ভূমি ধসে কেরলে আটকে পর্যটক, তলব সেনা…

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 15
    Shares

অতিবৃষ্টি এবং ভূমিধ্বসে কেরলে ২৬ জনের মৃত্যু হয়েছে গত দু’‌দিনে। কেরলের মুখ্যমন্ত্রী পিনারায়ি বিজয়ন রাজ্যে বন্যা পরিস্থিতির কথা ঘোষণা করে জানিয়েছেন পরিস্থিতি খুবই গুরুতর। ভূমি ধসে কেরলের ইদ্দুকি জেলার মুন্নারে এক রিসর্টে আটকে পড়েছেন ৬৯ জন পর্যটক৷ সেখান থেকে তাঁদের উদ্ধার করতে তলব করা হয়েছে সেনা। তবে নতুন করে প্লাবন ও ভূমি ধসের কোনও খবর নেই৷ ভারী বৃষ্টির জেরে ব্যাহত কেরলের স্বাভাবিক জনজীবন। যে ৬৯ জন পর্যটক আটকে পড়েছেন, তাঁদের মধ্যে ২০ জন বিদেশি। চেন্নাইয়ে অবস্থিত মার্কিন কনসুলেটের তরফে পর্যটকদের জন্য জারি করা হয়েছে সতর্কতা। প্লাবিত ও ধস কবলিত এলাকা এড়িয়ে যাওয়ার পরামর্শ দেওয়া হয়েছে মার্কিন পর্যটকদের।
এছাড়া ইদুক্কিতে স্থানীয় প্রশাসনের তরফেও জনসচেতনার প্রচার শুরু হয়েছে।
বৃহস্পতিবার থেকে এখনও পর্যন্ত ইদুক্কি ওয়াটার রিজ়ার্ভারের চেরুথোনি বাঁধের ৫টি শাটার খুলে দেওয়া হয়েছে। যার ফলে পেরিয়ার নদীর জল প্রতি সেকেণ্ডে ১,২৫,০০০ লিটার করে বেড়ে যাবে। বুধবার এই জলাধারের প্রথম গেটটি খুলে দেওযা হয় প্রায় ২৬ বছর পর। এই জলাধারের জল ইতিমধ্যেই ২৪০০ ফিট জলস্তর অতিক্রম করে গিয়েছে।
ইরনাকুলাম ও ইডুক্কির জেলাশাসকরা পরিস্থিতির ওপর নজর রাখছে বলে জানা গিয়েছে। জাতীয় মোকাবিলা বিপর্যয় দফতরের সঙ্গে উদ্ধার কাজে হাত লাগিয়েছে সেনাবাহিনী ও বায়ুসেনাও। কেরলের ইডুক্কি ছাড়াও ক্ষতিগ্রস্ত জেলাগুলি হল মালাপ্পুরাম, পালঘাট, কোঝিকোড়ে, ওয়েল্যান্ড এবং কান্নুরের একাংশ। বৃহস্পতিবারই প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের কারণে কোচিন আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর সাময়িককালের জন্য বন্ধ রাখা হয়।

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 15
    Shares

Sponsored~