ইন্সপেক্টর সুবোধ সিং খুনে গ্রেফতার ৫

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 14
    Shares

ইন্সপেক্টর সুবোধ সিং খুনে গ্রেপ্তার ৫৷ উত্তরপ্রদেশের বুলন্দশহরে ইন্সপেক্টর সুবোধ কুমার সিংয়ের হত্যায় গ্রেপ্তার হল মূল অভিযুক্ত যোগেশরাজ সহ মোট পাঁচজন৷ মেরঠ জোনের এডিজি প্রশান্ত কুমার মঙ্গলবার জানান, সোমবার বুলন্দশহরের মাহাও গ্রামের ঘটনায় মোট দুটি এফআইআর দায়ের হয়েছে। এদিন সকালে সুবোধ কুমারকে পুলিসের তরফে শেষ শ্রদ্ধা জানানোর পর তাঁর দেহ পরিবারের হাতে তুলে দেওয়া হয়। মরদেহ বাড়িতে পৌঁছলে কান্নায় ভেঙে পড়েন তাঁর স্ত্রী। সুবোধ কুমারের ছেলে অভিষেক প্রশ্ন তোলেন কেন সাম্প্রদায়িক হিংসার শিকার হতে হল তাঁর বাবাকে।যিনি শুধু নিজের কর্তব্য করছিলেন। সুবোধ কুমারের পরিবারকে ৪০ লক্ষ, তাঁর বৃদ্ধ বাবা, মাকে ১০ লক্ষ টাকা ক্ষতিপূরণ এবং পরিবারের একজনকে সরকারি চাকরি দেওয়া হবে বলে ঘোষণা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। দু’‌দিনের মধ্যে পুরো ঘটনার প্রাথমিক তদন্ত রিপোর্টও চেয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী।
সোমবার থানার কাছে জঙ্গলে ২৫টি গরুর দেহাবশেষ মেলার পরই রণক্ষেত্র হয়ে ওঠে মাহাও গ্রাম। কমপক্ষে ৪০০ জনের দল হামলা চালায়। বিক্ষোভকারীদের গুলিতে মৃত্যু হয় সুবোধ কুমারের। মারা যান সুমিত নামে ২১ বছরের এক স্থানীয় যুবকও। তবে সুবোধ কুমারের গাড়ির চালক রাম আস্রে জেরায় পুলিসকে জানিয়েছেন, সোমবার প্রথমে বিক্ষোভকারীদের পাথরে জখম হয়েছিলেন এসএইচও সুবোধ কুমার। তাঁকে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যাচ্ছিলেন রাম। সেসময় দ্বিতীয়বার জনতা তাঁদের গাড়িতে হামলা চালায়। প্রাণ বাঁচাতে তিনি সুবোধ কুমারকে ফেলে রেখে পালিয়ে গিয়েছিলেন এবং তারপরের ঘটনা সম্পর্কে কিছুই জানেন না। তাঁকে সমর্থন করেছেন সুবোধ কুমারের ছেলে অভিষেকও।
গো হত্যার অভিযোগ নিয়ে প্রথম এফআইআরটি দায়ের করেছিল সুবোধ কুমারের খুনে মূল অভিযুক্ত যোগেশরাজের বিরুদ্ধে। দ্বিতীয়টি হিংসা নিয়ে। দ্বিতীয় এফআইআরে ২৭ জনের নাম রয়েছে। এছাড়া আরও অজ্ঞাতপরিচয় ৬০ জনের নামও রয়েছে এফআইআরে। কেন ওই হিংসা এবং কেন বাকি দুই পুলিস অফিসার সুবোধ কুমারকে মারমুখী জনতার মধ্যে একা ফেলে দিয়ে পালাল তার তদন্ত করতে সিট গঠিত হয়েছে। অটোপসি রিপোর্টে সাফ উল্লেখ করা হয়েছে বুলেটের আঘাতেই মৃত্যু হয়েছে সুবোধ কুমারের।

Facebook Comments


শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 14
    Shares

খবর ২৪ ঘন্টা

খবর এক নজরে…

No comments found