বিরহ প্রেম একাকীত্ব ~ বিকাশ দাস

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 52
    Shares

বিরহ প্রেম একাকীত্ব

আর কটা দিন সবুর করো
সময় কে একটু ধরে রেখো ।
আর লাঞ্ছনা নয় পাকা সোনার মতো
অঢেল সুখ তোমার গা ছুঁয়ে আসবে ।
শুধু একটা ভালো চাকরি হতে দাও ।

তুমি  আপাতত: পা ভিজেয়ে রাখো আলতায়,
প্রতিদিনের দুঃখ কষ্টকে নিজের মতো করে মাথার বালিশ করো ।
খাঁ খাঁ করে যদি বুকের ভেতর
দুটি কতক কবিতা লেখো আমার কথা ভেবে
তোমার কাজলের আঁচে ।

দেখবে শুকনো আঁধারের ডানায় বৃষ্টির ফোঁটা পড়ে ভালবাসা
আকাশ হয়ে উঠবে তোমার ছাদে ।
ভালবাসার তাউসে ময়লা জমতে দিও না ।
পারো যদি আপাতত:  অল্প একটু কেঁদে নিতে পারো ।
অনেকটা হালকা লাগবে ।

আমি বসে নেই।  সত্যি বলছি।
তোমার কথা ভেবেই অনেকটা হেঁটে এসেছি
দু হাতে প্রথানুযায়ী প্রার্থনা করেছি তোমার কুল দেবতাকে ।

তোমার সাঁজো শাড়ির ভাঁজে যে সুখ ছড়িয়ে রেখেছো
ঝেড়ে ফেলো না ।
চালগুঁড়োর  আলপনা এঁকে রেখো রোজকার মতো

তোমার উঠোন বাড়ির

ঘর দুয়ার চৌকাঠ কাছে থাকার ভীষণ টানে ।

সন্ধ্যা পাতা মুড়িয়ে টাটকা ফুলে মালা না ই বা গাঁথলে
শুকনো ফুলের শেষ সুখ টুকু
কুড়িয়ে নেবো  আমরা একদিন ।
চাঁদনী রাত তখন ও তোমার শোবার ঘরে গোধুলির সানাই নিয়ে হাতে ।

অবাধ সংসারে বেদনার দংশন
ভোরের শিশিরের মতো শীতল হবে,
উপচে পড়বে ভালবাসা প্রেম ।

সার্থক হবে সিঁদুর ছূঁয়ে থাকা তোমার প্রশস্ত  কপাল।
ঘুমের জাজিমে একটু কাত হয়ে নাও  খোলা চুলের গন্ধে ।
এখন ভর দুপুর। জানি এটা  টানা পোড়েনের সময় ।

ঘুমের ঘামে চুল ভিজলে নাকি এলোমেলো ভাবনায় মাথা ধরে না ।
তুমি নাকি সারা রাত ঘুমোয়নি, মশারির চারকোণ

তোমার বাঁধা চুল দেখে দিব্যি  বুঝেছিলাম ।

নিজের অসুখ একান্ত নিজের বলে মনে হয় তোমার ।
পায়ের নিচে কাঁটা তবু মুখ রাকাড়ে না তোমার ।

বিয়ে হলো ন মাস বিয়ের কাঠ এখনও পুড়ছে নিবীড়ে ।
চোখের আকুলতায় তুমি এ সব কথা বল না তোমার পুরুষ বন্ধুকে ।

মাস বাড়লে বছর বাড়ে  দিন ফুরোলে  মাস ও ফুরোয় ।
এমনি করে দেখো এক মহাসময় আসবে সোয়াস্তির রঙ নিয়ে ।

সে দিনও তোমায় ইঞ্চি পাড়ের তাঁত সিল্ক বেশ মানাবে।
আপাতত: আটপৌঢ় শাড়িতে তোমার শরীরটা ভিজিয়ে নাও ।
পৃথিবীর গায়ে জ্বর থাকলেও তোমার পছন্দ অপছন্দ বেছে নিতে অভাব থাকবে না ।

আজ যতটুকু আছে ততটুকু টুকড়ো টুকড়ো করে জুড়ে নিও, গোপন অব্তংসার রঙ ।
চোখের পাতায় সুখের ছিঁটে নাই বা পড়লো ক ' ফোঁটা চোখের জলে

ভিজিয়ে নিও তোমার দুহাতের তালু ।
বড়ো কাছা কাছি থেকো আমার
পাথরের মতো ঘুমিয়ে থেকো  ছেড়ে আসা আমার কোলবালিশে



এখন অভিমানে গা ভাসিয়ে নিও না
এখন গড়ার সময় মুহূর্ত ।
সেই বেলা তোমার চোখের বিছিন্ন কাতর কাজল
আমাকে অনেক কিছু বলেছিলো

তোমার নাকি বাড়ি উঠোন হেঁসেল করে সারাক্ষণ কাটে ।
জেনো  এ কাটায় রক্ত ক্ষয়  হয় না
তবু তোমার চিকন হাসি চৌকাঠ জুড়ে

জানলার শিঁকেয় সূর্যের কাক প্রতীম বিভা ।
দিল্লি থেকে আর কটা  দিন পরে খবর পাবো তার অপেক্ষায় বসে আছি ।
তুমিই বলেছ  তোমার এখানেই  হবে একটা চাকরি, হবে  অন্নসংস্থান ।
তোমার বিরহে আমার ভালোবাসা সাজিয়ে সারাদিন থাকি বিভোর

নিয়ে হাতে আমার বায়োডাটা ।



বিকাশ দাস
Facebook Comments

শেয়ার করুন সকলের সাথে...
  • 52
    Shares

খবর এক নজরে…

No comments found

Sponsored~

Be the first to comment

Leave a Reply

Your email address will not be published.