বিতর্ক শুরু সর্দার প্যাটেলের মুর্তি ঘিরে!

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 26
    Shares

২০১৮–র ৭ অগস্ট সংসদে একটি রিপোর্ট পেশ করেছিলেন অডিটর জেনারেল। তাতে উল্লেখ করা হয়েছিল সর্দার বল্লভভাই প্যাটেল রাষ্ট্রীয় একতা ট্রাস্ট যে বিপুল পরিমণ অর্থ ব্যয় করে স্ট্যাচু অব ইউনিটি তৈরি করতে চলেছে তা কোনওভাবেই জাতীয় হেরিটেজে হিসেবে নির্বাচিত হবে না। অথচ এর জন্য রাষ্ট্রয়ত্ত্ব বিভিন্ন তেল সংস্থা ১৪৬.‌৮৩ কোটি টাকা দান করেছে। একা ওএনজিসি দিয়েছে ৫০ কোটি টাকা। এছাড়া ইন্ডিয়ান অয়েল দিয়েছে ২১.‌৮৩ কোটি টাকা।
অডিটর জেনারেলের রিপোর্টের পরেই ওএনজিসি নিজের অনুদানের সপক্ষে যুক্তি রেখে বলেছে এই স্ট্যাচু অব ইউনিটি নর্মদা তীরবর্তী এলাকায় শিক্ষা এবং উন্নয়নের পথ দেখাবে। ‌‌
এর পরেই শুরু হয়েছে বিতর্ক৷ সূত্রের খবর, এই মূর্তি তৈরির জন্য ৩০০০ কোটি টাকা অনুদান দিয়েছে রাষ্ট্রয়ত্ত্ব একাধিক তেল কম্পানি। তালিকায় রয়েছে ওএনজিসি, হিন্দুস্তান পেট্রোলিয়াম, ভারত পেট্রোলিয়াম, ইন্ডিয়ান অয়েল কর্পোরেশন, অয়েল ইন্ডিয়া লিমিটেডের মতো সংস্থা। যে অর্থ সমাজ কল্যাণে দেওয়ার কথা সংস্থাগুলির, সেটি সর্দার প্যাটেলের মূর্তি তৈরিতে কেন দেওয়া হয়েছে?‌ এই নিয়ে তেল কম্পানিগুলিতে ভর্ৎসনা করেছেন অডিটর জেনারেল। এই পুরো অর্থটাই সমাজ কল্যাণের স্বার্থে বরাদ্দ করে থাকে তেল কোম্পানিগুলি। সেটি না করে মোদিকে তুষ্ট করতে সর্দার প্যাটেলের মূর্তি নির্মাণের জন্য দান করা হয়েছে। ফলে সর্দার প্যাটেলের মূর্তি গড়তে যে বিপুল পরিমাণ অর্থ ব্যয় করেছে মোদি সরকার, সেটা কোথা থেকে এলো তা ক্রমশ প্রকাশ্যে আসতে শুরু করেছেন।


এদিকে এই মূর্তি নির্মাণের জন্য যে বিজ্ঞাপন গুজরাট সরকার দিয়েছে, তাতে দেখানো হয়েছে গুজরাটের সব গ্রামের কৃষক পরিবারের কাছে থেকে লোহা সংগ্রহ করা হয়েছে এই মূর্তি তৈরির জন্য। যেহেতু সর্দার প্যাটেল কৃষক পরিবারের সন্তান ছিলেন। সেকারণে তাঁর মূর্তি তৈরির জন্য কৃষকদের কাছ থেকেই লোহা ‘‌দান’‌ হিসেবে সংগ্রহ করা হয়েছে। মোট ১,৬০,০০০ লোহা সংগ্রহ করার পর সেটি মূর্তি নির্মাণে ব্যবহার করা হয়েছে। স্ট্যাচু অব ইউনিটির ওয়েবসাইটেও এই তথ্য দেওয়া হয়েছে। তবে এই তথ্য একেবারেই মিথ্যা তা প্রমাণ করে দিয়েছেন অডিটর জেনারেল।

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 26
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~