মৃত্যুভয়ে দিন কাটাচ্ছেন আফগানিস্তানের শিখরা…

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 19
    Shares

ওয়েবডেস্কঃ রবিবার জালালাবাদে একটি আত্মঘাতী বিস্ফোরণে ১৩ জনের মৃত্যু হয়েছে। মৃতেরা সকলেই শিখ সম্প্রদায়ের। মৃত্যু হয়েছে আগামী নির্বাচনের একমাত্র শিখ প্রার্থী অবতার সিং খালসারও। রক্তাক্ত রবিবারের পর আফগানিস্তান ছেড়ে পালানোর চিন্তা শুরু করে দিয়েছেন সে দেশের শিখ সম্প্রদায়ের মানুষরা। আফগানিস্তানে বর্তমানে প্রায় ৩০০টি শিখ পরিবার রয়েছে। তাঁদের জন্য গুরুদ্বার মাত্র ২টি। একটি জালালাবাদে ও অপরটি কাবুলে।
অথচ এই আফগানিস্তান মুসলিম প্রধান দেশ হওয়া সত্ত্বেও ৯০-এর যুদ্ধের আগে সে দেশে আড়াই লক্ষ শিখ ও হিন্দু ধর্মের মানুষের বসবাস ছিল। এমনকী বছর দশেক আগেও ৩০০০ হিন্দু ও শিখ সম্প্রদায়ের মানুষ ছিলেন আফগানিস্তানে।
এই ঘটনার পর থেকেই আফগানিস্তানে অত্যন্ত ভয়ে দিন গুজরান করছেন শিখরা। সন্ত্রাসবাদীদের ওই হামলায় প্রাণ গিয়েছে শিখ সমাজকর্মী রাওয়াল সিংয়েরও। আফগানিস্তানের বাসিন্দা শিখ তেজবীর সিংয়ের কথায়, ‘আমি বুঝে গিয়েছি, এ দেশে আর আমরা বাস করতে পারবো না। ইসলাম সন্ত্রাসবাদীরা আমাদের ধর্মকে সহ্য করতে পারছে না। আমরা আফগান। সরকার আমাদের স্বীকৃতি দিয়েছে। কিন্তু সন্ত্রাসবাদীরা আমাদের টার্গেট করেছে, তার কারণ আমরা মুসলিম নই।’ তেজবীরের কাকা মারা গিয়েছেন বিস্ফোরণে।

Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 19
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~