আগামীদিনে চিরতরে ধ্বংস হতে চলেছে পৃথিবী ~ জোরালো দাবি ‘নাসা’র……

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 447
    Shares

web Desk:    অদূর ভবিষ্যতে ধ্বংস হয়ে যেতে চলেছে  পুরো মানব-সভ্যতা ~ গত কয়েকবছর ধরেই এই খবরটি বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম এবং জার্নালে প্রায়ই  শিরোনামে থাকতে দেখা গেছে।এক কথায় বলতে গেলে মোটের ওপর গোটা দুনিয়া জুড়ে বেশ আলোড়ন  সৃষ্ট করেছে এই খবরটি । আবার অন্যদিকে এই পুরো বিষয়টিকে নিছক ‘গিমিক’ কিংবা গুজব বলে এক  ফুৎকারে উড়িয়ে দিয়েছেন অনেকেই। কিন্তু জানেন কি, সকল ধোঁয়াশা কাটিয়ে দিয়ে খোদ মার্কিন স্পেস রিসার্চ এজেন্সি “নাসা” জানিয়েছে, আমাদের এই সুন্দর ও প্রিয় ‘নীল গ্রহ ‘ অর্থাৎ পৃথিবীর শেষের দিন খুব তাড়াতাড়িই আসতে চলেছে ।সম্প্রতি এক মার্কিন সংবাদপত্রে নাসার তরফে দেওয়া এক বিবৃতিতে এই পুরো বিষয়টি সামনে এসেছে। যেখানে পরিষ্কার জানানো হয়েছে, আগামী ২০৩৬ সালেই পৃথিবীর সঙ্গে সরাসরি সংঘর্ষ হতে চলেছে  “অ্যাপোফিস” নামক একটি গ্রহাণুর। তাতেই চিরতরে পুরোপুরি ধ্বংস হয়ে যাবে আমাদের  মানব সভ্যতা।এমনটাই নাসার তরফে জানানো হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০০৪ সালে প্রথম নাসা-র নজরে এসেছিল গ্রহাণুটি এবং তাঁর নামাকরণ করা হয় ‘অ্যাপোফিস‘।তখন তার আয়তনে  ৯০০ ফুট প্রশস্ত ছিল। তখন বলা হয়েছিল উক্ত গ্রহাণুটি পৃথিবীর দিকে ক্রমশঃ ধেয়ে আ্সছে, তবে সেটি পৃথিবীর সঙ্গে সংঘর্ষ ঘটার কোনো সম্ভাবনা নেই বলে নাসা-র তরফে জানানো হয়।সেই সময় জ্যোর্তিরবিজ্ঞানীদের এই তথ্য প্রথম জানিয়েছিল ব্রিটেনের এক বেসরকারী সংবাদমাধ্যম ‘ডেইলি মেইল’। তবে সেই সময় প্রতিবেদনে এও বলা হয়েছিল, ২০০৪ সালে ৯০লক্ষ মাইল দূরত্বে পৃথিবীর পাশ দিয়ে চলে গেলেও ২০২৯ সালে পৃথিবীর খুব কাছাকাছি পৌঁছে আসবে গ্রহাণু  অ্যাপোফিস এবং পৃথিবী ও গ্রহাণুটির মধ্যে দূরত্ব ৩০,০০০ কিলোমিটারে চলে আসবে বলে বিজ্ঞানীদের ধারণা।কিন্ত সম্প্রতি নাসার তরফে সাড়া জাগানো তথ্য প্রকাশ করা হয়, যেখানে বলা হয়েছে যে উক্ত গ্রহাণুটি ইতিমধ্যেই পৃথিবীর কক্ষপথে প্রবেশ করে ফেলেছে এবং সেটি আয়তনের দিক থেকেও পূর্বের থেকে অনেকটাই প্রশস্ত হয়েছে। যার ফলস্বরূপ, ২০৩৬ সালে ১৩ এপ্রিল পৃথিবীতে অ্যাপোফিস-এর আছড়ে  পরার সম্ভাবনাকে একেবারে উড়িয়ে দেয়া যায় না।ডেভ থোলেন নামে এক জ্যোর্তিরবিজ্ঞানী এবং তাঁর সহযোগী এই দাবি করেছেন। মার্কিন সংবাদপত্রের খবর অনুযায়ী, নাসা তার নিজস্ব ওয়েবসাইটেও এই সংঘর্ষের কথা ফলাও করে জানিয়েছে। ফলে প্রচুর ক্ষয়ক্ষতি হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে।

 

 

 

 

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 447
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.