব) দিবস (এনএমডি) এবং 72 তম বার্ষিক কারিগরি সভার (এটিএম)।

এনএমডি-এটিএম আইআইএমের একটি বার্ষিক মেগা ইভেন্ট যেখানে ধাতব শিল্পের শিক্ষাবিদ,পদার্থবিদরা উপস্থিত হয়ে উপকরণ প্রকৌশলী এবং ধাতব অভিজ্ঞতা ও উপকরণ প্রকৌশলের বিভিন্ন দিকে তাদের অভিজ্ঞতা এবং শিক্ষা ভাগ উপস্থিত সকলের সঙ্গে ভাগ করে নেয়। এবছর, কলকাতায় 14-16 নভেম্বর অনুষ্ঠিত হচ্ছে এই অনুষ্ঠান। ভারত সরকারের স্টিল ও মাইন মন্ত্রণালয় কর্তৃক জাতীয় ধাতববিদ দিবসের প্রতিষ্ঠা হয়েছিল 1962 সালে। বর্তমানে যা কেন্দ্রীয় স্টিল মন্ত্রণালয়ের অধীনে। ভারতের বিশেষ অর্থনৈতিক উন্নয়নে মেটালারজিক ও উপকরণ প্রকৌশল অঞ্চলে তাদের অসাধারণ অবদানের জন্য বিশিষ্ট মেটালারজিস্টদের সম্মান প্রদানের উদ্দেশ্যেই চালু করা হয়েছিল এই অনুষ্ঠান।

ছবি সৌজন্য :- অনিব্রত মুখার্জি

এটিএমের সুযোগ সুবিধা, বিভিন্ন ধরনের উৎপাদন মডেল, খনিজ নিষ্কাশন, উপকারিতা, লৌহঘটিত, অ- লৌহঘটিত এবং অন্যান্য উপকরণ উৎপাদন, পণ্যগুলির উন্নয়ন এবং চরিত্রায়ন এই কনভেনশনের আলোচনার বিষয় হিসেবে অন্তর্ভুক্ত। পরিবেশ এবং অন্যান্য স্থায়িত্ব বিষয়, ক্ষয়, tribology, পৃষ্ঠ প্রকৌশল, প্রযুক্তি যোগদান, ঢালাই, গুঁড়া ধাতুবিদ্যা, অ – ধ্বংসাত্মক পরীক্ষার মধ্য দিয়ে উঠে আসা প্রযুক্তি, শিল্প স্বয়ংক্রিয়তা ইত্যাদি বিষয়গুলো গুরুত্বপূর্ণ হবে এবারের বার্ষিক মিটিংয়ে।

ছবি সৌজন্য :- অনিব্রত মুখার্জি

এবছর সমান্তরালভাবে ৭টি প্রযুক্তিগত সেশন এবং ১টি সাধারণ ই-পোস্টার অধিবেশন পরিচালনা করা হচ্ছে যা নিম্নলিখিত থিমগুলিকে অন্তর্ভুক্ত করে হবে :-

∆ শিল্প নিরাপত্তা

∆ কাঁচামাল

∆ প্রক্রিয়া ধাতুবিদ্যা

∆ পণ্য

∆ অ – লৌহঘটিত ধাতু

∆ শক্তি,

∆ পরিবেশ এবং

∆ বর্জ্য ব্যবহার

∆ উপকরণ বিজ্ঞান অগ্রগতি

∆ শিল্প 4.0।

মেটালোগ্রাফিতে শ্রেষ্ঠত্ব প্রচারের আইআইএমের চলমান ঐতিহ্যের অংশ হিসাবে, জাতীয় স্তরের ‘মেটালোগ্রাফি কনটেস্ট’ সংগঠিত হচ্ছে হালকা মাইক্রোস্কোপি, ট্রান্সমিশন ইলেক্ট্রন মাইক্রোস্কোপি, স্ক্যানিং ইলেক্ট্রন মাইক্রোস্কপি এবং স্ক্যানিং প্রোব মাইক্রোস্কোপি বিভাগগুলোতে।

এটিএম “ইলেক্ট্রিক্যাল যানবাহনের ভবিষ্যৎ এবং ভারতের ধাতব শিল্পের পরিবর্তিত প্রভাব” থেকে “মেটালগুলিতে ডিজিটাইজেশন” পর্যন্ত বিষয়গুলো এই মিটিংয়ে ৪টি পূর্ণাঙ্গ বক্তৃতার অন্তর্ভুক্ত হবে।

এনএমডি-এটিএম 2018’র প্রধান বক্তারা হলেন যুক্তরাষ্ট্রের অধ্যাপক সি ব্যারি কার্টার, আর পেটকার, সিটিও, ড: পিটার ব্লাউহফ, ডয়েশ শেল হোল্ডিং জিএমবিএইচ বোর্ডের চেয়ারম্যান এবং অন্যান্যরা। 400 টি মৌখিক উপস্থাপনা (মূলনীতি এবং অবদানকারী) এবং 400 ই-পোস্টার উপস্থাপনা সহ 1000 এরও বেশি ব্যক্তি অংশগ্রহণ করবেন। শিল্প নিরাপত্তার উপর একটি নিবেদিত অধিবেশন হবে এই মিটিংয়ে।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিনয় কুমার (সেক্রেটারি, কেন্দ্রীয় স্টিল মন্ত্রণালয়), টি.ভি.নরেন্দ্রন (সিইও,এমডি টাটা স্টিল), আনন্দ সেন (প্রেসিডেন্ট, আইআইএম) সহ বিশিষ্টজনরা। অনুষ্ঠানের শুরুতেই ডঃবলদেব রাজ,ই.জি.রামাচন্দ্রন এবং ভারতের প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী জওহরলাল নেহেরুর প্রতি শ্রদ্ধার্ঘ্য প্রদান করা হয়‌। কেন্দ্রীয় স্টিল মন্ত্রণালয়ের সচিব বিনয় কুমার জানান ” ভারত বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম স্টিল প্রোডিউসার হলেও এখানে প্রতি জনে গড়ে ৬৯ কেজি স্টিল ব্যবহার করে যা সারা বিশ্বের জনপ্রতি গড় ২১৪ কেজির তুলনায় খুবই কম। কেন্দ্রীয় সরকার বিগত বছর থেকে সরকারী প্রোকিওরমেন্ট শুরুর পাশাপাশি স্টিলের লাইফ সাইকেল কস্টিং চালু করেছে যার ফলে একদিকে যেমন এটি স্টিলকে ইকনমিক করেছে তেমনি কেন্দ্রীয় সরকারের প্রায় ৮০০০ কোটি টাকা ইমপোর্ট বিলের ও সাশ্রয় করেছে। লজিস্টিকের উন্নয়ন ঘটাতে বেনারস-হলদিয়া হয়ে ডানকুনি পর্যন্ত ওয়াটারওয়ে চালু করা হচ্ছে যা রেলের পাশাপাশি ব্যবহারের মধ্য দিয়ে পন্য পরিবহনের উন্নতি ঘটবে। “

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 21
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~