মাঝেরহাট থেকে শিক্ষা, ব্রিজ সারাইয়ের কাজ শুরু ফরাক্কায়….

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 20
    Shares

২০০৪ সালের ২০ ডিসেম্বর তৎকালীন জঙ্গিপুরের সাংসদ কেন্দ্রীয় অর্থ মন্ত্রী তথা প্রাক্তণ রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায় উওর ও দক্ষিণ বঙ্গের মধ্যে সড়ক পথে যোগাযোগ সুদৃঢ় করতে ফরাক্কার বল্লালপুর রেল লাইনের ওপর লোহার ব্রেইলি ব্রীজ গড়ে তোলেন। এই পথে ছোট যান বাহন ও যাএী বাহি বাস চলাচল করে থাকে। এই ব্রেইলি ব্রিজের অবস্থা প্রায় ভগ্নদশাগ্রস্থ। তাই মাঝেরহাট দুর্ঘটনা থেকে শিক্ষা নিয়ে ফরাক্কার বল্লালপুরে ব্রেইলি ব্রিজ সংস্কারের কাজ শুরু করল ব্লক প্রশাসন। বুধবার থেকে এই ব্রেইলি ব্রিজের সংস্কারের কাজ শুরু হয়। সংস্কারের কাজ করছে হিন্দুস্তান কোম্পানী। ভেঙে যাওয়া ও খয়ে যাওয়া লোহার চাঁদর পরিবর্তন করে বসানো হচ্ছে নতুন লোহার চাঁদর। ব্রেইলি ব্রিজের চুরি যাওয়া নাটবোল্টু ও লোহার পাত বসানো হচ্ছে। এপ্রসঙ্গে কর্মরত শ্রমিক আলাইপুরের পলাশ দাস ও সাইদুর রহমান জানান, ব্রিজটি বিপদ জনক অবস্থায় ছিল। চোরেরা লোহার মোটা নাটবোল্টু ও অধিকাংশ লোহার পাত চুরি করে নিয়ে গেছে। যে কোনও সময় বড় দুর্ঘটনা ঘটতে পারত। যান চলাচল করলে কাঁপে উঠতো ব্রিজটি। লোহার পাতের অধিকাংশ ক্ষয়ে গিয়ে বড় বড় ফুঁটো হয়ে গেছে। কোনটা আবার ভেঙে পড়েছে। এপ্রসঙ্গে ফরাক্কার আইসি উদয় শঙ্কর ঘোষ বলেন, ‘‌৩৪ নম্বর জাতীয় সড়কে গুরুত্বপূর্ণ ফরাক্কার বল্লালপুরের ব্রেইলি ব্রিজে। এখান দিয়ে হাজার হাজার গাড়ি যাতাযাত করে। বিষয়টি নজরে আসায় হিন্দুস্তান কোম্পানীকে অনুরোধ করি ব্রেইলি ব্রিজ মেরামত করতে। আমরা কৃতজ্ঞ মানুষের সুরক্ষিত জীবনের কথা ভেবে হিন্দুস্তান কোম্পানী দায়িত্ব নিয়ে ব্রেইলি ব্রিজ সংস্কারের কাজ শুরু করেছে।’‌
প্রায় তেরো বছর পর এই ব্রেইলি ব্রিজের সংস্কার শুরু করল ফরাক্কা ব্লক প্রশাসনের আধিকারিকরা। কোথাও কোথাও লোহার পাত ভেঙে গেছে। কোথাও আবার খয়ে গেছে। রাতের অন্ধকারে প্রশাসনের নজর এড়িয়ে ব্রেইলি ব্রিজের লোহার নাটবোল্টু ও পাত চুরি গেছে। নড়বড়ে ব্রেইলি ব্রিজের ওপর দিয়ে জীবনের ঝুঁকি নিয়ে নিত্যদিন হাজার হাজর যান চলাচল করত। ছোট খাটো দুর্ঘটনা ছিল নিত্যসঙ্গী। সম্প্রতি মাঝেরহাট সেতু দুর্ঘটনার পর নড়েচড়ে বসে ফরাক্কা ব্লক প্রশাসন।

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 20
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~