সমস্ত প্রতিকূলতার বিরুদ্ধে লড়ে রটনেস্ট জয় সায়নীর

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 602
    Shares

ইংলিশ চ্যানেল বিজয়ীনি সায়নী দাসের ঝুলিতে এল আরও এক নজির। উত্তাল সমুদ্র,হাঙরে ভরা রটনেস্ট চ্যানেলের বাধাকেই হেলায় টপকে কালনার মেয়ে সায়নির মুকুটে যুক্ত হল এক নতুন পালক।
 পশ্চিম অস্ট্রেলিয়ার কোটেসলো বিচ থেকে প্রতিযোগিতা যখন শুরু হয় তখন  উত্তাল সমুদ্রের বুকে প্রতিযোগীদের সঠিক দিশা দেখাতে ও মেডিক্যাল হেল্পের জন্য হাজির ছিল ছোট রাবার বোট, ছোট স্পিডবোট। কোটেসলো বিচ থেকে ১৯.৭ কিলোমিটার সাঁতার দিয়ে প্রতিযোগীদের রটনেস্ট চ্যানেলের মধ্যে দিয়ে পৌঁছতে হয় রটনেস্ট দ্বীপে। উত্তাল সমুদ্রের বুকে আকাশপথে নজরদারি রাখতে ছিল হেলিকপ্টার।

ভারত থেকে এই প্রতিযোগিতায় এবার অংশ নেন সায়নি। প্রতিযোগিতা শুরুর পর সায়নিরা তখন প্রায় ১১ কিলোমিটার পর্যন্ত সাঁতার কেটে ফেলেছেন, সে সময় ১ কিলোমিটারের মধ্যে ৩ থেকে ৪ ফুট লম্বা একটি “বিপজ্জনক”  সাদা হাঙরকে স্পট করা হয়।আতঙ্কে প্রায় ১০০ প্রতিযোগী রেসকিউ ভেসেলে উঠে পড়েন। সায়নি হাঙরের ভয়কে অবজ্ঞা করেই সাঁতার কেটে পৌঁছন রটনেস্ট দ্বীপের সৈকতে।পরবর্তী সময়ে কিছু প্রতিযোগী ফের জলে নামার সিদ্ধান্ত নিলেও প্রতিযোগিতার নিয়ম অনুসারে সাঁতার শেষ করা নিয়ে রেকর্ড থাকবে না বলে জানিয়ে দেয় রটনেস্ট চ্যানেল সুইম অ্যাসোসিয়েশন।

রটনেস্ট চ্যানেলের উত্তাল ঢেউয়ে একটি রেসকিউ স্পিডবোটে জল ঢুকে তা তলিয়ে যায়। এতে ৮ জন প্রতিযোগী-সহ বেশকিছু লোকজন ছিলেন। সকলকেই পরবর্তীতে নিরাপদে উদ্ধার করে অন্য একটি রেসকিউ ভেসেলে তোলা হয়।

১৯.৭ কিলোমিটার সাঁতার শেষ করতে সায়নি সময় নিয়েছেন ৬ ঘণ্টা ৪২ মিনিট ৫০ সেকেন্ড। বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে হাজির হওয়া সাঁতারুর মধ্যে  ৯১তম স্থান অধিকার করেন সায়নি। পরিকাঠামোহীন এক অবস্থা থেকে শুধু পুরীর সমুদ্রে  সাঁতার কেটে বিশ্বের তাবড় প্রতিযোগীদের মাঝে প্রথম ১০০-তে স্থান পাওয়াটা যথেষ্ট কৃতিত্বের ।

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 602
    Shares

Sponsored~

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.