সিকিমের প্রথম বিমানবন্দরের উদ্বোধন করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি….

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 16
    Shares

পাহাড় ঘেরা ছোট্ট রাজ্য সিকিমের প্রথম এবং একমাত্র বিমানবন্দরের শিলান্যাসের ন’বছর বাদে আজ সোমবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী পাকিয়ং বিমানবন্দরের উদ্বোধন করলেন। এই নতুন বিমানবন্দরের ফলে বাকি দেশের সঙ্গে যোগাযোগের ব্যবস্থা আরও সুগম হবে এবং তার ফলে রাজ্যের পর্যটন ব্যবস্থা আরও বেশি লাভের মুখ দেখবে বলে আশা করছে সিকিম সরকার। প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে টুইটে নতুন বিমানবন্দরের কিছু ছবি শেয়ার করা হয়। সিকিম যাওয়ায় পথে সেখানকার পার্বত্য এলাকার ছবি টুইট করেন প্রধানমন্ত্রী। গ্যাংটকের লিবিং হেলিপ্যাডে প্রধানমন্ত্রীকে স্বাগত জানান সিকিমের মুখ্যমন্ত্রী পবনকুমার চামলিং। গ্যাংটক শহর থেকে ৩৫ কিলোমিটার দূরে পাহাড়ের গায়ে তৈরি হয়েছে পাকিয়ং বিমানবন্দর। দেশের একমাত্র এই রাজ্যটিতেই এতদিন কোনও বিমানবন্দর ছিল না। সিকিমের বিমানবন্দরটি ভারতের শততম বিমানবন্দর। সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ৪,৫০০ ফুটের বেশি উঁচুতে নির্মিত এই বিমানবন্দরটি তৈরি হওয়ায় আকাশপথে সিকিমের সঙ্গে যোগাযোগ সহজ হবে। রাজ্যের পর্যটন ও আর্থিক বৃদ্ধির ক্ষেত্রেও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে চলেছে এই বিমানবন্দর। ৯৯০ একর জমিতে তৈরি হয়েছে এই বিমানবন্দরটি। পাকিয়ংকে দেশের মধ্যে প্রথম গ্রিনফিল্ড বিমানবন্দর বলেও দাবি করছেন বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষ। ৬০৫ কোটি টাকা ব্যয়ে তৈরি হয়েছে এই বন্দর। ৪৭০০ ফুট উঁচুতে রয়েছে এটি।

Image result for modi inaugurates first airport in sikkim
পাকিয়ং বিমানবন্দরের অধিকর্তা আর মঞ্জুনাথ বলেন, আগামী ৪ঠা অক্টোবর এই বিমানবন্দর থেকে প্রথম বাণিজ্যিক বিমানটি ছাড়বে। এখনও পর্যন্ত, গোটা দেশে সিকিমই ছিল একমাত্র রাজ্য, যার কোনও বিমানবন্দর ছিল না এতদিন। গতকাল রাজ্যের রাজধানী গ্যাংটকে হেলিকপ্টারে করে নামেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী।তাঁকে রাজ্যে স্বাগত জানান রাজ্যপাল গঙ্গাপ্রসাদ এবং মুখ্যমন্ত্রী পবন চামলিং। পাকিয়ং বিমানবন্দরের উদ্বোধনের পর পাকিয়ং-এর একটি স্থানীয় বিদ্যালয়ের পড়ুয়াদের উদ্দেশে ভাষণ দেন প্রধানমন্ত্রী।

Image result for modi inaugurates first airport in sikkim

উদ্বোধন করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘‌ক্রিকেট মাঠে খেলোয়াড়রা সেঞ্চুরি করে। এবার সিকিমে আমরা সেঞ্চুরি করলাম। দেশের শততম বিমানবন্দর এটি। আগে পশ্চিমবঙ্গের বাগডোগরা হয়ে সকলকে সিকিম পৌঁছতে হত। কিন্তু এবার থেকে তার আর প্রয়োজন হবে না। এই বিমানবন্দরের মাধ্যমে অনেক সহজেই পৌঁছানো যাবে সিকিম। আগামী ১–২ সপ্তাহের মধ্যেই এখান থেকে গুয়াহাটি আর কলকাতার বিমান চালু হবে। কয়েক বছরের মধ্যে বিদেশের সঙ্গেও সিকিমকে আকাশপথে জুড়ে দেওয়ার চেষ্টা করা হবে। আমাদের ইঞ্জিনিয়ার ও শ্রমিকদের কর্মদক্ষতার অন্যতম নিদর্শন এটি। এজন্য আমি তাঁদের সকলকে শুভেচ্ছা জানাচ্ছি।’‌
গতকাল কেন্দ্রের উত্তর–পূর্বাঞ্চল উন্নয়নমন্ত্রী জিতেন্দ্র সিং বলেন, ‘‌ইন্দো–চীন সীমান্ত থেকে ৬০ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত পাকিয়ং বিমানবন্দর। দেশের সুরক্ষার ক্ষেত্রে এটি বড় ভূমিকা নেবে। টেক অফ ও ল্যান্ডিংয়ের জন্য এই বিমানবন্দর ব্যবহার করতে পারবে ভারতীয় বায়ুসেনাও।’‌

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 16
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~