Big Breaking~ যোধপুর আদালতে দোষী সাব্যস্ত সলমন খান, সাজা হল ৫ বছরের কারাবাসের

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 88
    Shares

ওয়েব ডেস্ক~ যোধপুর আদালতের তরফে কৃষ্ণসার হত্যা মামলায় দোষী সাব্যস্ত করা হল সলমন খানকে। বণ্যপ্রাণ সংরক্ষণ আইনের ৯-এর ধারায় দোষী সাব্যস্ত হন সলমন,তবে বাকিরা বেকসুর খালাস হয়েছেন। মামলায় ৫ বছরের জেল সলমন খানের। আপাতত তাঁকে যোধপুর জেলে নিয়ে যাওয়া হচ্ছে।
১৯৯৮ সালে ‘হাম সাথ সাথ হ্যায়’র  শুটিংয়ের সময় যোধপুরে  কঙ্কনিতে বিরল প্রজাতির কৃষ্ণসার হরিণ শিকার করেন সলমন খান, সইফ আলি খান, সোনালি বেন্দ্রে এবং তব্বু। ওই ঘটনার পর মামলা দায়ের হয় তাদের বিরুদ্ধে।

সলমনের আইনজীবী এইচ এম সারস্বতের দাবি ছিল, সরকারি কৌঁসুলি অভিযোগের স্বপক্ষে প্রমাণ সংগ্রহ করতেই পারেননি। মামলা সাজাতে ভুয়ো সাক্ষী দাঁড় করিয়েছেন। এমনকী, বন্দুকের গুলিতেই যে কৃষ্ণসার দু’টির মৃত্যু হয়েছিল, তা-ও সরকারি কৌঁসুলি প্রমাণ করতে পারেননি বলে দাবি করেছেন সারস্বত। ২৮ মার্চ নিম্ন আদালতে কৃষ্ণসার মামলার চূড়ান্ত পর্যায়ের শুনানি শেষ হয়।

প্রত্যক্ষদর্শীদের দাবি ছিল, ১৯৯৮ সালের ১ এবং ২ অক্টোবর যোধপুরে ‘হাম সাথ সাথ হ্যায়’ সিনেমার শ্যুটিংয়ের মাঝে আলাদা আলাদা জায়গায় দু’টি কৃষ্ণসার হরিণ হত্যা করেছিলেন সলমন খান। সেই সময় তাঁর সঙ্গে সইফ আলি খান, নীলম, তব্বু এবং সোনালী বেন্দ্রেরা ছিলেন। রাজস্থানের কঙ্কানি এলাকায় গ্রামবাসীদের অভিযোগ, গুলির শব্দ শুনে তারা সলমনদের জিপসি গাড়িটিকে ধাওয়া করেছিলেন। কিন্তু তাঁদের ধরা যায়নি। সেই সময় চালকের আসনে ছিলেন স্বয়ং সলমন। প্রবল গতিতে গাড়ি ছুটিয়ে তাঁরা পালিয়ে যান বলে দাবি করেন গ্রামবাসীরা।

এই মুহূর্তে সলমনের উপর এক হাজার কোটিরও বেশি লগ্নি রয়েছে। তাঁর সাজা হওয়ায় অনিশ্চিত হয়ে পড়ল এই ফিল্মগুলির ভবিষ্যৎ । মামলার রায় ঘোযণার এক দিন আগে অর্থাৎ বুধবার যোধধপুর পৌঁছন সলমন খান, তব্বু এবং সইফ আলি খান। বিরল কৃষ্ণসার হরিণ শিকার মামলায় দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় সলমনের হল ৫ বছরের কারাদণ্ড।

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 88
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.