শহরে সন্দেহজনক রেডিও সিগন্যাল, সতর্ক পুলিশ

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 39
    Shares

বেশ কয়েক সপ্তাহ ধরে সাংকেতিক ভাষা সহ রহস্যজনক সিগন্যাল আনাগোনা করছে কলকাতার আনাচে–কানাচে। ঘটনার সূত্রপাত কয়েক সপ্তাহ আগে। কালীপুজোর ঠিক আগে। একজন রেডিও অপারেটরের নজরে প্রথম আসে এই ঘটনাটি। উত্তর ২৪ পরগণার সোদপুর থেকে সাংকেতিক ভাষায় রেডিও সিগন্যাল ধরা পড়ে। তারপর থেকে ওই সাংকেতিক ভাষার সিগন্যাল ধরা পড়েছে হুগলির চুঁচুড়া এবং শিয়ালদহের আশপাশ থেকে। রাতের একটি বিশেষ সময়ে এই সিগন্যাল ঘোরাফেরা করছে। এই খবর জানিয়েছেন বেশ কয়েকজন অপেশাদার রেডিও অপারেটর। এর ফলে রেডিও সিগন্যালের ওপর প্রতিনিয়ত নজর রাখা হচ্ছে বলে জানা গিয়েছে।
ব্যাপারটি সম্বন্ধে জানেন পশ্চিমবঙ্গ পুলিশের এডিজি (টেলিকমিউনিকেশন) দেবাশিস রায়ও। তিনি বলেন, ‘‌আমরা অত্যন্ত গুরুত্ব সহকারে পরিস্থিতির ওপর নজর রাখছি। আপাতত এই বিষয়ে যা তথ্য পাওয়া গিয়েছে, তা সবই কেন্দ্রীয় সংস্থার হাতে তুলে দেওয়া হয়েছে। খুব শীঘ্রই তদন্তের পক্ষে আরও ইতিবাচক কিছু জানতে পারা যাবে বলেই আমরা আশাবাদী’‌।
কলকাতা থেকে ২৫–৩০ কিলোমিটার ব্যাসার্ধের মধ্যে অবস্থিত অঞ্চলগুলি থেকেই এই সাংকেতিক ও দুর্বোধ্য রেডিও সিগন্যাল ধরা পড়ছে বলেও জানা গিয়েছে। এই সিগন্যালের খবর পাওয়ার পরেই রেডিও অপারেটররা ঘটনাটি পুলিশকে জানান। এছাড়া, কেন্দ্রীয় গোয়েন্দা সংস্থা এবং কেন্দ্রীয় যোগাযোগ মন্ত্রককেও অবগত করা হয় ঘটনাটি সম্পর্কে।
এইভাবে যে জঙ্গি কার্যকলাপ চলতে পারে এমন সম্ভাবনাও উড়িয়ে দিচ্ছেন না গোয়েন্দা অফিসারেরা। কারণ মোবাইল বা ইমেলের মাধ্যমে কথাবার্তা চালালে তা সহজেই র‌্যাডারে ধরা পড়ে যায়। এর আগে ২০১৬ তে এই ধরনের সিগন্যাল নজরে এসেছিল। বসিরহাট ও সুন্দরবন অঞ্চলে বাংলা ও উর্দু ভাষায় কথা বলতেন কেউ। এবারও সেরকম কিছু রয়েছে কিনা তা খতিয়ে দেখছে তদন্তকারীরা।
বেঙ্গল অ্যামেচার রেডিও ক্লাবের সভাপতি অম্বরীশ নাগ বিশ্বাস বলেন, ‘‌বেশ কিছু সপ্তাহ ধরে বিশেষ করে মধ্যরাতে আমরা কিছু সাংকেতিক ভাষার কথোপকথন শুনতে পাচ্ছি। পুরো বিষয়টা বেশ রহস্যময়। কারণ আমরা যখনই চেষ্টা করি তাদের সঙ্গে কথা বলার, তখনই সেটা থেমে যায়। এমনকী তাদের পরিচয় জিজ্ঞাসা করে পুরো রেডিওটাই স্তব্ধ হয়ে যায়।’

Facebook Comments


শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 39
    Shares

খবর ২৪ ঘন্টা

খবর এক নজরে…

No comments found