পাকিস্তানের গুগলির কড়া জবাব ভারতের

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 33
    Shares

ভারত–পাকিস্তান দ্বিপাক্ষিক আলোচনার কথা হলেও বাস্তবে তা হয়ে ওঠেনি। ভারতের পক্ষ থেকে স্পষ্ট জানিয়ে দেওয়া হয়েছিল, সন্ত্রাস বন্ধ না হলে পাকিস্তানের সঙ্গে কোনও দ্বিপাক্ষিক আলোচনা নয়৷ তারপরেই বৃহস্পতিবার ছিল কারতারপুর করিডরের শিলান্যাস অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকার জন্য বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ ও পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী অমরেন্দ্র সিংকে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল৷ কিন্তু তাঁরা সেই আমন্ত্রণ প্রত্যাখ্যান করেন৷ অনুষ্ঠানে ভারতের প্রতিনিধি হিসেবে ছিলেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হরসিমরত কউর বাদল এবং হরদীপ সিং পুরি। ইমরান খান পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী পদে শপথ নেওয়ার পর বলেছিলেন, ‘‌ভারত যদি বন্ধুত্বের জন্য এক পা এগোয়, তাহলে পাকিস্তান দু’‌পা এগোবে।’‌ কিন্তু বাস্তবে এখনও পর্যন্ত তা দেখা যায়নি। তার উপর প্রতিনিয়ত সীমান্তে জঙ্গি অনুপ্রবেশের ঘটনা ঘটছে। ভারতের তরফে অনেক আবেদনের পরেও এই নিয়ে কোনও হেলদোল দেখা যায়নি ইমরানের সরকারের। আর তাই পাকিস্তানের সঙ্গে এই মুহূর্তে কোনও আলোচনা সম্ভব না বলেই জানিয়েছিলেন বিদেশমন্ত্রী।
কারতারপুর করিডরের এই শিলান্যাস অনুষ্ঠানেই পাক বিদেশমন্ত্রী শাহ মেহমুদ কুরেশি বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ভারতকে গুগলি দিয়েছেন৷ সেই গুগলি খেয়েই ভারত দুই প্রতিনিধিকে পাঠিয়েছেন৷ কারণ আগে তো তাঁরা কেউ আসবেন না জানিয়েছিলেন।’
পাক বিদেশমন্ত্রীর করা মন্তব্যের জবাব দিলেন ভারতের বিদেশমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ। তাও আবার পাকিস্তানের কায়দাতেই। শনিবার রাতে নিজের টুইটারে এই মন্তব্যের জবাব দেন সুষমা স্বরাজ। তিনি লেখেন, ‘পাক বিদেশমন্ত্রী, নাটকীয়ভাবে করা আপনার গুগলি মন্তব্য আপনাদেরই মুখোশ খুলে দিয়েছে৷ এতে প্রমাণ হল শিখ সম্প্রদায়ের মানুষের প্রতি আপনাদের কোনও শ্রদ্ধা ও সম্মান নেই৷ আপনারা শুধু গুগলি খেলেন৷’ শুধু এই বলেই ক্ষান্ত থাকেননি সুষমা। ভারত যে পাকিস্তানের গুগলির শিকার হয়নি তা পরের টুইটে বুঝিয়ে দেন বিদেশমন্ত্রী৷ সুষমা লেখেন, ‘ভারত আপনাদের গুগলির শিকার হয়নি৷ শিখ সম্প্রদায়ের দুই মন্ত্রী কারতারপুর করিডরের শিলান্যাস উদ্বোধন অনুষ্ঠানে গিয়েছেন তাদের পবিত্র গুরুদ্বারে শ্রদ্ধা নিবেদন করতে৷’

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 33
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~