অল ইংল্যান্ডের সেমিতে পরাজিত সিন্ধু…

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 1.2K
    Shares

ওয়েব ডেস্ক, নিজস্ব প্রতিনিধিঃ  প্রকাশ পাদুকোন, পুলেল্লা গোপীচাদের পর তৃতীয় ভারতীয় হিসেবে এবং প্রথম ভারতীয় মহিলা হিসেবে ব্যাডমিন্টনের “উইম্বলডন” অল ইংল্যান্ডের খেতাব জয়ের হাতছানি ছিল পুসারলা বেঙ্কট সিন্ধুর সামনে। ওকুহারাকে হারিয়ে সেমিফাইনালে সিন্ধুর প্রবেশ আপামর ভারতবাসীর সেই আশা আকাঙ্ক্ষাকে আরও বাড়িয়ে দিয়েছিল। সেমিফাইনালে অপর জাপানি প্রতিপক্ষ আকানে ইয়ামাগুছির বিপক্ষে লড়াইয়ে তাই সিন্ধুকে নিয়ে প্রত্যাশার  পারদ ও চড়েছিল। এক ঘন্টা ২০  মিনিটের হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের পর এক পক্ষের জয় এবং একপক্ষের পরাজয় নিশ্চিত ছিলই। তবে দিনের শেষে খেলা হিসেবে ” জয়ী ” হল ব্যাডমিন্টন।

যদি ও এই সেমিফাইনালের আগে ৩-০ ফলে হেড টু হেড রেকর্ডে এগিয়ে ছিলেন সিন্ধু তবুও প্রথম গেমের প্রথম পয়েন্ট থেকেই আভাস পাওয়া গেছিলো  টক্কর হতে চলেছে “কাঁটে কি”। সিন্ধুর অপেক্ষাকৃত দুর্বল ব্যাকহ্যান্ডকে টার্গেট করতে পারে জাপানি প্রতিপক্ষ ইয়ামাগুছি তাই আগে থেকেই “হোমওয়ার্ক” করে রেখেছিলেন গুরু গোপীচাদ এবং শিষ্যা সিন্ধু তা ম্যাচ যত এগিয়েছে ততই স্পষ্ট হয়ে উঠেছে। কোর্ট – কভারেজ, ক্রস-স্মাশ,ড্রপ সটের মুন্সিয়ানায় একে অন্যকে কড়া চ্যালেঞ্জের মুখে ফেলেছেন। প্রথম গেমে একটা সময় ১৫-৭ পয়েন্টে এগিয়ে যান সিন্ধু। তারপর আর ফিরে তাকাতে হয়নি তাকে। প্রথম গেমে ২১-১৯ ফলে বিপক্ষকে ধরাশায়ী করেন পুসারলা।

দ্বিতীয় গেমে শুরুতেই সিন্ধুর বিপক্ষে চাপ বাড়াতে চেষ্টা করেন ইয়ামাগুছি। প্রতিপক্ষের গেমপ্ল্যান আগে থেকেই আন্দাজ করে নিয়ে নিজের ক্ষুরধার ফোরহ্যান্ডকে আর বেশি করে প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে অস্ত্র হিসাবে ব্যবহার বাড়ান সিন্ধু। ১৫-১৯ পয়েন্টে ২য় গেমে একটা সময় পিছিয়ে পড়েন সিন্ধু। লড়াইয়ে ফিরে আসার চেষ্টা করলে ও ২১-১৯ পয়েন্টে দ্বিতীয় গেমের দখল নেন ইয়ামাগুছি।

তৃতীয় গেমে ১৩-৭ ফলে একটা সময় এগিয়ে যান সিন্ধু। ইয়ামাগুছির ফোরহ্যান্ডের জোড়ে ক্রমাগত চাপ বাড়তে থাকে সিন্ধুর। একটা সময় সেই চাপ আর প্রতিহত না করতে পেরে তৃতীয় গেমে অবশেষে ২১-১৮ ফলে সিন্ধুকে পরাজয় স্বীকার করতে হল।

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 1.2K
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.