আজ স্মরণে ~ বাঙালির বিবেকে বিবেকানন্দ…

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 2.6K
    Shares

একটা দিনের আলাপ ঘটে , আর এক একটা করে প্রতিদিনের ইতিবৃত্তের ভোলবদল হয় । সময়ের সাথে সাথে সব কিছুই পাল্টে যায়। আনুষ্ঠানিক কিছু থেকে যায়, তবে চলে গেলে হারানোর যে অশ্রু তা থেকে শুভ সূর্যের উদয় টাকে মধুর করে।হারানোর দু:খ সাময়িক, বিশেষ করে পথের অভ্যাস যখন একার আর আশীর্বাদ যখন সেই পরমাত্মার, তখন আর দু:খের শব্দঋণ অমূলক।
=================================


সময়ের ইতিহাস আজ চোখের সামনে উঠে আসছে। প্রযুক্তি আমাদের অনেক কিছু দিয়েছে, যেমন করে নেতিবাচক আর ইতিবাচকের চলন হয়। দিক বহু,তবে এই প্রযুক্তি হয়ত অতীতের সুখকর কিছু মুহুর্ত, পদক্ষেপ, রাজনীতি, সমাজনীতি, প্রয়োজনে পন্থা গ্রহণকে অবলম্বন করতে শিখিয়েছে। তাই সেই প্রযুক্তির সাহায্যে উঠে এসেছে ১৮৮৬ সাল। ঠাকুর রামকৃষ্ণ চলে গেছেন, রেখে গেছেন তাঁরই পরম মার্গ অনুসারী আট শিষ্য সন্ন্যাসী। অনেকেই নিজের সাধনার জন্য নিজ গৃহকে যথার্থ মনে করেছেন। বহু হাত উঠে গেছে, কারণ ইন্দ্রপতন তাই সুযোগ সন্ধানী অনেকেই সরবেন এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু পরমাত্মার সেই ঐক্য, মৈত্রী, ভালোবাসার অপার বন্ধন কখনও খুলে সরে যায় না। কারণ যিনি অনন্তের সন্ধান পেয়েছেন তিনি মিথ্যা বন্ধনের কারণ হতে মুক্ত,আর এখানে মত বিবিধ হলেও পন্থা এক। ঈশ্বর এক, সেই ব্রহ্ম সেই নাদ এক, জ্ঞানের অনন্ত গহ্বর যা দ্বিমুখী হতে পারে না। তাই কেউ সেটা লঙ্ঘন করলেও প্রকৃতি একই ভাবে চলবে। আর সেই চলনে বিবেকানন্দ আর আট একনিষ্ঠ গুরুভাই
আনুষ্ঠানিক ভাবে দীক্ষা নিলেন। তবে এই সময়টা ছিল ১৮৮৭, এক যুথবদ্ধ সন্ন্যাস সংগঠন, ভারতের কোলে সাধু সন্ন্যাসের আর এক ভারত। শুরু হলো ভিক্ষা করে অন্নজল গ্রহণের সময়। আর তপস্যা, এখানেই বলে ” enlightened “..। আজ বার বার সেই রাজযোগ, সেই বীর সন্ন্যাসী তোমার এক প্রান্তর খোলা আকাশের ডাক পিওনের হাতে পাঠানো ডাক শুনছি, আর অপেক্ষা করছি কবে সে ডাক শুনব, বার বার সে কথা ভাষ্য হচ্ছে,
“We underwent a lot of religious practice at the Baranagar Math. We used to get up at 3:00 am and become absorbed in japa and meditation. What a strong spirit of detachment we had in those days! We had no thought even as to whether the world existed or not.”
Related image
এ অভ্যাসের বাঁধন একান্তে পথ চলার একক মূল্যায়ন। এখানে বলতে দ্বিধা নেই যে সব ধর্ম এক, কারণ ব্রহ্ম সত্য জগৎ মিথ্যা। দিনের প্রতিলিপি লিখতে গিয়ে শ্রদ্ধেয় সুরেন্দ্রনাথ মিত্র কে শ্রদ্ধা জানাব, কারণ তিনি সাধুদের আধার দিয়েছিলেন। আর সাধু তো আলো, উন্মোচন, সুদূরপ্রসারী পথের সূচক। আজকের দিনে সেই সাধু মার্গ কে প্রণাম। প্রণাম সেই ব্রহ্ম স্বরূপে, প্রণাম সেই আধারকে, যে আধার সন্ন্যাসীদের একান্ত যোগ সাধনার নিবিড় সংযোগ, প্রণাম সেই পথের ধূলা কে, যা সন্ন্যাসীদের চরণ সম্বৃদ্ধ।

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 2.6K
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.