দমকল নয়, বাঁচাবে সচেতনতা? তাহলে সরকার কি করছে?…..

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 32
    Shares

বারুদের স্তুপ কলকাতা৷ সেটা মানুষ বুঝছে হাড়ে হাড়ে৷ কিন্তু সরকার? বুঝেও না বোঝার ভান করে আর কতদিন? দমকলমন্ত্রী বলেছিলেন দমকল বাঁচাবে এই ভরসায় থাকলে চলবে না। আগুন নিয়ে সচেতন হতে হবে শহরবাসীকেও। কিন্তু সত্যিই কি সচেতনতায় নিভবে আগুন? প্রশ্ন তুলছে শহরের কুড়িটি জতুগৃহ। নন্দরাম মার্কেট, স্টিফেন কোর্ট, আমরি হাসপাতাল, সর্বশেষ তালিকাভুক্ত বাগরি মার্কেট। কি শিখছি আমরা? প্রাণ বাঁচানো৷ কিন্তু আতঙ্কের হাত থেকে বাঁচাবে কে? বিশ্বাস, সম্পত্তি, আশ্রয়, সম্বল-সব খুইয়ে মানুষ পথে এসে দাঁড়ানোর পর সরকারের টনক নড়বে? এই প্রশ্নগুলির উত্তর রাজ্য সরকার দিতে পারবে না৷ কারণ ভোটবাক্স৷ ভোটমুখী রাজনীতি করে খাওয়া এই রাজনৈতিক দলগুলো মানুষের পাশে কতটা রয়েছে, তা এতদিনে বুঝে গিয়েছেন সাধারণ মানুষ৷ তবুও ভোট আসে, ভোট যায়৷ কিন্তু ভাগ্য ফেরেনা সাধারণ মানুষের৷ “যে যায় লঙ্কায়, সেই তো হয় রাবণ”৷ ক্ষমতার দম্ভে গদিতে টিঁকে থাকার লড়াইয়ে শেষ হয় সাধারণ মানুষের নূন্যতম নিরাপত্তার দাবি৷
এই শহর জ্বলেছে, পুড়েছে বারবার। ভুল থেকে কী শিখেছি আমরা? নাগরিক সচেতনতার কথা বলা হচ্ছে। প্রশাসন কি সচেতন? স্টিফেন কোর্ট অগ্নিকাণ্ডের পর শহরের অগ্নিনির্বাপণ ব্যবস্থা খতিয়ে দেখতে একটি কমিটি গড়া হয়েছে। পুরসভা, দমকল ও CESC-র প্রতিনিধিরা সেই কমিটিতে ছিলেন।সমীক্ষা চালিয়ে ৪৮ টি বাজারকে জতুগৃহ হিসেবে উল্লেখ করে কমিটি। প্রশাসনের নোটিস পেয়ে অগ্নিনির্বাপণ পরিকাঠামো তৈরি করে ২৮ টি বাজার। কিন্তু, শহরের কুড়িটি বাজার এখনও জতুগৃহ। তার ওপর যত্রতত্র ছড়িয়ে থাকা ছোটখাটো দোকান এক একটি দেশলাই কাঠি। যার অর্থ বারুদের স্তূপে বাস করছি আমরা। পরিস্থিতি মোকাবিলায় প্রশাসন কী করেছে? অগ্নিনির্বাপণ মানেনি এমন ২০ টি বাজারকে আরও একবছরের জন্য ছাড় দিয়েছে কলকাতা পুরসভা মুচলেকা লিখিয়েই ৪৮ হাজার ব্যবসায়ীর লাইসেন্স রিনিউ করা হয়েছে। শিথিল বিধিতে সঙ্গিন পরিস্থিতি। আগুন লাগলে নাগরিক সচেতনতায় তা নিভবে তো?

Image result for এখনও জ্বলছে বাগরি মার্কেট, কোটি টাকার ক্ষতির আশঙ্কা
কে দেবে উত্তর? এই নীল সাদা সরকার? যার কাছে উন্নয়নের অর্থ রংয়ের বদল? যার কাছে অগ্নিকাণ্ডের পর ক্ষতিপূরণ ঘোষণাই কর্তব্যের শেষকথা? কি আশা করা যায় এদের কাছে? না, কিচ্ছু আশা করার নেই৷ সব আশার উর্দ্ধে তারা৷ একের পর এক আগুনে জ্বলতে থাকুক শহর, পুড়ুক মহানগর, খাক হোক কলকাতা৷ আর একের পর এক দায় এড়াক এই সরকার৷
পুজোর ঠিক আগেই সম্বল হারিয়ে পথে বসুক মানুষ৷ তাতে কার কি? তারপরেই এই নেতারা ভোট চাইতে রাস্তায় নামবেন৷ গালভরা প্রতিশ্রুতি দেবেন৷ নীল সাদা তৃণমূল সরকার কি কি ‘উন্নয়ন’ করেছে তার খতিয়ান আসবে৷ কিন্তু এইসব মানুষগুলো, যারা সব হারালো, তারা কি আর কোনও দিন মাথা তুলে দাঁড়াতে পারবেন? বাগরি মার্কেটের স্থানীয় ব্যবসায়ীরা, যারা সর্বস্ব হারিয়েছেন আগুনের গ্রাসে, তাঁদের তাই একটাই প্রার্থনা আর নয়৷ একটু সচেতন হোক সরকার৷ একটু নজর দিক সাধারণ মানুষের দিকে৷ কারণ আগুনের গ্রাসে তলিয়ে গিয়েছে তাদের জীবনের শেষ সম্বলটুকু৷

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 32
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~