কাঠুয়ার নির্যাতনের প্রতিবাদ করাতে এবার ব্যাক্তিগত আক্রমণ করিনা কাপুরকে ~

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 1.1K
    Shares

ওয়েব ডেস্ক~ সরকারি মদতে নেট আর সোশ্যাল মিডিয়ার দুনিয়া কে পরধর্মবিদ্বেষী, প্রতিহিংসা পরায়ন এবং অমানবিক হওয়ার একের পর এক নজির গড়ছে দেশ। নেটিজেনদের অসহিষ্ণুতার শিকার হলেন এবার করিনা কাপুর।

আট বছরের শিশুকন্যাকে সাতদিন আটকে রেখে লাগাতার গণধর্ষণ ৷ তারপর নির্মমভাবে খুন ৷ জম্মুর কাঠুয়ায় এই বিভৎস ঘটনার কথা সামনে আসতেই বিক্ষোভে ফুঁসে উঠেছে গোটা দেশ ৷ মোমবাতি মিছিলে পা মিলিয়েছেন খ্যাতনামা ব্যক্তিত্ব থেকে সাধারণ মানুষ ৷ সোশ্যাল মিডিয়ায় একের পর এক আছড়ে পড়েছে নিন্দার ঢেউ ৷ প্রতিবাদের ঝড় উঠেছে বলি পাড়ার অন্দরেও ৷

অমিতাভ বচ্চন থেকে স্বরা ভাস্কর, সোনম কপূর থেকে মিনি মাথুর কাঠুয়া ধর্ষণকাণ্ডের বিচার চেয়ে সোশ্যাল মিডিয়ায় সরব হয়েছেন সকলেই ৷ সম্প্রতি কাঠুয়ার নির্যাতিত শিশুকন্যাটির পাশে দাঁড়িয়ে প্ল্যাকার্ড হাতে দেখা গিয়েছে করিনাকেও ৷ ‘ভিরা দ্যি ওয়েডিং’ ছবির সেট থেকে নবাব-ঘরণীর সেই ছবিটি পোস্ট করেছেন স্বরা ভাস্কর ৷ কিন্তু এই ছবি সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই শুরু হয়ে যায় ট্রোলিং ৷

Image result for kareena kapoor kathua

প্রায় সঙ্গে সঙ্গেই নেটিজেনরা ব্যক্তিগত আক্রমণ করেন করিনাকে ৷ হিন্দু হয়েও মুসলিমকে বিয়ে করার জন্য কটূ মন্তব্যও শুনতে হয় তাঁকে ৷ অনেকে বলেন, এই কারণে করিনার লজ্জিত হওয়া উচিত ৷ বাদ যায়নি তাঁর সন্তান কে নিয়ে কুকথাও।

হিন্দত্বের সুড়সুড়ি জুগিয়ে, ভোটব্যাঙ্কের প্রত্যাশী মোদী সরকার, আর কিছূ অজ্ঞ্যাতকুলশীল হিংসাত্মক সমর্থক আজ “নেটিজেন” নাম নিয়ে ঘৃণা ছড়াচ্ছে সারা দেশে। যাদের ৩৬৫দিন কাজ, মিথ্যা প্ররোচনা, গুজব ছড়ানো। আর ধর্মের নামে নির্যাতনের বিপক্ষে কেউ প্রতিবাদ করলেই। তাকে “ট্রোল” করে নিজেদের ক্ষমতার জাহির করা, জনসমক্ষে অপমান করা এনাদের নেশা ও পেশা। দাঙ্গাবাজ সরকার ও এই নিয়ে চোখ বুজে থাকবেন এতে অবাক হওয়ার কিছুই নেই। একে একে সংখ্যালঘু, দলিত, কৃষক এবং ইদানীং নারী সুরক্ষায়ও সম্পুর্ণ বিফল এই সরকারের হাতিয়ার এই অসংবিধানিক, বর্বর, অসহিষ্ণু সমর্থকরাই ।

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 1.1K
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.