অধীরের জায়গায় সোমেন মিত্র, বড়সড় পরিবর্তন প্রদেশ কংগ্রেসে…..

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 2
    Shares

কংগ্রেস শীর্ষ নেতৃত্বের এখন একটাই লক্ষ্য, যেভাবে হোক ২০১৯ সালে মোদি তথা বিজেপিকে ক্ষমতাচ্যুত করা। শিয়রেই লোকসভা নির্বাচন। আর তার আগে বাংলায় প্রদেশ কংগ্রেসে বড়সড় রদবদল করলেন কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী। ক্ষমতাচ্যুত হলেন অধীর চৌধুরি। তাঁর জায়গায় এলেন বর্ষীয়ান সোমেন মিত্র। শুক্রবার কংগ্রেস নেতা অশোক গেহলট একথা জানিয়েছেন।
কংগ্রেসের এই ঘোষণার পরেই রাজনৈতিক মহলের মত, আগামিদিনে এ রাজ্যে রাজনৈতিক পটপরিবর্তন আর অসম্ভবের কিছু রইল না। সেক্ষেত্রে সিপিএম তথা বামফ্রন্টের হাত ছেড়ে তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে কংগ্রেস জোট বাঁধলেও অবাক হওয়ার কিছু থাকবে না। আর সেই কাজে সফল হতে গেলে এ রাজ্য থেকে আসন জিততে হবে কিংবা তৃণমূলের সমর্থন পেতে হবে। কারণ গত পঞ্চায়েত নির্বাচনেও দেখা গিয়েছে, পঞ্চায়েত ভোটে রাজ্যের সমস্ত জেলা পরিষদে নিরঙ্কুশ জয়ের পর তৃণমূলের আধিপত্য আরও বেড়েছে। বেড়েছে আত্মবিশ্বাসও।
গত একুশে জুলাইয়ের সমাবেশে মমতা ব্যানার্জি ঘোষণাও করেছিলেন, আগামী লোকসভা ভোটে রাজ্যের ৪২টি আসনের ৪২টিই পাবে তৃণমূল। কিন্তু অন্যদিকে, অধীরের সঙ্গে মুখ্যমন্ত্রীর সম্পর্ক খুব ভাল নয়। আর তাই জোটের রাস্তা পরিষ্কার করতেই হয়ত মোক্ষম চাল দিল কংগ্রেস শীর্ষ নেতৃত্ব। কারণ সোমেন মিত্রের সঙ্গে তৃণমূল নেত্রীর সম্পর্ক খারাপ নয়। এখন দেখার আগামিদিনে কোথাকার জল কোথায় গড়ায়!‌
প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি পদ থেকে অধীরকে সরিয়ে আনা হল সোমেনকে। অপরদিকে অধীরকে করা হল কংগ্রেসের প্রচার কমিটির চেয়ারম্যান। এছাড়া আরও ৪ জনকে কার্যকরী সভাপতি পদে নিয়োগ করার কথা জানিয়েছে কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্ব। এই চারজন হলেন, নেপাল মাহাতো, দীপা দাশমুন্সি, শঙ্কর মালাকার, আবু হাসেম খান চৌধুরি। অন্যদিকে, কংগ্রেসের কো–অর্ডিনেশন কমিটির চেয়ারম্যান পদে নিযুক্ত হয়েছেন রাজ্যসভার সাংসদ প্রদীপ ভট্টাচার্য।

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 2
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~