ফের মার্কিন প্রেসিডেন্টের রোষের মুখে পাকিস্তান

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 75
    Shares

পাকিস্তানকে সামরিক সহায়তা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে৷ এবার সেই প্রসঙ্গে মুখ খুললেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ফক্স নিউজকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে অ্যাবোটাবাদের বাড়িটির প্রতি ইঙ্গিত করে ট্রাম্প বলেন, ‘ভেবে দেখুন, লাদেন পাকিস্তানে সুন্দরভাবে চমৎকার বাড়িতে বাস করে আসছিলেন। সামরিক অ্যাকাডেমির কাছেই সে থাকত। আর পাকিস্তানের সবাই তা জানত।’ তিনি আরও বলেন যুক্তরাষ্ট্রের জন্য কানাকড়ি কাজও করেনি পাকিস্তান। উল্টে সে দেশের সরকার আল–কায়েদার নেতা ওসামা বিন লাদেনকে এমন এক জায়গায় লুকিয়ে থাকতে সহায়তা করেছিল যার কাছেই ছিল সামরিক ব্যবস্থাপনা।
মার্কিন প্রেসিডেন্ট বলেন, ‘আমরা পাকিস্তানকে আর কোনও অর্থ দেব না। আমি এই সহায়তা বন্ধ করে দিয়েছি। কারণ পাকিস্তান আমাদের জন্য কিচ্ছু করেনি। তারা কানাকড়িও কাজ করেনি।’ সম্প্রতি রাষ্ট্রপুঞ্জে পাকিস্তানকে সন্ত্রাসবাদের আঁতুড়ঘরে বলে তুলোধনা করেছিল ভারত। আর এবার সেই পাকিস্তাকে অর্থ সাহায্য বন্ধ করার বিষয়ে ডোনাল্ড ট্রাম্পের বক্তব্য তাতেই সিলমোহর দিল বলে মনে করছেন আন্তর্জাতিক বিশেষজ্ঞরা। তাছাড়া এখন বিভিন্ন দেশে অর্থের জন্য ঘুরে বেড়াচ্ছেন পাকিস্তানের নয়া প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। সেখানে শক্তিধর দেশের পক্ষ থেকে এই ধরণের মন্তব্য তাঁকে বিপাকে ফেলবেই বলে মনে করা হচ্ছে।
উল্লেখ্য পাকিস্তানের অ্যাবোটাবাদের একটি বাড়িতে লাদেন লুকিয়ে বসবাস করে আসছিলেন। ২০১১ সালে মার্কিন বিশেষ বাহিনীর অভিযানে লাদেন নিহত হন। অ্যাবোটাবাদের বাড়িটির কাছেই ছিল পাকিস্তানের সামরিক অ্যাকাডেমি। পরে বাড়িটি গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়। পাকিস্তানকে অর্থ সাহায্য বন্ধ করে দেওয়ার কারণ হিসাবে ট্রাম্পের যুক্তি, পাকিস্তানকে শত শত কোটি ডলার সহায়তা দিয়ে আসছিল যুক্তরাষ্ট্র। আর সেই পাকিস্তানই কিনা যুক্তরাষ্ট্রের শত্রু লাদেনকে নিরাপদে লুকিয়ে থাকতে সাহায্য করেছিল।

Facebook Comments


শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 75
    Shares

খবর ২৪ ঘন্টা

খবর এক নজরে…

No comments found