খবর ২৪ ঘন্টা

ছোটপর্দার এই ১০ অভিনেতা আয়ের দিক থেকে পিছনে ফেলে দিয়েছেন বলিউড তারকাদের কেও~

শেয়ার করুন সকলের সাথে...

এমন একটা সময় ছিল যখন টিভি সিরিয়াল জগৎকে বলা হতো ছোট পর্দার দুনিয়া. সেখানকার অভিনেতাদের ও সেরকম কিছু গুরুত্ব দেওয়া হতো না। মনে করা হতো যে তাদের জগৎটা ওই ছোট পর্দার আড়ালেই সীমাবদ্ধ। তারা যা রোজগার করছে সেটাই তাদের জন্য অনেক। যদিও জনপ্রিয়তায় তারাও কিছু কম ছিল না।

এখন অবশ্য ধারণাটা একদম পাল্টে গেছে। আর কেনই বা হবে না, এই ছোট পর্দার অভিনেতারাই যে পুরোদমে পাল্লা দিচ্ছে বড় পর্দার অভিনেতাদের সাথে। শুধু অভিনয়ের দিক থেকেই নয়, রোজগারের দিক থেকেও । কি অবাক হচ্ছেন তো! কিন্তু এটাই সত্যি,অভিনয় দক্ষতা, স্টাইল, প্যাশন , সিক্স প্যাক আর গ্ল্যামারকে কাজে লাগিয়ে আজ ছোট পর্দার অভিনেতারা সাফল্যের সাথে অভিনয় করে যাচ্ছেন একের পর এক হিট ছবিতে। আরো অবাক করা তথ্য হচ্ছে যে কোনো কোনো অভিনেতা প্রতি মাসে এতো টাকা রোজগার করেন যা কিনা একজন সিনেমা র অভিনেতাকেও হার মানিয়ে দেবে। হ্যাঁ, একদম ঠিক ধরেছেন. এখানে কথা হচ্ছে হিন্দি সিরিয়াল জগতের এবং বলিউডের।

এটা মোটামুটি সকলের ই জানা যে সিনেমা জগতের অভিনেতারা তাদের কাজের প্রতি অত্যন্ত দৃঢ়প্রতিজ্ঞ অর্থাৎ Dedicated. কিন্তু এখানেও যেন সিরিয়ালের অভিনেতারা তাদেরকে টপকে যায়। এর একটা প্রধান কারণ এটা মানা হয় যে এই সমস্ত অভিনেতারা অনেক বেশি সময় এবং অনেক বেশি দিন শুটিং করার কাজে ব্যস্ত থাকেন বা থাকতে হয়। দিনের পর দিন নয় বছরের পর বছর ধরে ওই একটা সিরিয়ালের একটাই চরিত্রে তাদের অভিনয় করে যেতে হয় কোনোরকম বিরতি ছাড়াই. শুধু কি তাই যতদিন সিরিয়াল চলবে ততদিন চিত্রনাট্যের (Script ) সাথে সাথে নির্দিষ্ট চরিত্রের অভিনয়ের গুণমান বজায় রাখতে হবে। তা নাহলেই তো TRP আবার কমে যাবে যা হচ্ছে প্রত্যেক সিরিয়াল এর প্রাণভ্রমরা। অভিনয়ের এই গুণগত মান ই যেন তাদের সাফল্যের চাবিকাঠি. কি খুব জানতে ইচ্ছা করছে তো ? খুব সহজ চোখ রাখুন আমাদের পাতায় আর জেনে নিন

সেই সব সিরিয়াল তারকাদের নাম যারা কিনা বলিউডের তারকাদের ও হার মানিয়ে দিচ্ছেন রোজগারের দিক দিয়ে~

১~ রাম কাপুর:

মনে পরে ঘর এক মন্দির এর সেই সুদর্শন অভিনেতাকে, যার জনপ্রিয়তা সেই সময়ের অনেক তারকাকেই পিছনে ফেলে দিয়েছিলো. হাঁ কথা বলছি রাম কাপুরকে নিয়ে, যিনি উঠে এসেছেন পাহাড়ের দেশ নৈনিতাল থেকে. সাফল্য তার কাছেও সহজে আসেনি. একসময় তো প্রচুর স্ট্রাগল করতে হয়েছে. তখনকার দেওয়া একটা সাক্ষাৎকারে উনি স্বীকার ও করেছিলেন যে অন্তত দু বছর ওনাদের ছোট্ট সংসার স্ত্রী এবং অভিনেত্রী গৌতমীর উপার্জনেই চলেছে. কিন্তু বরাবরই গৌতমীর , রামের প্রতি প্রবল আস্থা ছিল. রাম তার অভিনয় জীবনে অনেক ধরণের চরিত্রে অভিনয় করেছেন তা সে ছোট হোক বা বড়. মাত্র ৩৯ বছর বয়সে মেরি ড্যাড কি মারুতি (Meri Dad Kii Maruti) তে উনি যেখানে একজন কিশোরের বাবার ভূমিকায় অভিনয় করেছেন তেমন ই বাড়ে আছে লাগতে হাই (Bade Achhe Lagte Hain) ধারাবাহিকে উনি প্রধান চরিত্রে অভিনয় করেছেন যা ছিল মূলত প্রেমকেন্দ্রিক.(Romantic ).

তার অন্যান্য কাজের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো রিস্তেই, কসম সে (Ristey , Kasam Se)ইত্যাদি. এক কালের এই সুদর্শন নায়ক সাস্থ সম্বন্ধে কিন্তু একেবারেই সচেতন নন. যার প্রকাশ আমরা সকলেই দেখতে পাই. এতে অবশ্য তার পেশাগত ক্ষেত্রে কোনো অসুবিধার সৃষ্টি হয়নি. সম্প্রতি কিছু জনপ্রিয় হিন্দি সিনেমায় গুরুত্বপূর্ণ চরিত্রে অভিনয় যেমন স্টুডেন্ট অফ দি ইয়ার (Student Of The Year) , এজেন্ট বিনোদ (Agent Vinod), সাদি কে সাইড এফেক্টস (Shadi ke Side Effects) , Baar Baar Dekho ইত্যাদি, রাম কাপুর কে সাফল্য ও জনপ্রিয়তার দিকে আর কয়েক কদম এগিয়ে নিয়ে গেছে.

রোজগার: সিরিয়ালের প্রতি পর্বে প্রায় ১.২৫ লক্ষ টাকা.

 ২~সাক্ষী তনয়ার :

জনপ্রিয় এই টিভি তারকাকে এক সময় সিরিয়াল কুইন (Serial Queen) বলা হতো. তার ঝুলিতে ছিল কাহানি ঘর ঘর কি র মতো সিরিয়ালে প্রধান নায়িকা চরিত্রে অভিনয়ের সুযোগ যা তিনি অত্যন্ত দক্ষতার সাথে ফুটিয়ে তুলেছিলেন. ক্রমাগত ৮ বছর একনাগাড়ে অভিনয় করে গেছেন এক আদর্শ বৌ এর চরিত্রে. এরপর বালিকা বধূ , ক্রাইম পেট্রল এর মতো হিট সিরিয়ালেও উনি অভিনয় করেছেন. তার কেরিয়ারের একটি অন্যতম চরিত্র ছিল অভিনেতা রাম কাপুরের বিপরীতে Bade Achhe Lagte
Hain সিরিয়ালে. কৌণ বানেগা ক্রোড়পতি র একটি পর্বেও দেখা গেছিলো সাক্ষীকে. সম্প্রতি দাঙ্গাল ছবিতে বলিউড অভিনেতা আমির খানের বিপরীতে অভিনয় করে প্রচুর প্রশংসা পেয়েছেন তিনি.

প্রথম জীবনে উনি কাজ করতেন খাজানা বলে একটি কাপড়ের দোকানে ৯০০ টাকা বৃত্তিতে. তার অভিনয় জীবন শুরু হয় দূরদর্শনে একটা অনুষ্ঠানের জন্য অডিশন দেওয়ার পর থেকে. সেইসময় উনি প্রশাসনিক সেবা (Administrative Service) এবং গণ যোগাযোগের (Mass Communication) ভর্তির পরীক্ষার প্রস্তুতি নিচ্ছিলেন. টেলিভিশন জগতের অনেক পুরস্কার তিনি পেয়েছেন যেমন শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রীর জন্য ইন্ডিয়ান টেলি অ্যাওয়ার্ডস (Indian Telly Awards) , ষ্টার গিল্ড অ্যাওয়ার্ড (Star
Guild Award ) এবং ITA অ্যাওয়ার্ড , এছাড়া ষ্টার পরিবার অ্যাওয়ার্ড. (Star Parivar Award ) .

আয়: ধারাবাহিকের প্রতি পর্বের জন্য ৮০,০০০ টাকা.

৩~মোহিত রায়না:

জম্মুর ছেলে সুদর্শন মোহিত রায়নার অভিনয় জীবন শুরু হয় বিজ্ঞানভিত্তিক ধারাবাহিক অন্তরীক্ষ (Antariks ) দিয়ে. কমার্স স্নাতক হওয়ার পর মোহিত মুম্বাই চলে আসে মডেল হওয়ার জন্য. এরপর কঠোর পরিশ্রমের পর ২৯ কেজি মেদ ঝরিয়ে মোহিত নিজেকে তৈরি করে গ্রাসিম মিস্টার ইন্ডিয়া (Grasim Mister India) প্রতিযোগিতার জন্য এবং প্রথম ৫ জনের মধ্যে জায়গা করে নেন. মোহিতের জনপ্রিয়তার প্রধান রহস্য হলো তার কমনীয় ব্যক্তিত্ব. দেবো কে দেব -মহাদেব (Devo কে Dev – Mahadev )- মহাদেব এর চরিত্রে এবং

অশোক (Ashoke )ধারাবাহিকে – সম্রাট অশোকের চরিত্রে ইনি প্রচুর প্রশংসা পেয়েছেন. চেহেরা (Chehera), গঙ্গা কি ধীয (Ganga Ki Dheej ) টিভি শো ছাড়াও উনি ডন মুটঠু স্বামী (Don Muthhu Swami ) সিনেমায় অভিনয় করেছেন.

আয়: প্রতি পর্বে প্রায় ১ লক্ষ টাকা .

৪~হিনা খান:

শ্রীনগরের মেয়ে হিনা দিল্লি থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রি নেওয়ার পর মুম্বাই এসেছিলেন বিমান সেবিকা হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে. কিন্তু ভাগ্য তাকে অভিনয় জীবনে নিয়ে আসে ইয়ে রিস্তা ক্যা ক্যাহেলাতা হ্যায় (Ye Rista Kyahelata Hain) – র মুখ্য চরিত্র অক্ষরা (Akshara ) – র হাত ধরে. খুব অল্প সময়ের মধ্যেই শুধুমাত্র এই একটা ধারাবাহিকের মাধ্যমেই হিনা তার কেরিয়ারে জনপ্রিয়তার শীর্ষে উঠে এসেছেন. ২০১৩-১৪ সালে উনি  এশিয়ার ৫০ জন শীর্ষস্থানীয় কামনীয়া নারীদের ( Top 50 Sexiest Asian Women ) মধ্যে স্থান পেয়েছেন.

বলিউডের স্বপ্নময় হাতছানি এবং অনেক নামিদামি টিভি শো যেমন ঝলক দিখলা যা (Jhalak Dikhla যা), বিগ বস (Big Boss ) ইত্যাদির থেকে প্রচুর টাকার অফার কে উপেক্ষা করে হিনা তার পরিচায়ক ধারাবাহিকেই মনোনিবেশ করেছেন. বর্তমানে হিনা প্রযোজক রকি জয়স্মল এর সাথে প্রেমের সম্পর্কে আবদ্ধ রয়েছেন এবং শোনা যাচ্ছে সামনের বছরেই তারা বিবাহ সূত্রে আবদ্ধ হবেন.

আয়: প্রতি পর্বে প্রায় ১- ১.২৫ লক্ষ.

৫~ রনিত রায় :

রনিত রায় তার অভিনয় জীবন শুরু করেছিলেন বলিউড দিয়ে. যেখানে পর পর ৭টি সিনেমা ব্যর্থতার মুখোমুখি হয়. নাগপুরে জন্ম তারপর আহমেদাবাদে বড়ো হওয়া রণিতের বাবা র একটি ছোট কারখানা ছিল. প্রযোজক এবং পরিচালক সুভাষ ঘাই ছিলেন রণিতের বাবার বন্ধু. তার হাত ধরেই রণিতের অভিনয় জীবনের পথ চলা শুরু . হিন্দি সিনেমার ব্যর্থতার পর রনিত হিন্দি ধারাবাহিকে কাজ করা শুরু করেন এবং সেখান থেকে সাফল্যের সিঁড়িও চড়তে শুরু করেন. তার দুটি বিখ্যাত চরিত্র কাসৌতি জিন্দেগী কি (Kasouti Jindegi Kiii)-র ঋষভ বাজাজ এবং কিউকি শাঁস ভি কাভি বাহু থি (Kyuki Shans Bhi Kabhi Bahu Thii)-র মিহির ভিরানী তাকে ধারাবাহিক জগতের শীর্ষস্থানীয় অভিনেতাদের সারিতে এনে দেয়.

ধারাবাহিকে সাফল্যের পর রনিত অনেকগুলি হিন্দি সিনেমায় অভিনয় করেছেন যার মধ্যে ২ স্টেটস (২ States ) , কাবিল (Kaabil ), বস (Boss ) ইত্যাদি ভূয়সী প্রশংসা লাভ করেছে. অনেকেই হয়তো জানেন না যে এই পেশার সাথে সাথে রনিত একটি সুরক্ষা সংক্রান্ত ব্যবসার (Security Business ) কাজেও যুক্ত আছেন যেখান থেকে সমস্ত বলিউড তারকাদের এবং প্রযোজক কোম্পানিগুলিকে সেবা প্রদান করা হয়. রণিতের ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে দর্শকের আগ্রহের শেষ নেই. তার প্রথম স্ত্রী নিলাম সিংহ র সাথে বিচ্ছেদের পর উনি দ্বিতীয় বার বিয়ে করেন এবং বর্তমানে তিনি একটি কন্যা (Aador )ও একটি পুত্র সন্তানের (Augastya ) বাবা. প্রসঙ্গত প্রথম পক্ষের ওনার একটি কন্যা সন্তান হয় .

আয়: প্রতি পর্বের জন্য ১.২৫ লক্ষ দাবি করে থাকেন এবং প্রতি মাসে মোটে ১৫ দিন কাজ করেন.

৬. ~দিব্যাঙ্কা ত্রিপাঠি :

মিষ্টি দেখতে এই ধারাবাহিক তারকা ভোপালের মেয়ে. আপনারা জেনে অবাক হবেন যে এই শান্ত শিষ্ট দেখতে মেয়েটি নেহেরু ইনস্টিটিউট অফ মাউনটিরিং (Neher Institute Of Mounteering ) থেকে পর্বতারোহীর প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত এবং রাইফেল শুটিং এ সোনার মেডেল জয়ী. তার পরিচায়ক ধারাবাহিক বানু মাইন্ টেরি দুলহান (Banu Main Teri Dulhan ) -এ দ্বৈত চরিত্রে
সাফল্যের সঙ্গে অভিনয় করে খুব অল্প সময়ের মধ্যেই অর্থ, নাম, খ্যাতি ও প্রতিপত্তির অধিকারী হয়ে যান দিব্যাঙ্কা. সব শুদ্ধ ১৪ টি ধারাবাহিকে যিনি কাজ করেছেন . তবে এগুলির মধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো ইয়ে হাই মোহাব্বাতেই ( Yee Hain Mohabbattein ) – ডাক্তার ঈশিতার চরিত্রটি.

দিব্যাঙ্কার পথ চলা শুরু ভোপালের আকাশ বাণীর anchor হিসেবে. এরপর উনি ২০০৩ সালে প্যান্টিন আয়োজিত জী টিন কুইন – সুন্দরী স্কিনের (Miss Beautiful Skin ) খেতাব যেতেন এবং ২০০৫ সালে ভোপাল সুন্দরীর (Miss Bhopal ) এর খেতাব যেতেন.
এছাড়াও অভিনয় জগতে সাফল্যতার জন্য উনি ইন্ডিয়ান টেলিভিশন একাডেমির তরফ থেকে শ্ৰেষ্ঠ অভিনেত্রী পুরস্কার পেয়েছেন. বর্তমানে উনি ওনার সহকর্মী ভিভেক ডালিয়ার সাথে বিবাহ সূত্রে আবদ্ধ হয়েছেন.

আয়: প্রতি পর্বের জন্য প্রায় ৮০০০০ – ১ লক্ষ টাকা.

7~ শিবাজী সাতাম:

CID প্রদ্যুমান এর চরিত্রটা আমরা বোধহয় কেউ ই ভুলতে পারবো না. কি তাইতো? সিরিয়েল জগতের সবথেকে বেশিদিন ধরে চলা C.I.D. এই ধারাবাহিকটি খ্যাত শিবাজী সাতাম, বাচ্ছা থেকে বয়স্ক সকলের কাছেই খুব ই জনপ্রিয় এবং সেটা এতটাই বেশি যে টিভি তে তার মৃত্যু দৃশ্য দেখার পর তার অনেক ভক্তরাই ভীষণভাবে দুঃখ্যে ভাঙে পড়েছিলেন. যার পরিণামস্বরূপ তাকে আবার C.I.D. তে ফিরিয়ে আনা হয়. পদার্থবিজ্ঞানে স্নাতক এবং ব্যবসা প্রশাসনে ডিপ্লোমা পাওয়া শিবাজী, জীবনের প্রথম ভাগে সেন্ট্রাল ব্যাঙ্ক অফ ইন্ডিয়া তে কোষাধক্ষ্যের (Cashier ) কাজ করতেন. ঐসময় ব্যাংকার থেকে হওয়া একটি প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করার পর তার অভিনয় প্রতিভার প্রকাশ ঘটে. ১৯৮০ সালে রিস্তেয় -নাতে (Ristey – Nate ) ধারাবাহিকে তিনি প্রথম কাজ করেন. এ.কি.পি প্রদ্যুমান এর চরিত্রের জন্য শ্রেষ্ঠ অভিনেতার পুরস্কার পাওয়ার পর উনি পুরোপুরিভাবে ধারাবিক জগতের সাথে যুক্ত হয়ে যান.

এছাড়াও শিবাজী বলিউড এর অনেক হিট ছবিতেও সাফল্যের সঙ্গে অভিনয় করেছেন যেমন বাস্তব (Vastav ), কুরুক্ষেত্র (Kurukhetro ), Hu Tu Tu , পুকার (Pukar ), নায়ক (Nayak ) ইত্যাদি .

আয়: প্রতি পর্বে ১ লক্ষ টাকা.

৮.~করণ প্যাটেল:

২০০০ সালে কাহানি ঘর ঘর কি (Kahani Ghar Ghar Kiii ) দিয়ে ক্যারিয়ার শুরু করেন করণ. ষ্টার প্লাস এর ধারাবাহিক কস্তুরী তে Robby Sawarbal , করণের প্রথম মুখ্য চরিত্র. এরপর য়ী হায় মোহাব্বাতেই (Yee Hain Mohabbatein ) ধারাবাহিকে সাফল্যের সঙ্গে অভিনয় করে ইনি দর্শকের মন কেড়ে নেন. শুধু তাই নয় অনেক পুরস্কার ও জিতে নেন যার মধ্যে রয়েছে জী গোল্ড অ্যাওয়ার্ড থেকে শ্রেষ্ঠ অভিনেতা (২০১৪-১৬) , ইন্ডিয়ান টেলি অ্যাওয়ার্ডস থেকে শ্ৰেষ্ঠ অভিনেতা , ইন্ডিয়ান টেলিভিশন একাডেমী অ্যাওয়ার্ড থেকে শ্রেষ্ঠ রোমান্টিক অভিনেতার পুরস্কার (২০১৫) ইত্যাদি.

আয়: করণ বর্তমানে প্রতি পর্বের জন্য ১ লক্ষ টাকা দাবি করে থাকেন.

৯.~ মিশাল রাহেজা:

মিশালের জন্ম মুম্বাইতে. বিদেশ থেকে স্নাতকোত্তর ডিগ্রী নিয়ে আসার পর 2005 সালে ইনি নিজের অভিনয় শুরু করেন MTV Pyar Vyar শো দিয়ে. বর্তমানে মিশাল ইস্ক কে রং সফেদ এ বিপ্লব এর চরিত্রে অভিনয় করছেন. তার অভিনয়
দক্ষতা তাকে লাগি তুজসে লাগান ধারাবাহিকে দত্ত ভাউ এর চরিত্রটি পেতে সাহায্য করে এবং এই চরিত্রে অভিনয় করে উনি দর্শকের কাছ থেকে ভূয়সী প্রশংসা লাভ করেন. এছাড়া সোনি টিভি তে এনকাউন্টার শো তে উনি একজন পুলিশ অফিসার এর ভূমিকায় অভিনয় করেছেন. MTV আয়োজিত সিনেমা Shadi Vaadi and All That এ তার সাফল্যপূর্ণ অভিনয় তার খাঁটি অনেকটাই বাড়িয়ে দেয়.

আয়: বর্তমানে মিশাল প্রতি পর্বের জন্য ১.৬ লক্ষ টাকা দাবি করেন.

১০~ দ্রাষ্টি দ্রামি:

চনমনে এই অভিনেত্রী তার অভিনয় জীবন না বলে টুম না ম্যানে কুছ কাহা (Naa Bole Tum Naa Maine Kuch Kaha ) দিয়ে শুরু করলেও মধুবালা ধারাবিকের মুখ্য চরিত্র তাকে দর্শকের কাছে জনপ্রিয় করে তোলে.

আয়: এক থি রাজা এক থি রানী র মুখ্য চরিত্র দ্রাষ্টি বর্তমানে ৬০০০০ টাকা প্রতি পর্বের জন্য পেয়ে থাকেন.

তাহলে দেখলেন তো ছোট পর্দা হোক বা বড়ো পর্দা প্রতিভার কদর সব জায়গাতেই এক. শুধু দরকার নিজের প্রতি বিশ্বাস আর কঠোর পরিশ্রম করার মানসিকতা . তাহলেই এই দুই দুনিয়ার মানে সোনালী আর রুপালি পর্দার অন্তরটা একেবারে ঘুচে যাবে.

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...