বেঙ্গালুরুতে বিষাক্ত ফেনা, ছড়িয়ে পড়ল শহরের রাস্তায়….

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 56
    Shares

দেখতে অনেকটা বরফের মত। কিন্তু বরফের সঙ্গে মিল নেই কোথাও। মঙ্গলবার সকালে ঘর ফেনার স্তুপে ঢাকা পড়ল বেঙ্গালুরুর বেল্লান্ডুর হ্রদ। বেঙ্গালুরুবাসী দেখতে পান বেল্লান্ডুরের ঘন সাদা ফেনা হ্রদ ছাড়িয়ে শহরের রাস্তায় ঢুকে পড়েছে। কোথাও কোথাও ফেনা প্রায় ১০ ফুট উঁচু হয়ে গিয়েছে। কারও বাড়ির বাগান, কারও গাড়ির ছাদের উপরে দেখা যায় তুষারের মতো ঘন ফেনার স্তুপ। শহরবাসীর অভিযোগ, বেল্লান্ডুরের ওই তুষারফেনার সঙ্গে তুষারপাতের কোনও মিল নেই। সাদাটে রঙের ঝাঁঝালো গন্ধময় ফেনায় বেঙ্গালুরুর বাতাস ভারী হয়ে যায় মঙ্গলবার সকাল থেকেই। পরিবেশবিদদের মতে, দূষণে ভরা হ্রদের বিষাক্ত রাসায়নিকের সঙ্গে বৃষ্টির জলের মিশ্রনে তৈরি হওয়া বিক্রিয়ার ফলেই ফেনার ধরন তুষারের মতো হয়ে হয়ে গিয়েছে। বেঙ্গালুরু শহরের প্রায় ৯০০ একর জায়গাজুড়ে অবস্থিত বেল্লান্ডুর হ্রদের পুরোটাই বিভিন্ন কোম্পানির বিষাক্ত গ্যাস, রাসায়নিক বর্জ্য, দূষিত পদার্থ এবং শহরের বর্জ্যে ভর্তি। যার ফলে প্রায়ই এই হ্রদে আগুন জ্বলে ওঠে, ধোঁয়া দেখা যায়। গত জুলাইয়েই বেল্লান্ডুরের বিষাক্ত ফেনা শহরের সীমানা ছাড়িয়ে পার্শ্ববর্তী জেলা কোলারের ১৪০০ কোটি টাকার জল প্রকল্পের কাছাকাছি পৌঁছে গিয়েছিল। শহরবাসীর অভিযোগ, প্রশাসনের তরফে বারবার প্রতিশ্রুতি দেওয়া হলেও হ্রদের দূষণ নিয়ন্ত্রণে কোনও ব্যবস্থা নেওয়া হয়নি।

এই লেক এবং শহরের আরও কয়েকটি লেকের দূষণ দীর্ঘ দিন ধরেই চিন্তার কারণ হয়ে উঠেছে। আর তার জেরে ভারী বৃষ্টি হলেই এ ধরনের ঘটনা ঘটে। শুধু তাই নয় দূষণের জেরে অগ্নিকাণ্ডের ঘটনাও ঘটেছে অতীতে। বেঙ্গালুরুর আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে দক্ষিণ পশ্চিম মৌসুমী বায়ু সক্রিয় থাকায় বেঙ্গালুরুতে প্রবল বৃষ্টিপাত হয়েছে। বৃষ্টির গড় পরিমাণ ৪ সেন্টিমিটার। আর এতেই সমস্যা যে মিটে গিয়েছে এমনটা নয়। আবহাওয়া দপ্তর জানিয়েছে বৃষ্টি চলবে আরও চার দিন। মাত্র কয়েক মাস এই লেকের বিষাক্ত ফেনা পাড়ি দিয়েছিল পাশের জেলায়। আর এই লেককে ঘিরে সাম্প্রতিক সময়ের সবচেয়ে বড় ঘটনাটি ঘটেছিল গত বছরের জানুয়ারি মাসে। বিরাট অগ্নিকান্ডের সাক্ষী থাকে বেল্লান্ডুর লেক। পাঁচ হাজার সেনা জওয়ান সাত ঘণ্টার চেষ্টায় আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

হ্রদের বিষাক্ত ফেনা যাতে জলের পাইপে কোনওমতে ঢুকে যেতে না পারে সেজন্য কর্নাটক দূষণ নিয়ন্ত্রণ বোর্ডের তরফে, যে সব কোম্পানি জল সংশোধন না করেই সরবরাহ করে তাদেরকে নোটিস পাঠানো হয়েছে। আগামী চার দিন পর্যন্ত বেঙ্গালুরুতে বৃষ্টির পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া দপ্তর। ফলে পরিস্থিতি আরও খারাপ হতে পারে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 56
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~