এসপি বিএসপিকে মাস্টারস্ট্রোক কংগ্রেসের, নজরে উত্তরপ্রদেশের রাজনীতি

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 14
    Shares

বিজেপি–বিরোধী মহজোটের প্রাসঙ্গিতা ফিকে হয়ে গিয়েছে অখিলেশ যাদব এবং মায়াবতীর জোট থেকে কংগ্রেসকে ব্রাত্য করে দেওযায়। উত্তরপ্রদেশে ৮০টা লোকসভা আসনের মধ্যে দুটি দলই ৩৮টি করে আসনে প্রার্থী দেবে বলে ঠিক করেছে সমাজবাদী পার্টি ও বহুজন সমাজপার্টি৷ এবার কূটনীতির খেলা খেলল কংগ্রেস৷ কংগ্রেস সূত্রে খবর, রাজ্যের ৮০টি লোকসভা আসনের প্রায় সব ক’টিতেই প্রার্থী দেবে দল। রবিবার কংগ্রেসের পক্ষ থেকে ঘোষণা করা হল ৮০টি লোকসভা কেন্দ্রে ১৩টি নির্বাচনী সভা করানো হবে কংগ্রেস সভাপতিকে দিয়ে। যা এককথায় মাস্টারস্ট্রোক বলে মনে করছেন রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকরা। মায়াবতী–অখিলেশ অবশ্য একইদিনে যৌথ সাংবাদিক বৈঠকে বলেছেন, দীর্ঘদিন কংগ্রেসের হাতে থাকা রায়বরেলি এবং আমেঠি দু’টি আসন তাঁরা ছেড়েই রাখছেন। বাকি দু’টি আসনও নিশাদ পার্টি বা রাষ্ট্রীয় লোক দলের মতো ছোট দলগুলির জন্য ছেড়ে দেওয়া হতে পারে। কিন্তু কংগ্রেসের মতো জাতীয় দলের কাছে এই ছেড়ে রাখার বক্তব্য দয়ার সামিল। যা উত্তরপ্রদেশের কংগ্রেস নেতৃত্ব মোটেই হজম করতে রাজি নন। তাঁরা আপাতত স্থির করেছেন, রাজ্যের ৮০টি আসনেই প্রার্থী দেওয়া হবে। শনিবারই লোকসভা ভোটের আসন বন্টন করে নিয়েছে উত্তরপ্রদেশের দুই বিরোধী রাজনৈতিক দল বিএসপি এবং এসপি। সূত্রের খবর, আগামী ফেব্রুয়ারি মাসেই শুরু হবে রাহুলের উত্তরপ্রদেশ সফর। প্রায় গোটা রাজ্যেকে ১৩টি অঞ্চলে ভাগ করা হয়েছে। প্রত্যেকটি অঞ্চলে রাখা হয়েছে ৬টি করে লোকসভা। এই ১৩ অঞ্চলেই সভা করবেন রাহুল। সদ্য তিন রাজ্যে সাফল্য পেয়েছে কংগ্রেস। তাই রাজনৈতিক অস্তিত্ব রক্ষায় এই সিদ্ধান্ত বলে মনে করা হচ্ছে।
কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধীর নির্বাচনী প্রচারের নির্ঘণ্টও তৈরি করেছেন উত্তরপ্রদেশের কংগ্রেস নেতৃত্ব। শীর্ষ কংগ্রেস নেতা গুলাম নবি আজাদ এবং উত্তরপ্রদেশের দায়িত্বে থাকা নেতা রাজ বব্বর মিলিত হয়ে এই পরিকল্পনা চূড়ান্ত করেছেন।

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 14
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~