রাজ্য সরকারকে ১০০ কোটির জরিমানা আদালতের

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 21
    Shares

মেঘালয়ের পূর্ব জয়ন্তিয়া পাহাড়ের বেআইনি খনির ৩৭০ ফুট গভীরে আটকে রয়েছেন ১৫ জন শ্রমিক। ১৩ ডিসেম্বর থেকে তাঁরা ওই খনির মধ্যেই আটকে র‌য়েছেন। প্রসঙ্গত, ওই কর্মীদের উদ্ধারের ব্যাপারে দেরি হওয়ার পিছনে কারণ হিসাবে কেন্দ্র সরকার দাবি করেছে ওই খনিটি বেআইনি। তাই অবিলম্বে ওই খনি মালিকের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ করার নির্দেশ দিয়েছে সুপ্রিম কোর্ট। জানা গিয়েছে, মেঘালয়ে খনি দুর্ঘটনায় কেন্দ্রীয় সরকারকে ৭ জানুয়ারির মধ্যে বর্তমান পরিস্থিতি জানতে চেয়ে রিপোর্ট জমা দিতে বলেছে সুপ্রিম কোর্ট। কেন্দ্রের তরফে সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহতা শুক্রবার বিচারপতি এ কে সিক্রি ও বিচারপতি এস আবদুল নাজিরের বেঞ্চকে জানান যে, খনি কর্মীদের উদ্ধার করতে ভারতীয় নৌ সেনার বিশেষ ডুবুরিদের ঝামেলার মধ্যে পড়তে হয়েছে। কারণ, ওই খনিটি নদীর কাছ হওয়ায় গর্ত করে কর্মীদের কাছে যাওয়া কষ্টকর।


শুধু তাই নয়, ওই খনির মালিকের বিরুদ্ধে দ্রুত কঠোর শাস্তিমূলক ব্যবস্থা নেওয়া জন্যও কেন্দ্রকে বলেছে দেশের শীর্ষ আদালত। পাশাপাশি অবৈধ খনন রুখতে ব্যর্থ হওয়ায় মেঘালয় সরকারকে ১০০ কোটি টাকার জরিমানা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে ন্যাশনাল গ্রিন ট্রাইবুনাল।
ন্যাশনাল গ্রিন ট্রাইবুনালের হয়ে যে আইনজীবী দাঁড়িয়েছিলেন তিনি জানান, এ বিষয়ে উচ্চ–পর্যায়ের কমিটি তাঁদের রিপোর্ট পেশ করেছে ২ জানুয়ারি। এনজিটি চেয়ারপার্সন একে গোয়েলের সাংবিধানিক বেঞ্চ এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। রিপোর্টে বলা হয়েছে, উত্তর–পূর্ব রাজ্যে যে খনিগুলি চালনা করা হয় তার কোনও বৈধ কাগজপত্র বা লাইসেন্স নেই। অর্থাৎ বেআইনিভাবে সেই খাদানগুলি চলে। ট্রাইবুনালের পক্ষ থেকে মেঘালয় সরকারকে ১০০ কোটি টাকা জরিমানা দেওয়া হয়েছে। কারণ সরকারের পক্ষ থেকে এএ বেআইনি খনিগুলির বিরুদ্ধে কোনও পদক্ষেপ নেওয়া হয়নি। অথচ রাজ্য সরকার এই খনিগুলির প্রতিকূল পরিস্থিতির সম্পর্কে অবগত ছিল। শুনানি চলাকালীন রাজ্য সরকারের পক্ষ থেকে মেনে নেওয়া হয় যে মেঘালয়ের বেশিরভাগ খনি বেআইনি।

Facebook Comments


শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 21
    Shares

খবর ২৪ ঘন্টা

খবর এক নজরে…

No comments found