ফের সিবিআই তদন্ত আরুষি হত্যা কাণ্ডে…

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 12
    Shares

 ২০০৮ সালে দন্ত চিকিৎসক দম্পতি রাজেশ ও নূপুর তলোয়ারের বিরুদ্ধে তাঁদেরই ১৩ বছরের মেয়ে আরুষি এবং পরিচারক হেমরাজকে খুন করার অভিযোগ ওঠে। সিবিআইয়ের তদন্তে এই দম্পতিকে দোষী প্রমাণিত করা হয় এবং তাঁদের কারাদণ্ড হয়। কিন্তু গত বছরের অক্টোবরে এই দম্পতি বেকসুর ছাড়া পেয়ে যান। শুক্রবার সুপ্রিম কোর্ট রাজেশ এবং নুপূর তলোয়ারকে নোটিস পাঠিয়েছে বলে জানা গিয়েছে। শুক্রবার সুপ্রিম কোর্ট সিবিআইয়ের আবেদনকে মান্যতা দিয়েছে। নিহত হেমরাজের স্ত্রী খুমকালা বাঞ্জারে প্রথম আদালতে আবেদন জানিয়ে জানান যে তলোয়ার দম্পতি নির্দোষ নয়। গতবছরের ১২ অক্টোবর এলাহাবাদ হাইকোর্ট জানিয়েছিল যে, আরুষি–হেমরাজের খুনের পেছনে তলোয়ার দম্পতির হাত রয়েছে, এ সংক্রান্ত কোনও প্রমাণ পাওয়া যায়নি।
পরে ২০১৩ সালে সিবিআই আদালত এই দু’‌জনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের নির্দেশ দেয়।২০০৮ সালে নয়ডার বাড়িতে ১৩ বছরের আরুষিকে গলা কাটা অবস্থায় তারই ঘর থেকে উদ্ধার হয়। এই ঘটনার একদিন পরই তলোয়ার দম্পতির বাড়ির পরিচারক হেমরাজের দেহ ওই ফ্ল্যাটের ছাদ থেকে পাওয়া যায়। হেমরাজ নেপালের বাসিন্দা ছিল বলে জানা গিয়েছে। তলোয়ার দম্পতি প্রথম থেকেই তাঁদের মেয়ে এবং পরিচারককে খুনের ঘটনা অস্বীকার করে এসেছে। পুলিস ও সিবিআইয়ের ভুল তদন্তের শিকার তাঁরা এবং তাঁদের মৃত মেয়েকে নিয়েও ভুল খবর প্রচার করা হচ্ছে বলেও জানান তলোয়ার দম্পতি।
Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 12
    Shares

Sponsored~