‘প্রধানমন্ত্রীকে ব্যাঙ্ক প্রতারকদের তালিকা পাঠানো হয়েছিল, কাজ হয়নি’…..

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 33
    Shares

বোমা ফাটালেন প্রাক্তন রিজার্ভ ব্যাঙ্ক গভর্নর রঘুরাম রাজন৷ তিনি বলেন “দ্রুত ঋণ জালিয়াতির ঘটনাগুলিকে সনাক্ত করে সমস্ত ব্যাঙ্কগুলি যাতে পূর্ণাঙ্গ ও উপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করে তদন্তকারী সংস্থাদের রিপোর্ট করতে পারে, তার দেখভালের জন্য আমার আমলে একটি ‘ফ্রড মনিটরিং’ বিভাগ শুরু করা হয়েছিল রিজার্ভ ব্যাঙ্কে। বেশ কয়েকটি বড় মাপের ঋণ জালিয়াতির তালিকাও পাঠানো হয়েছিল প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে। সেই তালিকা পাঠানোর পর কেন্দ্র ও রিজার্ভ ব্যাঙ্ক একসঙ্গে তদন্ত করে অন্তত কয়েকজন দোষীর নাম যাতে সামনে আনতে পারে, সেই ব্যবস্থাও করেছিলাম। কিন্তু, অত্যন্ত গুরুতর এই সমস্যাটিকে যেভাবে দেখা উচিত ছিল, সেইভাবে সম্ভবত সরকার দেখেনি। বিষয়টি নিয়ে কতদূর এগোনো হয়েছে এখনও পর্যন্ত, তা নিয়ে সত্যিই আমি অন্ধকারেই রয়েছি। অথচ, এই বিষয়টির একটি পরিণতি এখন অত্যন্ত জরুরি হয়ে উঠেছে”।
তাঁর বিতর্কিত রিপোর্টটিতে রঘুরাম রাজন বলেন, তিনি আরও বলেন, কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্রে ‘নিষ্ক্রিয়তা’র কারণে জালিয়াতদের এখনও নিরুৎসাহিত করা সম্ভব হয়নি। নিজেদের কাজ ঠিকই করে যাচ্ছে তারা।
তাঁর এই অভিযোগের প্রেক্ষিতে তরজা শুরু হয়েছে কংগ্রেস ও বিজেপির। তরজায় সামিল হল বিরোধী দলগুলিও। মুরলি মনোহর যোশীর নেতৃত্বাধীন সংসদীয় কমিটিতে পাঠানো ওই রিপোর্টটিতে রঘুরাম রাজন বলেন, অতি আশাবাদী ব্যাঙ্ককর্মী, সরকারের গাফিলতি এবং অত্যন্ত ধীর অগ্রগতিই এই বিপুল অনাদায়ী ঋণের মূল কারণ। তিনি আরও বলেন, ব্যাঙ্কিং সেক্টরে জালিয়াতির ঘটনা বেড়েই চলেছে। যদিও তা এনপিএ বা নন পারফর্মিং অ্যাসেটেট জালিয়াতির তুলনায় এখনও খানিকটা কম বলে দাবি তাঁর।

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 33
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~