ঋতুমতী নারীদের প্রবেশাধিকার নিষিদ্ধ কলকাতার এই পুজো মণ্ডপে

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 43
    Shares

মহিলাদের অধিকারের লড়াই শুধু কেরালার শবরীমালা মন্দির চত্বরেই নয়৷ ছড়িয়ে পড়ল কলকাতাতেও৷ ঋতুমতী নারীদের প্রবেশাধিকার নিয়ে লড়াইয়ের মানচিত্রে উঠে এল আমাদের শহরও৷ মাঝেই খবরে উঠে এসেছে কলকাতা শহরের চেতলা প্রদীপ সঙ্ঘের ৩৪ বছরের কালীপুজো, যেখানে মহিলাদের কোনও প্রবেশাধিকার নেই।
৩ লক্ষ টাকা বাজেটের চেতলা প্রদীপ সঙ্ঘের পুজোয় প্রতিবারই বিশাল ভিড় হয় এবং এই বছর, সংগঠকরা পনেরো ফুট লম্বা প্রতিমাটি ৪ঠা নভেম্বর নিয়ে আসেন মণ্ডপে। ৯ই নভেম্বর প্রতিমা নিরঞ্জন৷ কিন্তু এই নিষেধাজ্ঞা বিষয়ে কোনও পরিবর্তন আনতে তাঁরা নিরুপায়। পুরাণ বিশেষজ্ঞ নৃসিংহপ্রসাদ ভাদুড়ি বলেন, “এটি আসলে একটি পিতৃতন্ত্রের প্রবর্তিত শর্ত। বেশিরভাগ শক্তি পুজোই তন্ত্র রীতি অনুসরণ করে সম্পন্ন হয় এবং এই ধরণের নিষেধাজ্ঞা কোন জায়গায় প্রযোজ্য নয়, এটা অযৌক্তিক। যদি তান্ত্রিকদের এতই সমস্যা, তাহলে তাঁরা কেন একজন মহিলা দেবী পুজো করছেন?” আরও মজার ব্যাপার, এই এলাকার নারীরাও পুরনো ঐতিহ্য ভেঙে দিতে ইচ্ছুকই নন।

কমিটির সদস্যরা জানান, এখানে পঞ্চমুণ্ড কালীপুজো তন্ত্র অনুসরণ করে পুজো হয়। তারাপীঠের তান্ত্রিক পুরোহিতরা প্রতি বছর এই পুজো পরিচালনা করেন। কিন্তু কোনও মহিলাকে এখানে কিছু স্পর্শ করার অনুমতিও দেওয়া হয় না,” জানা গিয়েছে, প্রথম যখন পুজো হয় সেই সময় থেকেই মহিলাদের প্রবেশ নিষিদ্ধ। কমিটির অন্য সদস্য মনোজ ঘোষ বলেন, “সংগঠক হিসাবে আমরা নারীদের পুজোয় অন্তর্ভুক্ত করতেই চাই, কিন্তু এটি আমাদের নিজেদের পুজো নয়, তান্ত্রিকরা যা বলবেন আমাদের তা অনুসরণ করতে হবে।”
বীরভূম জেলার দ্বারকা নদীর তীরে অবস্থিত তারাপীঠ মন্দিরের এক পুরোহিত যদিও এ বিষয়ে বিস্ময় প্রকাশ করেন।

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 43
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~